নবদ্বীপ বকুলতলা উচ্চ বিদ্যালয়

স্থানাঙ্ক: ২৩°২৪′২৮.৫″ উত্তর ৮৮°২১′৫৩.১″ পূর্ব / ২৩.৪০৭৯১৭° উত্তর ৮৮.৩৬৪৭৫০° পূর্ব / 23.407917; 88.364750
উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
নবদ্বীপ বকুলতলা উচ্চ বিদ্যালয়
Nbhs1.jpg
নবদ্বীপ বকুলতলা উচ্চ বিদ্যালয়
ঠিকানা
নেতাজী সুভাষ রোড

, ,
৭৪১৩০২

স্থানাঙ্ক২৩°২৪′২৮.৫″ উত্তর ৮৮°২১′৫৩.১″ পূর্ব / ২৩.৪০৭৯১৭° উত্তর ৮৮.৩৬৪৭৫০° পূর্ব / 23.407917; 88.364750
তথ্য
ধরনউচ্চ বিদ্যালয়
প্রতিষ্ঠাকাল১৮৭৫; ১৪৭ বছর আগে (1875) (নবদ্বীপ বঙ্গ বিদ্যালয় হিসাবে)
অবস্থাসক্রিয়
বিদ্যালয় বোর্ডপশ্চিমবঙ্গ মধ্য শিক্ষা পর্ষদ, পশ্চিমবঙ্গ উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ
বিদ্যালয় জেলানদিয়া জেলা
সেশনজানুয়ারি - ডিসেম্বর (পঞ্চম - দশম)
জুন - মে (একাদশ - দ্বাদশ)
সভাপতিবিমানকৃষ্ণ সাহা (ম্যানেজিং কমিটি)
প্রধান শিক্ষকদীপঙ্কর সাহা
শ্রেণীপঞ্চম - দ্বাদশ
লিঙ্গপুরুষ
বয়সসীমা১০+ থেকে ১৮+
ভাষার মাধ্যমবাংলা, ইংরেজি
রঙসাদা এবং সবুজ        
গানআমাদের বকুলতলা (থিম সংগীত)
জনগণমন-অধিনায়ক জয় হে (জাতীয় সংগীত)
ক্রীড়াক্রিকেট, ফুটবল, দাবা
ডাকনামNBHS
বর্ষপুস্তকবকুলকথা
বকুলকুঁড়ি (দেয়াল পত্রিকা)
ওয়েবসাইট
বিদ্যালয়ের সকল স্তরের কর্মীবৃন্দ

নবদ্বীপ বকুলতলা উচ্চ বিদ্যালয় ভারতের পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের নদিয়া জেলায় অবস্থিত ছাত্রদের সরকারি উচ্চমাধ্যমিক বিদ্যালয়। নবদ্বীপ তথা পশ্চিমবঙ্গে অবস্থিত অন্যান্য উচ্চবিদ্যালয়গুলির মধ্যে এটি অন্যতম। ১৮৭৫ খ্রিস্টাব্দে এই বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। এই বিদ্যালয়ে বর্তমানে পঞ্চম থেকে দশম শ্রেণি এবং একাদশ-দ্বাদশ শ্রেণিতে কলা, বিজ্ঞানবাণিজ্য বিভাগে পঠনপাঠনের ব্যবস্থা রয়েছে।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

যে ভবনে ১৮৭৫ খ্রিস্টাব্দে 'নবদ্বীপ বঙ্গ বিদ্যালয়' নামে এটি প্রতিষ্ঠিত হয়, সেখানে বর্তমানে 'নবদ্বীপ বকুলতলা বালিকা বিদ্যালয়' নামে বিদ্যালয়টি চালু রয়েছে। সেই সময়ে শিশুদের কোলাহলে মুখরিত থাকত এই বিদ্যালয়। বকুল গাছের নীচে বিদ্যালয়ের পাঠদান শুরু হয়, যা থেকে লোকমুখে এর নাম হয়ে যায় 'বকুলতলা স্কুল' ।[১]

প্রতি বছর ৩ জানুয়ারি প্রতিষ্ঠা দিবস হিসেবে পালিত হয়। প্রথমে প্রাথমিক বিদ্যালয়রূপে আত্মপ্রকাশ করলেও ১৯২৪ খ্রিস্টাব্দে এটি উচ্চ বিদ্যালয়ে উন্নীত হয়। [২] বর্তমানে এখানে প্রাথমিক বিভাগটি নেই। বিদ্যালয়ের প্রথম সম্পাদক ছিলেন শ্রী জনরঞ্জন রায় (১৯২৫ - ১৯২৮) এবং প্রথম সভপতি ছিলেন তৎকালীন সদর মহকুমার মহকুমাশাসক (০১/০১/১৯২৫ - ২৩/১২/১৯৬৬) ।[৩] প্রধানশিক্ষক শ্রী শশিভূষণ তরফদার (১৯২৪ - ১৯৪২) এবং শ্রী নিত্যনিরঞ্জন কবিরাজ (১৯৪২ - ১৯৬০) এই বিদ্যালয়ের ইতিহাসে স্মরণীয় হয়ে আছেন।

কিছু কথা[সম্পাদনা]

নবদ্বীপ পৌরসভার পাশে বর্তমানে এই বিদ্যালয়ের অবস্থান। দুটি ত্রিতল ভবন ও একটি একতলা ভবন মিলিয়ে ৪০ -এর বেশি শ্রেণিকক্ষ রয়েছে। রয়েছে পদার্থবিদ্যা, রসায়ন, জীববিজ্ঞান, ভূগোল ইত্যাদি বিষয়ের পরীক্ষাগার। এন সি সি চালু রয়েছে। বর্তমানে বিদ্যালয়ে ৩৪ জন শিক্ষক-শিক্ষিকা, ৯ জন শিক্ষাকর্মী আছেন। এটি নবদ্বীপ শহর তথা নদিয়া জেলার প্রাচীন ও বিখ্যাত উচ্চ বিদ্যালয়গুলির অন্যতম। বিদ্যালয়ের ছাত্রসংখ্যা প্রায় ১৪৫০ জন।

বিদ্যালয়ের প্রাক্তনীদের পুনর্মিলনের জন্য সংস্থাটি হল - 'নবদ্বীপ বকুলতলা বিদ্যালয় প্রাক্তন ছাত্র সম্মীলনী'।

নবদ্বীপ বকুলতলা উচ্চ বিদ্যালয়ে পড়াশোনার মান অত্যন্ত উৎকৃষ্ট। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান সাড়ম্বরে পালিত হয়। ২০১৮ সালে কিছু বছর বন্ধ থাকার পর প্রকাশিত হয়েছে বার্ষিক বিদ্যালয় পত্রিকা 'বকুলকথা'। প্রতি বছর ধারাবাহিকভাবে প্রকাশিত হচ্ছে হাতে লেখা দেয়ালপত্রিকা 'বকুলকুঁড়ি'।

মাধ্যম[সম্পাদনা]

মূলত বাংলা মাধ্যমে পড়াশোনা হয়। পাশাপাশি ২০১৮ সাল থেকে ইংরেজি মাধ্যম চালু হয়েছে।

উল্লেখযোগ্য কৃতিগণ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. http://nbvpcs.org.in/motherinstitute  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  2. By Durgadas Majumdar, I.A.S. (retd.) Former State Editor। "West Bengal District Gazetteers 1978 — NADIA"। সংগ্রহের তারিখ 19/07/2020  line feed character in |শেষাংশ= at position 38 (সাহায্য); এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  3. বকুলকথা (বিদ্যালয় পত্রিকা)। ২০১৭। ৬২ পৃষ্ঠাতে। 
  4. "বিজ্ঞানে বিশ্বসেরার তালিকায় বঙ্গ দম্পতি"আনন্দবাজার পত্রিকা। ১৭/১১/২০২০। সংগ্রহের তারিখ ১৭/১১/২০২০  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ=, |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)

আরো দেখুন[সম্পাদনা]