কধুরখীল ইউনাইটেড মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
কধুরখীল ইউনাইটেড মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়
অবস্থান
লালার দীঘি, ১ নং কধুরখীল, বোয়ালখালী, চট্টগ্রাম
বাংলাদেশ
তথ্য
ধরনসরকারি
প্রতিষ্ঠাকাল১৯৪৭ সাল
প্রধান শিক্ষকমোহাম্মাদ ইলিয়াস
শ্রেণী৬-১০
শিক্ষার্থী সংখ্যা১০০০ জনেরও অধিক
ক্যাম্পাসের আকার৮২৪ শতক

কধুরখীল ইউনাইটেড মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয় বাংলাদেশের চট্টগ্রাম জেলার অন্তর্গত বোয়ালখালী উপজেলার একটি ঐহিত্যবাহী উচ্চ বিদ্যালয়। এটি ১নং কধুরখীল ইউনিয়নের মধ্যভাগে লালার দীঘির পাড়ে ইউনিয়ন পরিষদের পাশে একটি বিশাল আয়তন নিয়ে অবস্থিত। এই বিদ্যালয়টি ১৯৪৭ সালে স্থাপিত করা হয়। বিদ্যালয়ের পাশে সুবিশাল লালার দীঘি এবং সামনে বড় মাঠ চারিদিকে নারিকেল গাছের সমারোহ। বিদ্যালয়ের সামনে রয়েছে একটি ত্রিমুখী সড়ক, যা চট্টগ্রাম শহরসহ বিভিন্ন জায়গায় যাওয়া যায়। পড়ালেখার মান নিয়ে এই বিদ্যালয়টির সুনাম অক্ষুন্ন আছে।[১]

ইতিহাস[সম্পাদনা]

বোয়ালখালী উপজেলার কধুরখীল গ্রামটি একটি ঐতিহ্যবাহী গ্রাম। গ্রামটির নামকরণে প্রচলিত প্রবাদ আছে যে,‘কতদূরখিল’ থেকে কধুরখীল নাম। বিদ্যালয়টি তৈরির আগে হিন্দুরা ছিল শিক্ষা-দীক্ষায় উন্নত কিন্তু মুসলমানরা শিক্ষা-দীক্ষায় ছিল অনুন্নত। হিন্দু অধ্যষিত এলাকায় মাধ্যমিক বিদ্যালয় থাকলেও মুসলিম অধ্যুষিত এলাকায় কোন জুনিয়র বা মাধ্যমিক বিদ্যালয় ছিল না। তাই মধ্য কধুরখীল বা লালারদিঘী এলাকার কয়েকজন শিক্ষানুরাগী ব্যক্তি মরহুম আলহাজ্ব মকবুল হোসেন চৌধুরী, মরহুম আবুল বশরমিয়া, মরহুম খলিলুর রহমান আরবী, মরহুম আবুবক্কর সিদ্দীক সওদাগর, মরহুম আবদুস সামাদ সওদাগর, মরহুম আমির হোসেন চৌধুরী, মৃত সজীব চন্দ্র চৌধুরী, মরহুম মোহাম্মদ মূসাবিকম,মরহুম আলহাজ্ব এস.এম মোজাহেরুল হক সওদাগর ও অন্যান্য ব্যক্তিবর্গের উদ্যোগে ১৯৪৭ সালে অত্র এলাকার মুসলিম ও হিন্দুদের শিক্ষা বিস্তারের জন্য কধুরখীল ইউনাইটেড মুসলিম উচ্চ বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত করেন। উক্ত বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করার জন্য যারা জমিদান করেছেন তারা হচ্ছেন, মরহুম মাওলানা খলিলুর রহমান আরবী, মরহুম মোহাম্মদ ইব্রাহীম মিয়া তালুকদার, মরহুম মাওলানা আবদুলহাকিম, মৃত চরণ চৌধুরী, মরহুম আমিনুল হক, মরহুম মোহাম্মদ এছহাক, মরহুম সুলতান আহম্মদ, মরহুম এনায়াতুল্লাহ খতিব, মরহুম আবদুল করিমও প্রমুখ ব্যক্তিবর্গ।

বিদ্যালয়টি তৈরি হয়েছে ৮২৪ শতক জমির উপর। এটি ২টি ভবন বিশিষ্ট্য বিদ্যালয়। এতে রয়েছে ১২টি শ্রেণী কক্ষ,১টি অফিসকক্ষ, ১টি শিক্ষক মিলনায়তন, ১টি পাঠাগার,১টি বিজ্ঞানাগার, ১টি কম্পিউটারল্যাব, ১টি এবাদতখানা। বিদ্যালয়ের সামনেএকটি প্রশস্ত খেলা মাঠও রয়েছে।[১]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]