নমিতা টোপ্পো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নমিতা টোপ্পো
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (1995-06-04) ৪ জুন ১৯৯৫ (বয়স ২৬)
ওড়িশা, ভারত
উচ্চতা ১.৬৩ মি
মাঠে অবস্থান মিডফিল্ডার
ক্লাব তথ্য
বর্তমান ক্লাব ওড়িশা, রেলওয়ে,
জাতীয় দল
২০১২– ভারত ১৫৬

নমিতা টোপ্পো (জন্ম ৪ঠা জুন ১৯৯৪) একজন ভারতীয় মহিলা ফিল্ড হকি খেলোয়াড়।[১] তিনি ওড়িশা রাজ্যের সুন্দরগড় জেলার রাজগাঙ্গপুর ব্লকের জাউরুমল গ্রামের অধিবাসী। [২] তিনি ওড়িশার রাউরকেলার পানপোষের স্পোর্টস হোস্টেল থেকে সবার নজরে এসেছেন। [৩][৪]

খেলোয়াড় জীবন[সম্পাদনা]

৪ঠা জুন ১৯৯৫এ জন্মগ্রহণকারী নমিতা টোপ্পো একজন মিডফিল্ডার। তিনি ওড়িশার রাউরকেলার পানপোষের একটি স্পোর্টস হোস্টেল থেকে উঠে এসেছেন। [২] ২০০৭ সালে টোপ্পোর জাতীয় দলে অভিষেক হয় এবং তারপরে তিনি থাইল্যান্ডের ব্যাংককে অনুষ্ঠিতব্য এশিয়া কাপের ১৮ বছরের কম বয়সী মেয়েদের দলের জন্য নির্বাচিত হন। সেখানে তার দল ব্রোঞ্জ পদক জিতেছিল। [৫] ২০১২ সালে, ডাবলিনের এফ আই এইচ চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে, প্রথমবারের মতো হকি মহিলা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন টোপ্পো। [৫] হকি ইন্ডিয়া, ২০১৪ সালে, বছরের উঠতি প্রতিভাধর খেলোয়াড় হিসাবে আসুন্ত্রা লাক্রা পুরস্কার দিয়ে নমিতাকে সম্মানিত করে। [৬] তিনি ২০১৮ সালে লন্ডন মহিলা হকি বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের এর বিরুদ্ধে জাতীয় দলের হয়ে ১৫০তম ম্যাচটি খেলেন। [৫] ৩৬ বছর পর, গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে, প্রথম ভারতীয় প্রতিনিধিত্বকারী দলের সদস্য ছিলেন নমিতা। রিও অলিম্পিক থেকে দেশে ফেরার সময় যে চারজন খেলোয়াড়কে ট্রেনের মেঝেতে বসে আসতে হয়েছিল, নমিতা টোপ্পো তাদের মধ্যে একজন।[৭]

পুরস্কার[সম্পাদনা]

১৫০ টিরও বেশি ম্যাচে ভারতের জাতীয় হকি দলের প্রতিনিধিত্ব করেছেন নমিতা।[৫] ২০১৪ সালের আগস্ট মাসে, মহানদী কোলফিল্ডস লিমিটেড, নমিতাকে ১ লাখ টাকা পুরস্কার দিয়ে সম্মানিত করে। ২০১৩ সালে, জার্মানিতে, ছোটদের হকি বিশ্বকাপে, ভারতের হয়ে ব্রোঞ্জ পদক জেতার জন্য তারা এই পুরস্কার দেয়। ইনছনে, ১৭তম এশিয়ান গেমসে, ভারতীত মহিলা হকি দলকে ব্রোঞ্জ এনে দেবার জন্য ওড়িশা সরকার নমিতাকে ৭৫,০০০ টাকা পুরস্কার দেয়। ২০১৫ সালের ২৮শে মার্চ, নতুন দিল্লিতে, বার্ষিক পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে, হকি ইন্ডিয়া, বছরের উঠতি প্রতিভাধর খেলোয়াড় (২১ বছরের কম বয়সী মহিলা) হিসাবে আসুন্ত্রা লাক্রা পুরস্কার এবং ১০ লাখ টাকা দিয়ে নমিতাকে সম্মানিত করে। রিও অলিম্পিক গেমসে অংশগ্রহণের জন্য ২০১৬ সালে উড়িষ্যা মাইনিং কর্পোরেশন ১০ লাখ টাকার একটি বিশেষ পুরস্কার নমিতাকে প্রদান করে।[২]

আন্তর্জাতিক স্তরে কৃতিত্ব[সম্পাদনা]

থাইল্যান্ডের ব্যাংককে মেয়েদের অনূর্ধ্ব-১৮ এশিয়া কাপ হকি চ্যাম্পিয়নশিপে দলের ব্রোঞ্জ পদকজয়ে অবদান রেখেছিলেন নমিতা (২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০১১)। [৮][৯] এর বেশ কিছু পরে, ১৮ থেকে ২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০১৩ পর্যন্ত, নতুন দিল্লিতে চলা, এফ আই এইচ ওয়ার্ল্ড লিগে (২য় রাউন্ড)।ভারতীয় সিনিয়র মহিলাদের হকি দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। [১০] কয়েক মাস পরেই, ৪ঠা জুলাই ২০১৩ তারিখে, জার্মানির মনচেনগ্ল্যাবাচে অনুষ্ঠিত, মহিলা মহিলা জুনিয়র হকি বিশ্বকাপে ভারত প্রথমবারের মতো ব্রোঞ্জ পদক জয় করে। এই দলের সদস্য ছিলেন তিনি।[১১][১২] ২০১৩ সালে জাপানে অনুষ্ঠিত তৃতীয় মহিলা এশিয়ান চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে তিনি দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।[১৩] ঐ বছরেই, ২০১৩ সালে, মালয়েশিয়ায় অনুষ্ঠিত ৮ম মহিলা এশিয়া কাপে তিনি দেশের প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন।[১৪] ২০১৪ সালে, গ্লাসগোতে অনুষ্ঠিত এফআইএইচ চ্যাম্পিয়ন্স চ্যালেঞ্জ ১ এ দেশের প্রতিনিধিত্ব করেন তিনি।[১৫] ২০১৪ সালের ৯ই থেকে ১৭ই জুন, কুয়ালালামপুরে অনুষ্ঠিত মহিলা হকি টেস্ট সিরিজে ভারত, মালয়েশিয়ার বিপক্ষে ৬-০ ম্যাচে জেতে। তিনি ভারতীয় দলটির সদস্য ছিলেন।[১৬] ১লা অক্টোবর ২০১৪ তারিখে, ইনছনে (দক্ষিণ কোরিয়া) অনুষ্ঠিত ১৭ তম এশিয়ান গেমসে ভারতীয় মহিলা হকি দল ব্রোঞ্জ পদক জয় করে। এই দলের সদস্য ছিলেন তিনি।[১৭]

জাতীয় স্তরে কৃতিত্ব[সম্পাদনা]

  • ২০১০ সালে মহিলা জাতীয় গেমসে ওড়িশার প্রতিনিধিত্ব (দ্বিতীয় স্থানাধিকার)।
  • ২০০৮ সালে সাব জুনিয়র ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নশিপে ওড়িশার প্রতিনিধিত্ব (তৃতীয় স্থানাধিকার)।
  • জাতীয় আন্তঃ বিদ্যালয় ক্রীড়ায় ওড়িশার প্রতিনিধিত্ব করে ২০০৮ এ তৃতীয় স্থান এবং ২০১১ এ বিজয়ী।
  • জাতীয় বিদ্যালয় ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় ২০০৯ এবং ২০১১ এ ওড়িশার প্রতিনিধিত্ব করে ২০০৯ এ বিজয়ী।
  • ২০০৯ সালে জাতীয় গ্রামীণ গেমসে ওড়িশার প্রতিনিধিত্ব (বিজয়ী)।
  • ২০০৭, ২০০৮, ২০০৯, ২০১০ সালে জুনিয়র নেহরু কাপ টুর্নামেন্টে অংশগ্রহণ করেন। এর মধ্যে ২০০৭ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত বিজয়ী এবং ২০১০ সালে তৃতীয় স্থান।
  • ২০১১ সালে সিনিয়র ন্যাশনাল চ্যাম্পিয়নশিপে উড়িষ্যা প্রতিনিধিত্ব (তৃতীয় স্থান)।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Four Odisha players part of Olympic-bound women's hockey squad"timesofindia.indiatimes.com। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুলাই ২০১৬ 
  2. "PERSONALITIES"orisports.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  3. "Hockey cradle celebrates Rio entry"newindianexpress.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  4. "Senior Women Core Probables"hockeyindia.org। ২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  5. "Hockey India Congratulates Namita Toppo On Completing 150 International Caps"Hockey India। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৮ 
  6. "The first ever Hockey India annual Award"। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৮ 
  7. "Indian Women's Hockey Team Players Made to Sit on Train Floor, Probe Demanded"। ২৯ আগস্ট ২০১৮। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুলাই ২০১৮ 
  8. "Bronze for India in the U-18 Girls Asia Cup"thefansofhockey.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  9. "India Get Bronze Medal in u-18 Asia Cup Women's Hockey"bharatiyahockey.org। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  10. "Ritu Rani to Lead Indian Women's Team at World Hockey League Round 2 in Delhi"thefansofhockey.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  11. "India win historic bronze at junior women hockey World Cup"thehindu.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  12. "Sushila to Lead India at Junior Women's Hockey World Cup in Mönchengladbach"thefansofhockey.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  13. "Hockey India names women's team for 3rd Asian Champions Trophy"sports.ndtv.com। ২৫ আগস্ট ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  14. "Indian Senior Women Hockey Team Announced For 8th Women's Asia Cup At Kuala Lumpur, Malaysia"hockeyindia.org। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  15. "Indian Women Team departs for Champions Challenge 1"thefansofhockey.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  16. "Ritu Rani to lead Indian Women Team for Malaysia Tour"thefansofhockey.com। সংগ্রহের তারিখ ৩১ জুলাই ২০১৬ 
  17. "Indian Players at Incheon Asian games 2014"sports.mapsofindia.com। সংগ্রহের তারিখ ৩০ জুলাই ২০১৬