খলিফা হাফতার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
খলিফা হাফতার
خليفة حفتر
Haftar in 2023
লিবীয় সেনাবাহিনীর সুপ্রিম কমান্ডার
দায়িত্বাধীন
অধিকৃত কার্যালয়
২ মার্চ, ২০১৫
রাষ্ট্রপতিAguila Saleh Issa (acting)
Mohamed al-Menfi
প্রধানমন্ত্রীAbdullah al-Thani
Abdul Hamid Dbeibeh[ক]
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্মখলিফা বিলকাসিম হাফতার
(1943-11-07) ৭ নভেম্বর ১৯৪৩ (বয়স ৮০)[১]
নাগরিকত্বলিবিয়া
মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র
সন্তান6, including Saddam
পুরস্কারRed diploma (high honours) – M.V. Frunze Military Academy
স্বাক্ষর
সামরিক পরিষেবা
আনুগত্য
শাখা লিবীয় সেনাবাহিনী
কাজের মেয়াদ১৯৬৬–১৯৮৭; ২০১১–বর্তমান
পদ ফিল্ড মার্শাল[২]
কমান্ডলিবীয় সেনাবাহিনী
যুদ্ধ
  • চাদ-লিবীয় যুদ্ধ
  • লিবিয়ার ১ম গৃহযুদ্ধ
  • আজদাবিয়ার যুদ্ধ
  • ব্রেগার তৃতীয় যুদ্ধ
  • সভার যুদ্ধ
  • লিবিয়ার দ্বিতীয় গৃহযুদ্ধ
  • বেনগাজির যুদ্ধ
  • বেনিনা বিমানবন্দরের যুদ্ধ
  • পশ্চিম লিবিয়া অভিযান
  • সির্তের যুদ্ধ (২০২০)
  • ২০২১ উত্তর চাদ আক্রমণ
  • ২০২৩ সুদান সংঘাত

খলিফা বিল-কাসিম হাফতার ( আরবি: خليفة بلقاسم حفتر, প্রতিবর্ণীকৃত: Ḵalīfa Bilqāsim Ḥaftar; জন্ম : ৭ নভেম্বর, ১৯৪৩ ) হলেন একজন লিবীয় রাজনীতিবিদ, সামরিক কর্মকর্তা ও তাব্রুক-ভিত্তিক লিবিয়ার জাতীয় সেনাবাহিনীর (এলএনএ) কমান্ডার। [৩] ২ মার্চ, ২০১৫ সালে তিনি নির্বাচিত আইনসভা লিবিয়ান হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভে'র অনুগত সশস্ত্র বাহিনীর কমান্ডার নিযুক্ত হন। [৪]

তিনি লিবিয়ার তারহুনা শহরে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি মুয়াম্মার গাদ্দাফির অধীনে লিবিয়ার সেনাবাহিনীতে দায়িত্ব পালন করেন এবং ১৯৬৯ খ্রিস্টাব্দে গাদ্দাফিকে ক্ষমতায় আনার অভ্যুত্থানে অংশ নেন। ১৯৭৩ সালের ইয়োম কিপ্পুর যুদ্ধে তিনি ইসরায়েলের বিরুদ্ধে লিবীয় বাহিনীতে দলে অংশ নেন এবং [৫] ১৯৮৭ সালে চাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধের সময় তিনি একজন যুদ্ধবন্দী হন, যখন এটি গাদ্দাফির জন্য একটি বড় বিব্রতকর ঘটনা ছিল। এটিই চাদে গাদ্দাফির উচ্চাকাঙ্ক্ষার জন্য একটি বড় আঘাতের প্রতিনিধিত্ব করে। বন্দী অবস্থায় তিনি তার সহযোগী অফিসারদের সাথে গাদ্দাফিকে উৎখাতের আশায় একটি দল গঠন করেন। তিনি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সাথে একটি চুক্তিতে ১৯৯০ সালের দিকে মুক্তি পান এবং ভার্জিনিয়ার ল্যাংলিতে প্রায় দুই দশক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করে মার্কিন নাগরিকত্ব লাভ করেন।[৬] ১৯৯৩ সালে যুক্তরাষ্ট্রে বসবাস করার সময় তিনি লিবিয়ার বিরুদ্ধে অপরাধের দোষী সাব্যস্ত হয়ে মৃত্যুদণ্ডে দণ্ডিত হন।

হাফতার প্রথম লিবিয়ার গৃহযুদ্ধের সময় ২০১১ সালে গাদ্দাফিকে উৎখাতকারী বাহিনীতে একটি সিনিয়র পদে ছিলেন। ২০১৪ সালে তিনি লিবীয় সেনাবাহিনীর কমান্ডার ছিলেন, যখন জেনারেল ন্যাশনাল কংগ্রেস (GNC) তার অফিসের মেয়াদ অনুসারে ক্ষমতা ছেড়ে দিতে অস্বীকার করেছিল। হাফতার জিএনসি ও তার ইসলামী মিত্রদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করেন। তার প্রচারণার ফলেই জিএনসি নির্বাচনের অনুমতি দেয়; কিন্তু তারপর লিবিয়ার দ্বিতীয় গৃহযুদ্ধ শুরু হয়। ২০১৭ সালে দের্না সিটি কাউন্সিলের ভাইস-প্রেসিডেন্ট রামযি আল-শায়েরি ও আইনজীবী রায়ান গুডম্যান, অ্যালেক্স হোয়াইটিং হাফতারকে দেরনা পুনরুদ্ধারের সময় যুদ্ধ বন্দীদের হত্যার আদেশ দেওয়ার জন্য যুদ্ধাপরাধের জন্য অভিযুক্ত করেছিলেন।[৭] [৮]

তাকে লিবিয়ার সবচে' শক্তিশালী যোদ্ধা হিসাবে বর্ণনা করা হয়। তিনি লিবীয় সংঘাতে প্রায় প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ দলের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন এবং তিনি অপ্রতিদ্বন্দ্বী সামরিক অভিজ্ঞতার জন্য খ্যাত। [৯] [১০]

যদিও হাফতার একজন ইসলামবিরোধী হিসেবে [১১][১২] [১৩] [১৪] পরিচিত হলেও তার মিত্রদের মধ্যে সালাফি মাদখালি মিলিশিয়া রয়েছে।

২০২১ সালের নভেম্বর মাসে খলিফা হাফতার ২০০১ সালের ডিসেম্বরের রাষ্ট্রপতি নির্বাচন স্থগিত হওয়ার আগে তার প্রার্থীতা ঘোষণা করেছিলেন। [১৫]

স্থানীয় আরবি ছাড়াও হাফতার ইংরেজি, ইতালীয়রুশ ভাষায় কথা বলতে পারে এবং ফরাসি ভাষাতেও দক্ষ। [১৬] তিনি দ্বৈত লিবীয়-মার্কিন নাগরিক। [১৭] [৭] পরবর্তী লিবিয়ার নির্বাচনের আগে তিনি তার মার্কিন নাগরিকত্ব ত্যাগ করবেন বলে আশা করা হয়। [১৮]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Post disputed with Fathi Bashagha
  1. Cremonesi, Lorenzo (২০১৭-০৪-০১)। "General Haftar: "Italy Has Taken the Wrong Side in Libya""Corriere della Sera (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৬-২৭ 
  2. "Tobruk's HoR promotes Khalifa Haftar to a Marshal following capture of oil ports"Libyan Express। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৬। ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৬ 
  3. Daragahi, Borzou (২০২০-০১-২২)। "How this Libyan warlord's quest for power is quashing his country's hopes for peace"The Independent। সংগ্রহের তারিখ ২০২০-০৪-২৮ 
  4. Al-Warfalli, Ayman (২ মার্চ ২০১৫)। "Libya's Haftar appointed army chief for recognized government"Reuters। ৬ অক্টোবর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১২ জানুয়ারি ২০২০ 
  5. Borzou Daragahi (২৩ মে ২০১৪)। "Khalifa Haftar, a hard-headed Libyan warrior"Financial Times। ৭ আগস্ট ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ আগস্ট ২০১৪ 
  6. Chorin, Ethan (২৭ মে ২০১৪)। "The New Danger in Benghazi"New York Times। ২৮ মে ২০১৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মে ২০১৪ 
  7. Stephanie Kirchgaessner, Ruth Michaelson (২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৭)। "General accused of war crimes courted by west in Libya"The Guardian। ২৩ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০১৮  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "guardian-20170925" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  8. al-Shaeri, Ramzi (১৩ নভেম্বর ২০১৮)। "Libya's Haftar Brutally Strangled My City. He Should Not be Legitimized by the West"Newsweek। ১২ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ নভেম্বর ২০১৮ 
  9. Anderson, Jon Lee (২৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৫)। "The Unravelling: Libya's New Strongman"The New Yorker। ১৫ মার্চ ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মার্চ ২০১৫ 
  10. "Fighting Islamic State in Libya"The Economist। ১৪ মে ২০১৬। ১৩ মে ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৪ মে ২০১৬ 
  11. Sanchez, Raf (২০১৮-০৪-১২)। "Libyan strongman Khalifa Haftar 'in a coma in Paris hospital'"The Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0307-1235। ১১ আগস্ট ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-২৯ 
  12. Spencer, Richard; Trew, Bel (৯ মে ২০১৮)। "Strongman Khalifa Haftar moves in on Libya jihadists"The Times (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0140-0460। ২৯ মার্চ ২০২১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-২৯ 
  13. "Libya names anti-Islamist General Haftar as army chief"BBC News (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৫-০৩-০২। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-২৯ 
  14. "Anti-Islamist general named Libya army chief"The Guardian। Agence France-Presse। ২ মার্চ ২০১৫। ২ জানুয়ারি ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৯ মার্চ ২০২১ 
  15. "Saif Al Islam Qaddafi reinstated as Libyan presidential candidate"The National। ২০২১-১২-০২। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-১২-০২ 
  16. Stavridis, James (১৩ এপ্রিল ২০১৯)। "Libya's New Warlord Needs to Make Peace"Bloomberg.com। ১৪ এপ্রিল ২০১৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ এপ্রিল ২০১৯ 
  17. Hincks, Joseph (এপ্রিল ৯, ২০১৯)। Time https://time.com/5566575/libya-tripoli-khalifa-haftar-gadddafi/। সংগ্রহের তারিখ ২০২১-০৩-২৯  |শিরোনাম= অনুপস্থিত বা খালি (সাহায্য)
  18. "Will Haftar's Heir Be an Ally of the Russians or the Americans?"The Washington Institute (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০২৩-০২-১০