গে অ্যান্থেম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান

একটি গে অ্যান্থেম (ইংরেজি: Gay anthem) হল এমন একটি জনপ্রিয় গান যেটি সমকামী সমাজে (বিশেষত সমকামী পুরুষদের মধ্যে) বিশেষ জনপ্রিয় অথবা যে গানটিকে সমকামী সমাজের সঙ্গে চিহ্নিত করা হয়। যদিও এই ধরনের কিছু কিছু গান এলজিবিটি সমাজের অবশিষ্ট সংশের অ্যান্থেমেও পরিণত হয়েছে। পিঙ্কের "রেইজ ইয়োর গ্লাস" প্রভৃতি বহু টপ-চার্টিং জনপ্রিয় গান "পুরুষ-সমকামী অধিকারের জন্য দ্ব্যর্থতাহীন সমর্থনের আশ্রয়স্থল" হিসেবে চিহ্নিত হয়েছে।[১] "গে অ্যান্থেম" নামে চিহ্নিত সব গান সে উদ্দেশ্যে রচিত হয়নি। তবে পুরুষ-সমকামী সমাজে সেই সব গান বিশেষ জনপ্রিয়তা অর্জন করলে, সেই গানগুলি জনপ্রিয় সংগীতের একটি উপবর্গের অন্তর্ভুক্ত হয়।

গে অ্যান্থেমের কথাগুলির সাধারণ বৈশিষ্ট্যগুলি হল দৃঢ়তা, মানসিক শক্তি, সমর্থন, গৌরব ও ঐক্য।[২] ২০০২ সালে প্রকাশিত ক্যুয়ার বইয়ের সম্পাদকেরা দশটি উপাদানকে চিহ্নিত করেছিলেন। তাঁদের দাবি অনুসারে, এই দশটি উপাদানই হল অনেক গে অ্যান্থেমের বিষয়বস্তু: "উচ্চকণ্ঠ ডিভা; প্রেমের বাধা জয়ের বিষয়; “তুমি একা নও;” নিজের চিন্তাভাবনা (দলের প্রতি) ছুঁড়ে দেওয়া; কষ্ট করে বিজিত আত্মসম্মান; নির্লজ্জ যৌনতা; সমর্থন অনুসন্ধান; বিশ্ব-দুঃখে আলো দেখানোর গান; প্রেমের দ্বারা সব কিছু জয়ের বিষয়; এবং তুমি কী তার জন্য কোনও ক্ষমাপ্রার্থনা না করা।"[২]

সংগীত পত্রিকা পপুলার মিউজিক অনুসারে, যে গানটি গে অ্যান্থেম হিসেবে সর্বাধিক পরিচিত, সেটি হল গ্লোরিয়া গেনোরের "আই উইল সারভাইভ"।[৩] এই গানটিকে "স্টোনওয়াল-উত্তর ও এইডস যুগের পুরুষ সমকামী সংস্কৃতির একটি ধ্রুপদি প্রতীক এবং সম্ভবত ডিস্কোর শ্রেষ্ঠ অ্যান্থেম" মনে করা হয়। যুক্তরাজ্যের এলজিবিটি অধিকার দাতব্য সংস্থা স্টোনওয়াল ক্রিস্টিনা অ্যাগুইলেরার "বিউটিফুল" গানটিকে এলজিবিটি সমাজের ক্ষেত্রে ২০০০-এর দশকের সবচেয়ে শক্তিশালী গান হিসেবে উল্লেখ করে।[৪] এলটন জন অনুমান করেছিলেন যে, এই গানটি শ্রেষ্ঠ গে অ্যান্থেম হিসেবে "আই উইল সারভাইভ" গানটিকে স্থানচ্যুত করতে পারে।[২] ডায়ানা রসের "আই’ম কামিং আউট", এবিবিএ-এর "ড্যান্সিং কুইন", লেডি গাগার "বর্ন দিস ওয়ে" ও ভিলেজ পিপলের "ওয়াই.এম.সি.এ গানগুলিকেও গে অ্যান্থেম মনে করা হয়। যদিও এই গানগুলি রচয়িতারা সেই উদ্দেশ্যে রচনা করেননি।[২][৫]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Hawgood, Alex (নভেম্বর ৫, ২০১০)। "For Gays, New Songs of Survival"New York Times। সংগৃহীত ২১ এপ্রিল ২০১৪ 
  2. Casserly, Meghan (ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১১)। "Lady Gaga's Born This Way: Gay Anthems And Girl Power"Forbes। সংগৃহীত ১৩ আগস্ট ২০১৪ 
  3. Hubbs, Nadine (মে ২০০৭)। "‘I Will Survive’: musical mappings of queer social space in a disco anthem"। Popular Music 26 (2): 231–244। ডিওআই:10.1017/s0261143007001250 
  4. "Media: Current Releases"। stonewall.org.uk। সংগৃহীত ১৯ মে ২০১৩ 
  5. "Y.M.C.A.byThe Village People"songfacts.com। সংগৃহীত ২১ এপ্রিল ২০১৪