উৎমাছড়া

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
উৎমাছড়া
অবস্থানকোম্পানীগঞ্জ, সিলেট, বাংলাদেশ
ধরনঝরনা / ছড়া
বিছানাকান্দি

উৎমাছড়া বিছানাকান্দির প্রতিরূপ। চারপাশে সারি সারি পাহাড়, পাহাড়ের বুকে গাঢ় সবুজের প্রলেপ, গাছপালা আর ঝোপঝাড় দিয়ে ভরা। পাহাড়ের বুক চিড়ে বয়ে চলেছে শীতল স্বচ্ছ জলরাশি। [১]

অবস্থান[সম্পাদনা]

উৎমাছড়া সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার উত্তর রণিখাই ইউনিয়নে অবস্থিত। শীতল স্বচ্ছ জলরাশি। ভারতের মেঘালয় রাজ্য থেকে নেমে আসা সিলেটের সীমান্তবর্তী এক নদের নাম ধলাই।[২] মেঘালয় পাহাড়ের ঝরনার পানি এই নদের জলপ্রবাহের উৎস। ধলাই নদের উৎসমুখই হচ্ছে সাদাপাথরের রাজ্য। পাহাড়ি ঢলে উৎসমুখে পাঁচ একর জায়গা জুড়ে পড়েছে পলির মতো করে পাথরের স্তূপ। সাদা সাদা পাথর। [৩]

ভূপ্রকৃতি[সম্পাদনা]

রূপ-লাবণ্যে যৌবনা উৎমাছড়া পরতে পরতে সাজিয়ে রেখেছে সম্মোহনী সৌন্দর্য্য। সারি সারি পাহাড়। পাহাড়ের বুকে গাঢ় সবুজের আস্তরণ। প্রকৃতির অপার সৌন্দর্য্যের লীলাভূমি হচ্ছে উৎমাছড়া।

বর্ণনা[সম্পাদনা]

পাথর ছড়ানো সর্বত্র। আকাশে নীলের ছায়া। যে স্থানকে সিলেটের নতুন ‘বিছনাকান্দি’ বলে অভিহিত করা হচ্ছে। সৌন্দর্য্যটা আসলে বর্ষাকালেই বেশি উপভোগ করা যায়। আর তা ছাড়া বর্ষার সময়ে উৎমাছড়ার সৌন্দর্য্য সবচেয়ে বেশি ধরা দেয়। অন্যান্য মৌসুমে উতমাছড়াকে মরুভূমির বুকে গজিয়ে ওঠা উদ্যানের মতো মনে হয়।[৪] যে দিকেই  যাবেন শুধু পাথর আর পাথর । সে সব পাথরের কোনোটাতে মোটা ঘাসের আস্তরণ, আবার কোনোটা বা ধবধবে সাদা।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "লুকানো সৌন্দর্য তুরং ছড়া || ভ্রমণ"জনকন্ঠ (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২১ 
  2. "ধলাই নদের উৎস মুখে"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৪ 
  3. "প্রিয় গন্তব্য: সিলেটের উৎমাছড়া"প্রিয়.কম (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২১ 
  4. "একদিনে ভোলাগঞ্জের সাদা পাথর, উৎমাছড়া ও তুরুংছড়া ভ্রমণ | Kazirbazar.com"archive.is। ২০১৯-০৬-২৪। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৬-২৪