নয়াপাড়া শরণার্থী শিবির

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নয়াপাড়া শরণার্থী শিবির
নয়াপাড়া শরণার্থী শিবির বাংলাদেশ-এ অবস্থিত
নয়াপাড়া শরণার্থী শিবির
নয়াপাড়া শরণার্থী শিবির
বাংলাদেশে অবস্থান
স্থানাঙ্ক: ২০°৫৭′২২″ উত্তর ৯২°১৫′০৫″ পূর্ব / ২০.৯৫৫৯৭৯° উত্তর ৯২.২৫১৩১২° পূর্ব / 20.955979; 92.251312
দেশ বাংলাদেশ
বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
জেলাকক্সবাজার জেলা
উপজেলাটেকনাফ উপজেলা
জনসংখ্যা (১৪ জানুয়ারি ২০১৮)
 • মোট২৩,০৬৫[১]

নয়াপাড়া শিবির হল বাংলাদেশের কক্সবাজারের টেকনাফে অবস্থিত একটি শরণার্থী শিবির। এটি ধুমদুমিয়া গ্রামে অবস্থিত যা মূলত প্রতিবেশী রাষ্ট্র মায়ানমারের ধর্মীয় নির্যাতনের হাত থেকে বাঁচতে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা মুসলিমদের দ্বারা জনাকীর্ণ।[২] কক্সবাজারে সরকারি পরিচালনায় দুটি শরণার্থী শিবিরের মধ্যে এটি একটি, অন্যটি হচ্ছে কুতুপালং শরণার্থী শিবির[৩] ২০১৭ সালের জুলাই অনুসারে উভয় শরণার্থী শিবির মিলিয়ে প্রায় ৩০,০০০ শরণার্থী লোক বাস করে।[৪] সেপ্টেম্বর ২০১৭-তে, জাতিসংঘ শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার (ইউএনএইচসিআর) থেকে হিসেব করা হয় যে উভয় শরণার্থী শিবির মিলিয়ে উদ্বাস্তুর সংখ্যা ৭৭,০০০ ছাড়িয়ে গেছে।[৫]

১৪ জানুয়ারি ২০১৮ মোতাবেক, নয়াপাড়া শরণার্থী শিবিরের লিপিবদ্ধ জনসংখ্যা ২৩,০৬৫ জনের মতো ছিল।[১]

শরণার্থীদের প্রাপ্ত সুবিধাদি[সম্পাদনা]

ক্যাম্প ইন চার্জের অফিস

এখানে অবস্থানরত শরণার্থীরা মৌলিক সুবিধাদি যেমন: অন্ন, বস্ত্র, বাসস্থান, স্বাস্থ্য, শিক্ষা, পানীয় জল, পয়:নিষ্কাশন, প্রশিক্ষণসহ নানান সুবিধা পেয়ে থাকে। শরণার্থীদের জন্য দর্জির কাজ, সাবান তৈরি, ছুতারের কাজ, কম্পিউটার প্রশিক্ষণ, ইলেক্ট্রনিক যন্ত্রপাতি মেরামত, রিক্সা-সাইকেল মেরামত ইত্যাদি। এসব প্রশিক্ষণ বিভিন্ন এনজিও কর্তৃক পরিচালিত হয়।[৬]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "How Suu Kyi sees the Rohingya crisis"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২৫ জানুয়ারি ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৬ জানুয়ারি ২০১৮ 
  2. "The young and the hopeless in Bangladesh's camps"UNHCR (ইংরেজি ভাষায়)। United Nations High Commissioner for Refugees। সংগ্রহের তারিখ ২ সেপ্টেম্বর ২০১৭ 
  3. "Stories from the Rohingya Camps in Bangladesh"। ৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১৭ 
  4. "Two camps of thought on helping Rohingya in Bangladesh"UNHCR (ইংরেজি ভাষায়)। United Nations High Commissioner for Refugees। সংগ্রহের তারিখ ১৪ জুলাই ২০১৭ 
  5. Judah, Jacob (১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭)। "Rohingya influx strains camp resources in Bangladesh"UNHCR (ইংরেজি ভাষায়)। United Nations High Commissioner for Refugees। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০১৭ 
  6. "মায়ানমার শরণার্থী বিষয়ক সংক্ষিপ্ত তথ্যাদি" (PDF)modmr.portal.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ১২ নভেম্বর ২০২১