জয়পুরহাট গার্লস ক্যাডেট কলেজ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
জয়পুরহাট গার্লস ক্যাডেট কলেজ
জয়পুরহাট গার্লস ক্যাডেট কলেজের লোগো.png
Academy bldg, Joypurhat girls' cadet college.jpg
প্রশাসনিক ভবন
অবস্থান
জয়পুরহাট
তথ্য
প্রতিষ্ঠাকাল১৬ জুলাই ২০০৬
জয়পুরহাট
কার্যক্রম শুরু২০০৬
প্রথম অধ্যক্ষমো. আবু সাইদ বিশ্বাস
আয়তন৫৭ একর (২,৩০,০০০ বর্গমিটার)
রঙ     সবুজ
ওয়েবসাইট

জয়পুরহাট গার্লস ক্যাডেট কলেজ বাংলাদেশের জয়পুরহাট জেলায় মেয়েদের জন্য স্থাপিত একটি ক্যাডেট কলেজ। বাংলাদেশে ১২টি ক্যাডেট কলেজের মধ্যে এটি সর্বশেষ প্রতিষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে এটি পরিচালিত হয়। এটি মোট ৫৭ একর (২,৩০,০০০ মি) জায়গার ওপর প্রতিষ্ঠিত। কলেজের শিক্ষার্থী সংখ্যা মোট ৪৫০ জন।[১]

অবস্থান[সম্পাদনা]

কলেজটি বাংলাদেশের জয়পুরহাট জেলায় অবস্থিত ।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

কলেজটি ২০০৬ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়।

কলেজ ভবন সমূহ[সম্পাদনা]

  • প্রশাসনিক ভবন
  • শিক্ষা ভবন
  • কলেজ ক্যান্টিন
  • কলেজ ডাইনিং হল
  • হাউস ভবন
  • কলেজ হসপিটাল

সহপাঠ্যক্রমিক কার্যক্রম[সম্পাদনা]

সহপাঠ্যক্রমিক কার্যক্রম পরিচালনার উদ্দেশ্যে জয়পুরহাট গার্লস ক্যাডেট কলেজে বেশ কিছু ক্লাব রয়েছে যার কোন একটিতে একজন ক্যডেট অংশগ্রহণ করতে বাধ্য।

সাহিত্য ও সংস্কৃতি[সম্পাদনা]

খেলাধুলা[সম্পাদনা]

অন্যান্য[সম্পাদনা]

  • বাগান ইত্যাদি।

ভর্তির নিয়মাবলী[সম্পাদনা]

আবেদন[সম্পাদনা]

অন্যান্য ক্যাডেট কলেজগুলোর মতই বছরে মাত্র একবার এবং শুধুমাত্র সপ্তম শ্রেণীতে ছাত্রী ভর্তি করা হয়। সাধারণত নভেম্বর মাসে বাংলাদেশের প্রধাণ প্রধাণ সংবাদপত্রগুলোতে বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে নির্ধারিত ফর্মে আবেদন পত্র আহবান করা হয়।

যোগ্যতা[সম্পাদনা]

  • ভর্তির বছরের পহেলা জানুয়ারীতে বয়স এগার থেকে সাড়ে বারো বছরের মাঝে হতে হবে।
  • প্রার্থীকে ষষ্ঠ শ্রেণী উত্তীর্ণ হতে হবে। ষষ্ঠ শ্রেণীর চূড়ান্ত পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করেছে এমন।
  • জন্মসূত্রে অথবা অধিবাসন আইনে বাংলাদেশের নাগরিক হতে হবে।
  • শারীরিক যোগ্যতা সম্পন্ন।
  • উচ্চতা ৪ ফুট ৭ ইঞ্চি হতে ৫ ফুট ৩ ইঞ্চির মধ্যে হতে হবে।

নির্বাচন প্রক্রিয়া[সম্পাদনা]

ত্রুটিহীন আবেদন পত্র সম্পন্ন প্রার্থীগণকে বাংলা, ইংরেজি, অঙ্ক এবং সাধারণ জ্ঞান ও বুদ্ধিমত্তা বিষয়ক চারটি লিখিত পরীক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে হয়। উত্তীর্ণ নির্দিষ্ট সংখ্যক প্রার্থীকে মৌখিক ও ডাক্তারী পরীক্ষায় ডাকা হয়। সমস্ত পরীক্ষায় উপযুক্ত বিবেচিতদের মধ্য থেকে সাধারণত প্রথম পঞ্চাশ জন চূড়ান্ত ভাবে নির্বাচিত হয়।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Remain alert to conspiracy against edn system: Khaleda"দ্য ডেইলি স্টার (ইংরেজি ভাষায়)। ১৭ জুলাই ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]