চঙ্গভাকর রাজ্য

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
চঙ্গভাকর রাজ্য
चंगभाकर
ব্রিটিশ ভারত দেশীয় রাজ্য
১৭৯০–১৯৪৮
KoreaKart.jpg
ইম্পেরিয়াল গেজেটিয়ার অব ইন্ডিয়া থেকে প্রাপ্ত চঙ্গভাকর রাজ্যের মানচিত্র
রাজধানীভরতপুর
আয়তন 
• ১৯০১
২,৩৪৭ বর্গকিলোমিটার (৯০৬ বর্গমাইল)
জনসংখ্যা 
• ১৯০১
১৯,৫৪৮
ইতিহাস 
• কোরিয়া রাজ্যের জমিদারি হিসাবে প্রতিষ্ঠালাভ
১৭৯০
১৯৪৮
উত্তরসূরী
ভারত
বর্তমানে যার অংশকোরিয়া জেলা, ছত্তিশগড়
কলম্বিয়া-লিপিনকট গেজেটিয়ার. (নিউ ইয়র্ক: কলম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস, ১৯৫২) পৃ. ৩৬৯

চঙ্গভাকর রাজ্য, (যা চাং ভাকর নামেও পরিচিত) ছিলো ব্রিটিশ শাসিত ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্য এজেন্সিতে অবস্থিত একটি দেশীয় রাজ্য, যা বর্তমানে ভারতের অন্তর্গত৷ [১] ১১৭ টি গ্রাম সংবলিত এই রাজ্য ২,৩৩০ বর্গকিলোমিটার (৮৯৯ মা) অঞ্চল জুড়ে বিস্তৃত ছিলো, ১৯৪১ খ্রিস্টাব্দে জনগণনা অনুসারে এটির জনসংখ্যা ছিলো ২১,২৬৬ জন৷ দেশীয় রাজ্যটির রাজধানী ও প্রশাসনিক দপ্তর ছিলো ভরতপুরে৷

ইতিহাস[সম্পাদনা]

১৭৯০ খ্রিস্টাব্দে পূর্বতন কোরিয়া দেশীয় রাজ্য থেকে পৃথক হয় নতুন চঙ্গভাকর জমিদারি প্রতিষ্ঠালাভ পায়। ঊনবিংশ শতাব্দীর শুরুর দিকে ইঙ্গ-মারাঠা যুদ্ধের পর চঙ্গভাকর ব্রিটিশ সাম্রাজ্যের অন্তর্গত একটি করদ রাজ্যে পরিণত হয়৷ ১৮১৯ খ্রিস্টাব্দে চঙ্গভাকরের জমিদারি রাজ্যে উন্নীত হয় ও ১৮২১ খ্রিস্টাব্দে এটিকে প্রশাসনিকভাবে ছোটনাগপুর সামন্ত রাজ্যগুলির অন্তর্ভুক্ত করা হয়৷ ১৯০৫ খ্রিস্টাব্দের অক্টোবর মাসে এটিকে মধ্য প্রদেশের ছত্তিশগড়ে বিভাগে স্থানান্তরিত করা হলে তা ছত্তিশগড় বিভাগীয় কমিশনারের প্রশাসনিক হস্তোগত হয়৷ ১৯৪৮ খ্রিস্টাব্দের ১লা জানুয়ারি তারিখে এটি ভারতীয় অধিরাজ্যে যোগদানের সপক্ষে স্বাক্ষর করলে মধ্য প্রদেশ ও বেরার প্রদেশের সরগুজা জেলার অন্তর্ভুক্ত করা হয়৷ বর্তমানে এটি ছত্তিশগড় রাজ্যের সরগুজা বিভাগের কোরিয়া জেলার একটি তহশিল ও মহকুমা৷[২]

শাসকবর্গ[সম্পাদনা]

রাজ্যটির শাসকগণ ছিলেন বলেন্দ্র রাজবংশের রাজপুত রাজা। প্রাথমিকভাবে তারা রাজা উপাধিতে ভূষিত হলেও ১৮৬৫ খ্রিস্টাব্দ-পরবর্তী সময়ে তারা "ভাইয়া" উপাধি গ্রহণ এবং তার ব্যবহার করতেন।

  • ১৮১৯ - ১৮.. মানসিংহ দেও
  • ১৮৪৮ - ১৮৬৫ জনজিৎ সিংহদেও
  • ১ ডিসেম্বর ১৮৬৫ - ১৮৯৭ বলভদ্র সিংহদেও
  • ১৮৯৭ - ১৯৩২ মহাবীর সিংহদেও
  • ১৯৩২ - ১৯৪৭ কৃষ্ণপ্রতাপ সিংহদেও
  • ১৯৩২ - ১৯৪৬ ... -রাজ প্রতিনিধি

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]