গ্রাফাইট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
গ্রাফাইট
Graphite specimen
সাধারণ তথ্য
শ্রেণী Native mineral
রাসায়নিক সূত্র C
সনাক্তকরণ
বর্ণ Steel black, to gray
স্ফটিক রীতি Tabular, six-sided foliated masses, granular to compacted masses
স্ফটিক পদ্ধতি Hexagonal (6/m 2/m 2/m)
বিদারণ Perfect in one direction
ফাটল Flaky, otherwise rough when not on cleavage
কাঠিন্য মাত্রা 1–2
ঔজ্জ্বল্য metallic, earthy
ডোরা বা বর্ণচ্ছটা Black
ঘনত্ব 2.09–2.23 g/cm3
প্রতিসরাঙ্ক Opaque
Pleochroism None
দ্রাব্যতা Molten Ni

গ্রাফাইট হচ্ছে অঙ্গার বা কার্বনের একটি রূপ[১] এর স্ফটিক ষট-কৌনিক আকৃতির। এটা সাধারণত স্তরীভূত, আঁশযুক্ত, দানাদার এবং নিবিড় পিণ্ড আকারে বা মাটির পিণ্ড আকারে পাওয়া যায়। গ্রাফাইটের কঠিনতা ১.০-২.০ এবং আপেক্ষিক গুরুত্ব ১.৯-২.৩[২]

বর্ণ[সম্পাদনা]

এটি লোহার মতো কালো অথবা গাঢ় ধূসর বর্ণের একটি পদার্থ

প্রাপ্তিস্থান[সম্পাদনা]

গ্রানাইট, নাইস, মাইকা সিস্ট এবং স্ফটিকীয় চুনাপাথরের ফাটলে গ্রাফাইট বিরাট পিণ্ড আকারে অথবা আঁশযুক্ত স্তর হিসেবে বিক্ষিপ্ত অবস্থায় পাওয়া যায়।

ব্যবহার[সম্পাদনা]

উচ্চ তাপরোধক চুল্লির আস্তর, ঢালাই কাজ, রঙ, পেন্সিল, জ্বালানী তেল এবং ঝালাই দণ্ড তৈরি করতে গ্রাফাইট ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়।

ব্যাখ্যা[সম্পাদনা]

Graphite এর গঠনে কার্বন এর ৩ যোজনী ব্যবহত হয়েছে। প্রতিটি কার্বন পরমাণু অপর ৩ টি কার্বন পরমানুর সাথে যোজ্যতা ইলেকট্রন শেয়ার করে একক সমযোজী বন্ধন এ যুক্ত হয়। এভাবে ৬ টি কার্বন মিলে একটি সুষম ষড়ভুজের সৃষ্টি করে। ফলে প্রতিটি স্তরে একটি ষড়ভুজীয় জালের সৃষ্টি হয়। এই স্তর সমূহের মধ্যে কোনো রাসায়নিক বন্ধন না থাকায় এরা একে অপরের উপর দিয়ে চলতে পারে। এজন্য এরা সাধারন তাপমাত্রায় নরম ও পিচ্ছিল। স্তর সমূহের মধ্যে এক ধরণের দুর্বল vander wall শক্তি বিদ্যমান থাকে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]