মাদ্রাজ পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মাদ্রাজ পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র
Kalpakkam 04710083 (8386517544).jpg
দেশভারত
স্থানাঙ্ক১২°৩৩′২৭″ উত্তর ৮০°১০′৩০″ পূর্ব / ১২.৫৫৭৫০° উত্তর ৮০.১৭৫০০° পূর্ব / 12.55750; 80.17500স্থানাঙ্ক: ১২°৩৩′২৭″ উত্তর ৮০°১০′৩০″ পূর্ব / ১২.৫৫৭৫০° উত্তর ৮০.১৭৫০০° পূর্ব / 12.55750; 80.17500
নির্মাণ শুরু১৯৭০
কমিশনের তারিখ২৪ জানুয়ারী ১৯৮৪
পরিচালকনিউক্লিয়ার পাওয়ার কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া লিমিটেড
পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র
চুল্লির ধরনএফ বিআর
বিদ্যুৎ উত্পাদন
কর্মক্ষম একক২ × ২৩৫ মেগাওয়াট
Units under const.১ × ৫০০ মেগাওয়াট
Units planned২ × ৬০০ মেগাওয়াট
নামফলক ধারণক্ষমতা৪৭০ মেগাওয়াট
Capacity factor৫৬.১%
Annual net output১,৩১১ গিগাওয়াট
ওয়েবসাইট
পাওয়ার কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া লিমিটেড

মাদ্রাজ পরমাণু বিদ্যুৎ কেন্দ্র হ'ল ভারতের চেন্নাই শহর প্রায় ৮০ কিলোমিটার (৫০ মাইল) দক্ষিণে কালাপক্কামে অবস্থিত একটি বিস্তৃত পারমাণবিক বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র। এখানে জ্বালানী পুনরায় প্রসেসিং এবং দ্রুত প্রজননকারী চুল্লিগুলির জন্য প্লুটোনিয়াম জ্বালানী ফ্যাব্রিকেশন'সহ (এফবিআর) বর্জ্য পরিশোধনের সুবিধাসমূহে অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। এটি ভারতের প্রথম সম্পূর্ণ দেশীয়ভাবে নির্মিত পারমাণবিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র, যেখানে দুটি ইউনিটের মধ্যে প্রতিটির উৎপাদন ক্ষমতা ২২০ মেগাওয়াট। স্টেশনটির প্রথম এবং দ্বিতীয় ইউনিট যথাক্রমে ১৯৮৩ এবং ১৯৮৫ সালে চালু হয়। স্টেশনটি চুল্লী-কুল্যান্ট দুর্ঘটনার ক্ষেত্রে দ্বিস্তরীয় কংক্রিটের আচ্ছাদন'সহ সুরক্ষার উন্নতি একটি চুল্লি ভবনের মধ্যে রয়েছে চুল্লীগুলি। এছাড়াও একটি অন্তর্বর্তীকালীন সঞ্চয় সুবিধা (আইএসএফ) কালাপক্কামে অবস্থিত।

ইতিহাস[সম্পাদনা]

নির্মাণের সময়, যথাযথ অবকাঠামোগত ব্যবস্থাপনার এবং পরিচালনার সরঞ্জামের অভাবে প্রথম ইউনিটে ১৮০ টন গুরুত্বপূর্ণ সরঞ্জাম উত্তোলনের জন্য সমগ্র ভারতের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে মোট ৩.৮ লক্ষ (৩৮০,০০০) রেল স্লিপার (লগগুলি) আনা হয়।[১]

জুলাই ২০১৫ সালের মধ্যে প্রোটোটাইপ ফাস্ট ব্রিডার রিঅ্যাক্টর (পিএফবিআর) এর চূড়ান্ত নির্মাণ পর্যায়ে ছিল এবং আশা করা হয় যে মার্চ ২০১৭ সালে ৫০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন ক্ষমতায় পৌঁছে যাবে।[২] পরের মাসে ১,৭৫০ টন তরল সোডিয়াম কুল্যান্টের লোড চার থেকে পাঁচ মাসে হবে বলে আশা করা হয়, পরমাণু শক্তি বিভাগের সূত্র জানিয়েছে যে সর্বোচ্চ ক্ষমতায় সম্ভবত মে ২০১৭ সালের দিকেই পৌঁছে যাবে।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "MAPS Silver Jubilee Celebration"indiaenvironmentportal.org.in। India Environment Portal। ১৮ ডিসেম্বর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  2. Singh, Jitendra (২৮ জুলাই ২০১৬)। "Answer on 28.07.2016 to Rajya Sabha unstarred question no.1184 to Government of India Department of Atomic Energy" (PDF)dae.nic.in। Department of Atomic Energy, Government of India.। ৮ আগস্ট ২০১৬ তারিখে মূল (PDF) থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ আগস্ট ২০১৬PFBR is poised for first criticality by March, 2017. 
  3. Rohit, T.K. (৩০ জুলাই ২০১৬)। "Prototype Fast Breeder Reactor likely to be delayed"The Hindu। ৩০ জুলাই ২০১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ আগস্ট ২০১৬ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]