কাকরাপাড়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কাকরাপাড়া পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র
PHWR under Construction at Kakrapar Gujarat India.jpg
দেশ ভারত
অবস্থানসুরাট জেলা, গুজরাত, ভারত
স্থানাঙ্ক২১°১৪′১৯″ উত্তর ৭৩°২১′০০″ পূর্ব / ২১.২৩৮৬১° উত্তর ৭৩.৩৫০০০° পূর্ব / 21.23861; 73.35000স্থানাঙ্ক: ২১°১৪′১৯″ উত্তর ৭৩°২১′০০″ পূর্ব / ২১.২৩৮৬১° উত্তর ৭৩.৩৫০০০° পূর্ব / 21.23861; 73.35000
অবস্থাসক্রিয়
নির্মাণ শুরু১৯৮৪
কমিশনের তারিখ৬ মে ১৯৯৩
পরিচালকভারতীয় পারমাণবিক শক্তি নিগম
পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র
চুল্লির ধরনপিএইচডব্লিউআর
বিদ্যুৎ উত্পাদন
কর্মক্ষম একক২ × ২২০ মেগাওয়াট
১ × ৭০০ মেগাওয়াট
Units under const.১ × ৭০০ মেগাওয়াট
নামফলক ধারণক্ষমতা১১৪০ MW
Capacity factor৯৬.৫%
Annual net output৩.৭২ টিডব্লিউএইচ
ওয়েবসাইট
https://www.npcil.nic.in/content/321_1_OperatingPerformance.aspx

কাকরাপাড়া আণবিক শক্তি স্টেশন হল ভারতের পারমাণবিক শক্তি স্টেশন, যা গুজরাতের বয়ারা শহরের নিকটে অবস্থিত। এটি দুটি ২২০ মেগাওয়াটের চাপযুক্ত জল চুল্লী সমন্বিত ভারী জলের মডারেটর (পিএইচডাব্লুআর) নিয়ে গঠিত। কেএপিএস-১ সমালোচনামূলকভাবে চালু হয়   সেপ্টেম্বর ১৯৯২ সালে এবং বাণিজ্যিক বিদ্যুত উৎপাদন শুরু হয় কয়েক মাস পরে ৬ মে ১৯৯৩ সালে। কেএপিএস -২ সমালোচনামূলকভাবে চালু হয় ৮  জানুয়ারী ১৯৯৫ সালে এবং বাণিজ্যিক উৎপাদন শুরু করে ১ সেপ্টেম্বর ১৯৯৫ সালে। ২০০৩ সালের জানুয়ারিতে ক্যান্ডু ওনার্স গ্রুপ (সিওজি) কেএপএসকে সেরা কার্য সম্পাদনাকারী চাপযুক্ত ভারী জলের চুল্লী হিসাবে ঘোষণা করে। [১]

পর্যায়[সম্পাদনা]

জুলাই ২০১৫ সালে কুল্যান্ট চ্যানেল ফাঁস হওয়ার পরে কেএপিএস-২ বন্ধ করা হয়েছিল এবং অনুরূপ ঘটনা মার্চ ২০১৬ সালে কেএপিএস-১ বন্ধ করতে বাধ্য করেছিল। কুল্যান্ট চ্যানেল এবং ফিডার টিউব প্রতিস্থাপনের পরে, কেএপিএস -২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালে ক্রিটিক্যালিটি অর্জন করেছে। কেএপিএস -১ এর রক্ষণাবেক্ষণের কাজটি মার্চ ২০১৯ এর মধ্যে শেষ হওয়ার কথা ছিল।

নির্মাণ ব্যয়টি মূলত অনুমান করা হয়েছিল ₹৩৮২.৫২ কোটি টাকা; কেন্দ্রটি শেষ পর্যন্ত ১,৩৩৫ কোটি টাকা ব্যয়ে সমাপ্ত হয়েছিল। ৩ এবং ৪ ইউনিট নির্মাণের কাজ শুরু হয় নভেম্বর ২০১০ সালে। [২]

ঘটনা[সম্পাদনা]

  • ১৯৯৮ সালে কেএপিএস -১ এর শীতল লুপে ফুটো হওয়ার কারণে ৬৬ দিনের জন্য বন্ধ ছিল।
  • ১০ মার্চ ২০০৪ সালে (সেই সময়ে) রক্ষণাবেক্ষণের কাজে জন্য নিয়ন্ত্রণ রডগুলি সরবরাহের সময় অপূরণীয়ভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছিল। প্রতিক্রিয়া হিসাবে, ব্যবস্থায় বিষগুলি যুক্ত করা হয়েছিল এবং চুল্লিটি বন্ধ ছিল।
  • ২২ অগস্ট ২০০৬ সালে বিদ্যুত কেন্দ্রের আশেপাশের অঞ্চলে গ্রামবাসীদের প্রবেশ করানো হয়েছিল বলে জানা যায়। কিন্তু পুলিশের তল্লাশিতে কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি।
  • ১১ ই মার্চ, ২০১৬ সালে ভারী কুল্যান্ট জলের ফুটো হওয়ার কারণে কেএপিএস -১ স্বয়ংক্রিয়ভাবে বন্ধ হয়ে যায়, উভয় চুল্লিই বন্ধ করা হয়। [৩][৪] ফুটোটি দশ দিন পরে বন্ধ করা হয়। [৫] কুল্যান্ট চ্যানেলে ক্ষয় এবং ফাটল পাওয়া গেছে এবং কেএপিএস-২ এ অনুরূপ ক্ষয়ের দাগ পাওয়া গেছে, যা কুল্যান্ট চ্যানেল ফুটো হওয়ার পরে জুলাই ২০১৫ সাল থেকে বন্ধ করা হয়। [৬][৭] কেএপএস -২ এর শীতল চ্যানেল এবং ফিডার টিউবগুলির প্রতিস্থাপনের পরে ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালের ক্রিটিক্যালিটি অর্জন করেছে। কেএপিএস -১ এ একই রকম প্রতিস্থাপনটি ২০১৯ সালের মার্চ মাসের মধ্যে শেষ হওয়ার কথা ছিল। [৮]

ইউনিট[সম্পাদনা]

একক আদর্শ গ্রস মেগাওয়াট নির্মাণ শুরু অপারেশন শুরু নোট
প্রথম পর্যায়
কাকরপাড় ১ পিএইচডব্লিউআর ২২০ ১ ডিসেম্বর ১৯৮৪ ৬ মে ১৯৯৩ [৯]
কাকরপাড় ২ পিএইচডব্লিউআর ২২০ ১ এপ্রিল ১৯৮৫ ১ সেপ্টেম্বর ১৯৯৫ [১০]
দ্বিতীয় পর্যায়
কাকরাপাড় ৩ আইপিএইচডব্লিউআর-৭০০ ৭০০ ২২ নভেম্বর ২০১০ ২৩ জুলাই ২০২০ [১১]
কাকরপাড় ৪ আইপিএইচডব্লিউআর-৭০০ ৭০০ ২২ নভেম্বর ২০১০ ২০২১ [১২] [২]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Kurian, Vinson (২৬ মার্চ ২০০৩)। "Indian N-reactors set new global benchmark"The Hindu Business Line। সংগ্রহের তারিখ ১৬ ফেব্রুয়ারি ২০১৭ 
  2. "First concrete for Kakrapar 3 and 4"World Nuclear NewsWorld Nuclear Association (WNA)। ২২ নভেম্বর ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-২২ 
  3. Harikumar, S. (২০১৬-০৩-১১)। "Shutdown of Unit-1 of KAPS Nuclear Power Plant following an incident leakage from Coolant System" (PDF)aerb.gov.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৭-০২-১৬ 
  4. "More than 100 hours later, Kakrapar nuclear leak not fixed"। ১৬ মার্চ ২০১৬। সংগ্রহের তারিখ ১৮ এপ্রিল ২০১৬ – Rediff.com-এর মাধ্যমে। 
  5. "Kakrapar Nuclear Reactors to Get New Coolant Channels"News18। Indo-Asian News Service। ১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭। 
  6. Fernandes, Snehal (১৯ মার্চ ২০১৭)। "A year after KAPS-1 heavy water leak, corrosion spots found: AERB"Hindustan Times (ইংরেজি ভাষায়)। 
  7. Balan, Premal (১১ মার্চ ২০১৭)। "Ahmedabad: No power from Kakrapar plant for at least a year"The Times of India 
  8. Ray, Kalyan (১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৮)। "Kakrapar nuclear plant gets a new lease of life"Deccan Herald (ইংরেজি ভাষায়)। 
  9. "Nuclear Power Reactor Details - KAKRAPAR-1"Power Reactor Information SystemInternational Atomic Energy Agency (IAEA)। ২৩ নভে ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-২৩ 
  10. "Nuclear Power Reactor Details - KAKRAPAR-2"PRIS। (IAEA)। ২৩ নভে ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-২৩ 
  11. "Kakrapar Plant 3" 
  12. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; loksabhaph.nic.in নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি

বাহ্যিক লিঙ্কগুলি[সম্পাদনা]