কামরাঙ্গা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
Averrhoa carambola
Averrhoa carambola ARS k5735-7.jpg
কামরাঙ্গা গাছের বৈজ্ঞানিক বর্ণনা
বৈজ্ঞানিক শ্রেণীবিন্যাস
জগৎ/রাজ্য: Plantae
(শ্রেণীবিহীন): Angiosperms
(শ্রেণীবিহীন): Eudicots
(শ্রেণীবিহীন): Rosids
বর্গ: Oxalidales
পরিবার: Oxalidaceae
গণ: Averrhoa
প্রজাতি: A. carambola
দ্বিপদী নাম
Averrhoa carambola
L.

কামরাঙ্গা একটি চিরসবুজ ছোট মাঝারি আকৃতির গাছের টকমিষ্টি ফল। গাছ ১৫-২৫ ফুট লম্বা হয়। ঘন ডাল পালা আচ্ছাদিত, পাতা যৌগিক, ১-৩ ইঞ্চি লম্বা। বাকল মসৃন কালো রংএর। ফল ৩-৬ ইঞ্চি ব্যাসের এবং ভাজযুক্ত। ফল কাঁচা অবস্থায় সবুজ এবং পাকলে হলুদ। কামরাঙ্গা টক স্বাদযুক্ত বা টকমিষ্টি হতে পারে। কোন কোন গাছে একাধিকবার বা সারাবছরই ফল পাওয়া যায়। এটি ভিটামিন এ ও সি এর ভাল উৎস। সেপ্টেম্বর থেকে জানুয়ারিতে ফল পাওয়া যায়।

কামরাঙ্গা বিক্রেতা, সদরঘাট, ঢাকা, ২০০৯

বৈজ্ঞানিক নাম: Averrhoa carambola Linn. পরিবার: Oxalidacea ইংরেজি নাম: Chinese gooseberry, Carambola

ব্যবহার[সম্পাদনা]

কামরাঙ্গা
প্রতি ১০০ গ্রাম (৩.৫ আউন্স) পুষ্টিগত মান
শক্তি ১২৮ কিজু (৩১ kcal)
6.73 g
চিনি 3.98 g
খাদ্যে ফাইবার 2.8 g
.33 g
1.04 g
ভিটামিনসমূহ
(8%)
.39 mg
ফোলেট (বি)
(3%)
12 μg
ভিটামিন সি
(41%)
34.4 mg
চিহ্ন ধাতুসমুহ
ফসফরাস
(2%)
12 mg
পটাশিয়াম
(3%)
133 mg
দস্তা
(1%)
.12 mg
Percentages are roughly approximated using US recommendations for adults.
Source: USDA Nutrient Database

পুরো ফলটাই খাওয়া যায়, পাতলা ত্বকসহ। ফল কচকচে ও রসালো। ফলে আঁশ নেই এবং এর প্রকৃতি অনেকটা আঙুরের মত। কামরাঙ্গা পাকার পর পরই খেতে সবচেয়ে ভাল; যখন হলদেটে রঙ ধারণ করে। এর বাদামী কিনারাগুলো কিছুটা শক্ত এবং কষ ভাব যুক্ত। ফল পাকার ঠিক আগেই পাড়া হয় এবং ঘরে রাখলে হলুদ রঙ ধরে। যদিও এতে মিষ্টতা বাড়েনা। বেশি পেকে গেলে এর স্বাদ নষ্ট হয়ে যায়।[১][২] পাকা কামরাঙ্গা অনেক সময় রান্না করেও খাওয়া হয়। দক্ষিণ এশিয়াতে আপেল ও চিনি দিয়ে রান্না করার চল আছে। চীনে মাছ দিয়ে রান্না করা হয়। অস্ট্রেলিয়াতে সবজি হিসেবে রান্না করা হয়, আচার বানানো হয়। জ্যামাইকাতে কামরাঙ্গা শুকিয়ে খাওয়ার চল রয়েছে। [৩] হাওয়াই ও ভারতে কামরাঙ্গার রস দিয়ে শরবত বানানো হয়। [৩]

ভেষজ গুণাগুন[সম্পাদনা]

এ গাছের ফল থেকে বাকল সবই ঔষধিগুণ সম্পন্ন।

  1. এর এলজিক এসিড খাদ্য নালি (অন্ত্রের) ক্যান্সার হতে বাধা দেয়[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  2. পাতা ও কচি ফলের রসে ট্যানিন রয়েছে যে কারণে এর রস রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  3. এর মূল বিষনাশক হিসেবে ব্যবহার হয়[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  4. শুষ্ক ফল জ্বরে ব্যবহার হয়[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]
  5. শীতল ও টক তাই ঘাম, কফ ও বাতনাশক হিসেবে কাজ করে[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

ছবি গ্যালারি[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Jonathan H. Crane (১৯৯৪)। The Carambola (Star Fruit)। Fact Sheet HS-12। Florida Cooperative Extension Service, University of Florida। 
  2. "How to Eat Star Fruit"। Buzzle। সংগৃহীত আগস্ট ৫, ২০১২ 
  3. ৩.০ ৩.১ Julia F. Morton (১৯৮৭)। "Carambola"। in Julia F. Morton। Fruits of warm climates। পৃ: ১২৫–১২৮।