দিদার উল আলম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
অধ্যাপক ড.

দিদার উল আলম
পঞ্চম উপাচার্য
নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
১৬ জুন ২০১৯
পূর্বসূরীএম অহিদুজ্জামান
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (1954-12-08) ৮ ডিসেম্বর ১৯৫৪ (বয়স ৬৭)
নারায়ণগঞ্জ, বাংলাদেশ
জাতীয়তাবাংলাদেশী
প্রাক্তন শিক্ষার্থীঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
ইউনিভার্সিটি অব অ্যাবারডিন, স্কটল্যান্ড
পেশাঅধ্যাপক, বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসক

দিদার উল আলম (জন্ম: ৮ ডিসেম্বর ১৯৫৪) একজন বাংলাদেশী শিক্ষাবিদ। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিভাগের অধ্যাপক এবং নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (নোবিপ্রবি) পঞ্চম উপাচার্য।[১]

প্রাথমিক জীবন ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

দিদার উল আলম ১৯৫৪ সালের ৮ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি নারায়ণগঞ্জের জয়গোবিন্দ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে ১৯৬৯ সালে মাধ্যমিক ও তোলারাম কলেজ থেকে ১৯৭১ সালে উচ্চমাধ্যমিক পাস করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিভাগ থেকে ১৯৭৫ সালে স্নাতক ও ১৯৭৬ সালে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। তিনি স্কটল্যান্ডের ইউনিভার্সিটি অব অ্যাবারডিন থেকে ১৯৯০ সালে পিএইচডি ডিগ্রি অর্জন করেন।[২]

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

দিদার উল আলম নদী গবেষণা ইনস্টিটিউটে গবেষণা কর্মকর্তা হিসেবে কিছুদিন কাজ করার পর ১৯৮৩ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মৃত্তিকা, পানি ও পরিবেশ বিভাগে প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন। তিনি ১৯৮৭ সালে সহকারী অধ্যাপক, ১৯৯৩ সালে সহযোগী অধ্যাপক, ১৯৯৭ সালে অধ্যাপক এবং ২০১১ সালে সিলেকশন গ্রেড অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি লাভ করেন।

কর্মজীবনে তিনি বিভাগীয় প্রধানসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। অধ্যাপনা ও প্রশাসনিক দায়িত্ব পালনের পাশাপাশি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের ক্রীড়া ক্ষেত্রে উন্নয়নে তার অবদান রয়েছে। তিনি জাতীয় ও আন্তর্জাতিক একাধিক ক্লাবের ক্রিকেটার ছিলেন। দায়িত্ব পালন করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের গ্রাউন্ড কমিটির সদস্য হিসেবেও।[২][৩]

দিদার উল আলম ২০১৯ সালের ১২ জুন পরবর্তী চার বছরের জন্য নোয়াখালী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হিসেবে নিয়োগ পান[৪] এবং ১৬ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে বিশ্ববিদ্যালয়টির পঞ্চম উপাচার্য হিসেবে দায়িত্বভার গ্রহণ করেন।[৫]

গবেষণা ও প্রকাশনা[সম্পাদনা]

দেশ ও বিদেশে বিভিন্ন জার্নালে তার বহু গবেষণামূলক নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। বিভিন্ন দেশে আন্তর্জাতিক সেমিনারে গবেষণা প্রবন্ধ উপস্থাপনের পাশাপাশি তিনি একাধিক বই রচনা করেছেন।[২]

সদস্যপদ[সম্পাদনা]

দিদার উল আলম বাংলাদেশ মৃত্তিকা বিজ্ঞান সমিতি, বাংলাদেশ অ্যাসোসিয়েশন ফর অ্যাডভান্সমেন্ট অব সায়েন্স, বাংলাদেশ ন্যাচারাল সায়েন্স সোসাইটি, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিবাংলা একাডেমিসহ স্বনামধন্য বিভিন্ন গবেষণাধর্মী ও পেশাজীবী সংগঠনের সদস্য।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "নোবিপ্রবির নতুন ভিসি অধ্যাপক ড. মো. দিদার উল আলম"বাংলাদেশ প্রতিদিন। ১২ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০২১ 
  2. "Curriculum Vitae of Prof. Dr. Md. Didar-ul-Alam" [অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল-আলমের জীবনবৃত্তান্ত] (PDF)নোবিপ্রবি (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০২১ 
  3. "নোবিপ্রবি'র নতুন উপাচার্য ড. দিদার-উল আলম"কালের কণ্ঠ। ১৩ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০২১ 
  4. "নোবিপ্রবির নতুন উপাচার্য অধ্যাপক দিদার-উল আলম"বাংলা ট্রিবিউন। ১২ জুন ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০২১ 
  5. "নোবিপ্রবিতে নবনিযুক্ত উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. দিদার-উল আলমের যোগদান"বার্তা বাজার। সংগ্রহের তারিখ ৫ জুন ২০২১