আশরাফুল ইসলাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আশরাফুল ইসলাম
আশরাফুল ইসলাম.jpg
সাবেক রাজশহী-১৬ আসনের সংসদ সদস্য
বর্তমান নাটোর-৩ আসন
কাজের মেয়াদ
১৯৭৩ – ১৯৭৫
পূর্বসূরীশুরু স্বাধীনতা লাভ
উত্তরসূরীআবদুস সাত্তার খান চৌধুরী
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯ ফেব্রুয়ারী ১৯২৩
মৃত্যু৮ মার্চ ১৯৯১
রাজনৈতিক দলবাংলাদেশ আওয়ামী লীগ

আশরাফুল ইসলাম (১৯ ফেব্রুয়ারী ১৯২৩-৮ মার্চ ১৯৯১) বাংলাদেশের নাটোর জেলার রাজনীতিবিদ, সাংবাদিক, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও রাজশহী-১৬ (বর্তমান নাটোর-৩ (সিংড়া উপজেলা)) আসনের সংসদ সদস্য ছিলেন।[১][২]

জন্ম ও প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

আশরাফুল ইসলাম ১৯ ফেব্রুয়ারী ১৯২৩ রাজশাহীর নাটোরের সিংড়ার তাজপুর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা ঘাসিউল্লা ও মাতা আজজান বিবি।[১]

রাজনৈতিক জীবন[সম্পাদনা]

আশরাফুল ইসলাম ছিলেন সিংড়া থানার আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ও নাটোর মহকুমা আওয়ামীলীগের প্রতিষ্ঠাতা সদস্য। ১৯৪৪-১৯৫০ মেয়াদে তিনি ইটালী ইউনিয়ন বোর্ড়ের নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ছিলেন। ১৯৬৬-১৯৭১ মেয়াদে তিনি বৃহত্তর রাজশাহী জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ১৯৬৬-১৯৭১ মেয়াদে তিনি নাটোর মহকুমা আওয়ামীলীগের সভাপতি ছিলেন।[১]

আশরাফুল ১৯৭০ সালে আওয়ামীলীগের মনোনয়নে তৎকালীন প্রাদেশিক পরিষদে এবং ১৯৭৩ সলে জাতীয় সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।[১] ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন মুজির নগর প্রশাসনে জোনাল এড মিনিষ্ট্রেটিভ কাউন্সিলের (পশ্চিম জোন-২) চেয়ারম্যান ছিলেন।[১]

১৯৭৫ সালে বঙ্গবন্ধু বাকশাল গঠন করলে আশরাফুল ইসলাম নাটোর জেলা বাকশালের সম্পাদক মনোনীত হন। বঙ্গবন্ধু নিহত হলে তিনি ৩ বছর ৩ মাস কারা ভোগ করেন।[১]

তিনি দৈনিক ইত্তেফাক, বাংলার বাণী ও দৈনিক দেশ পত্রিকায় নাটোর প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করেন। নাটোর প্রেস ক্লাবের তিনি সভাপতি এবং সিংড়া প্রেস ক্লাবের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ছিলেন।[১]

মৃত্যু[সম্পাদনা]

আশরাফুল ইসলাম ৮ মার্চ ১৯৯১ সালে মৃত্যুবরণ করেন।[১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]