এলিসি পেরি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
এলিসি পেরি
Ellyse Perry 2.jpg
ব্যক্তিগত তথ্য
জন্ম (১৯৯০-১১-০৩) ৩ নভেম্বর ১৯৯০ (বয়স ২৮)
নিউ সাউথ ওয়েলস, অস্ট্রেলিয়া
ব্যাটিংয়ের ধরনডান-হাতি
বোলিংয়ের ধরনডান-হাতি ফাস্ট মিডিয়াম
ভূমিকাঅল-রাউন্ডার
আন্তর্জাতিক তথ্য
জাতীয় পার্শ্ব
টেস্ট অভিষেক১৫ ফেব্রুয়ারী ২০০৮ বনাম ইংল্যান্ড
শেষ টেস্ট১৪ আগষ্ট ২০১৩ বনাম ইংল্যান্ড
ওডিআই অভিষেক২২ জুলাই ২০০৭ বনাম নিউজিল্যান্ড
শেষ ওডিআই২৫ আগষ্ট ২০১৩ বনাম ইংল্যান্ড
ঘরোয়া দলের তথ্য
বছরদল
২০০৭–বর্তমাননিউ সাউথ ওয়েলস ব্রেকার্স
খেলোয়াড়ী জীবনের পরিসংখ্যান
প্রতিযোগিতা টেস্ট ওডিআই টি২০ আই এনসিএল
ম্যাচ সংখ্যা ৫৭ ৮৮ ৪৫
রানের সংখ্যা ৯৯ ৫৫৫ ৩১৯ ৪৫৩
ব্যাটিং গড় ৩৩.০০ ২৩.১২ ১৫.১৯ ২৬.৬৪
১০০/৫০ ০/০ ০/১ ০/১ ০/১
সর্বোচ্চ রান ৩১* ৫১ ৫৬* ৬৬
বল করেছে ৮১৪ ২৬০৯ ১৮২১ ২১৭৭
উইকেট ১০ ৭৯ ৮৪ ৭৯
বোলিং গড় ২৮.৬০ ২৩.১৫ ১৯.৯৬ ১৫.৭৪
ইনিংসে ৫ উইকেট
ম্যাচে ১০ উইকেট n/a n/a n/a
সেরা বোলিং ৪/৫৬ ৫/১৯ ৪/২০ ৫/১১
ক্যাচ/স্ট্যাম্পিং ৩/০ ১৭/– ২২/– ১৪/–
উৎস: CricketArchive, 3 January 2014

এলিসি আলেকজান্দ্রা পেরি (জন্মঃ ৩ নভেম্বর ১৯৯০) হলেন একজন অস্ট্রেলিয়ান ক্রীড়াবিদ যিনি মাত্র ১৬ বছর বয়সে অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেট এবং ফুটবল (সকার) উভয়ের দলের হয়ে আত্মপ্রকাশ করেন। তিনি ২০০৭ সালের জুলাই তারিখে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক ঘটান এবং এক মাস পরে তিনি অস্ট্রেলিয়ার ফুটবল দলের টুপি পরেন। পেরি অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটে প্রতিনিধিত্ব করা পুরুষ বা মহিলাদের ভিতরে সর্বকনিষ্ঠ ব্যক্তি হন এবং প্রথম অস্ট্রেলিয়ান মহিলা ক্রিকেট ও ফুটবল এসোসিয়েশন বিশ্বকাপে উভয় পর্যায়ে খেলা ক্রীড়াবিদ।.[১]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

পেরি ওয়াহরঙ্গায় জন্মগ্রহণ করেন। তিনি সিডনিতে বিক্রফট প্রাইমারি স্কুলে তার প্রাথমিক শিক্ষা জীবন সমাপ্ত করেন। তিনি ক্রীড়া ক্যাপ্টেন, অ্যাথলেটিক্স ক্যাপ্টেন এবং ক্রিকেট ক্যাপ্টেন খেতাব নিয়ে ২০০৮ সালে ১২ বছর বয়সে পায়াম্বল লেডিজ কলেজ উপস্থিত হয়েছিলেন।[২][৩] তিনি বর্তমানে সিডনি বিশ্ববিদ্যালয় এর অর্থনীতি ও সামাজিক বিজ্ঞান বিভাগে অধ্যয়নরত আছেন।[৪]

২০১৩ সালে পেরি, বিশ্বের ৩৬ তম সবচেয়ে বাজারজাত ক্রিড়াবিদ এবং সবচেয়ে বাজারজাত অস্ট্রেলীয় ক্রীড়াবিদ হিসেবে "স্পোর্টস প্রো" পত্রিকায় নিজের নাম দখল করেন।[৫][৬] তিনি জকি আন্ডারওয়্যার এর একটি বাণিজ্যিক প্রচারে হাজির হন।[৭]

নোট[সম্পাদনা]

  1. Sydney Morning Herald – Darlings of the nation as Matildas join the elite
  2. ইএসপিএনক্রিকইনফোতে এলিসি পেরি উইকিউপাত্তে এটি সম্পাদনা করুন (ইংরেজি) , retrieved 20 March 2008.
  3. Teen prodigy must decide between soccer and cricket from The Daily Telegraph, 14 February 2008, retrieved 15 February 2008.
  4. Wasley, Alice (২২ জানুয়ারি ২০১২)। "Levelling the Playing Field"। Sunday Herald Sun Magazine। পৃষ্ঠা 17। 
  5. "Ellyse Perry the most marketable Australian athlete"foxsports.com.au। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৩ 
  6. "All-round Ellyse very, Perry good"The Age। Melbourne। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জানুয়ারি ২০১৪ 
  7. Gaskin, Lee (২৮ জুলাই ২০১৩)। "Perry steps out of clothes, and comfort zone"canberratimes.com.a। সংগ্রহের তারিখ ২৯ জুলাই ২০১৩ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]