আলায়া মেগদা এলমাদি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আলায়া মেগদা এলমাদি
স্টেনসিল সংবলিত গ্রাফিতি
ব্লগে প্রকাশিত ছবির আদলে স্টেনসিল সংবলিত গ্রাফিতি
স্থানীয় নামعلياء ماجدة المهدى
জন্মআলায়া মেগদা এলমাদি
জাতীয়তামিশরীয়
নাগরিকত্বমিশর
যে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ছাত্র/ছাত্রীআমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়, কায়রো
পেশা
কার্যকাল২০১১–বর্তমান
যে জন্য পরিচিতমিশরীয় বিপ্লব
আন্দোলনমিশরীয় বিপ্লব

আলায়া মেগদা এলমাদি (আরবি: علياء ماجدة المهدى‎‎, মিশরীয় আরবি: ʕælˈjæːʔ ˈmæɡdæ (ʔe)lˈmæhdi, ˈʕæljæ-; জন্ম ১৬ নভেম্বর ১৯৯১) একজন মিশরীয় ইন্টারনেট সক্রিয় কর্মী এবং নারী অধিকার অধিবক্তা। ২০১১ সালে, তিনি তার ব্লগস্পট পাতায় একটি নগ্ন ছবি প্রকাশ করার কারণে পরিচিত হয়ে ওঠেন, যা "সহিংসতা, বর্ণবাদ, যৌনতাবাদ, যৌন হয়রানি এবং ভণ্ডামিপূর্ণ সমাজের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ" স্বরুপ হিসেবে ফেসবুকে বর্ণনা করেছেন।[১] এরপর থেকে তিনি বিভিন্ন সময় মৃত্যুর হুমকির বিষয় হয়ে ওঠেন।[২] কায়রোয় আমেরিকান বিশ্ববিদ্যালয়েের শিক্ষার্থী এলমাদি, একজন "অসাম্প্রদায়িক, উদার, নারীবাদী, নিরামিষ, ব্যক্তিতাবাদী মিশরীয়" হিসেবে নিজেকে বর্ণনা করেন এবং যিনি ১৬ বছর বয়স অতিক্রমের পর থেকেই একজন নাস্তিক হিসেবে চিহ্নিত হন।[৩][৪] ২০১৩ সালে, অপহরণ, মৃত্যু এবং ধর্ষণের হুমকি পাবার পর তিনি সুইডেনে রাজনৈতিক আশ্রয় দাবী করেন।[৫]

আন্দোলন[সম্পাদনা]

নগ্ন ছবি[সম্পাদনা]

বহিঃ ছবিসমূহ
এলমাদির আলোচিত ছবি

এলমাদি, অক্টোবর ২৩, ২০১১ সালে তার নগ্ন ছবি প্রকাশ করেন, এবং তার টুইট অণুযায়ী জানা যায় "এক মাস পূর্বে বাবা-মায়ের বাড়িতে" আরেক সক্রীয় কর্মী কারিম আমের সাথে সাক্ষাতের সময়ে ছবিটি তোলা হয়।[৬]

এর পূর্বে ২০১১ সালে এলমাদি এবং আমের একটি মোবাইল ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেন, যেখানে তারা একটি পাবলিক পার্ক পরিচালকের সাথে বিতর্কে জড়াতে দেখা যায়, যিনি প্রকাশ্য অণুরাগ প্রদর্শনের জন্য তাদের তাড়িয়ে দেন।

পরবর্তী কার্যকলাপ[সম্পাদনা]

বিক্ষোভের আলোকচিত্র থিম অব্যাহত রাখতে, "ভণ্ড মনোভাব উপর সচেতনতা তৈরি করার একটি প্রয়াস হিসেবে" পরবর্তীকালে পুরুষদের নিজেদের পর্দা পরিহিত ছবি প্রকাশের আহ্বান জানিয়েছেন এলমাদি এবং এবং নারীদের অনলাইন তাদের পর্দাবহিীন মুখের ছবি প্রকাশের অণুরোধ করেছে।[৭]

আগস্ট, ২০১৪ সালে, তিনি ইসলামিক স্টেট অব ইরাক এন্ড দ্য লেভান্টের (আইএসআইএস) পতাকার উপর শুধুমাত্র জুতা পরিহিত অবস্থায় নিজেকে আরেকটি নগ্ন ছবি প্রকাশ করে।[৮] ইসলামী বিশ্বের মিডিয়ায় ছবিটি প্রকাশ করা হয়নি।[৯]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Egypt activist posts herself nude, sparks outrage"Ynetnewsমিশর। নভেম্বর ১৭, ২০১১। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 
  2. Amrutha Gayathri (নভেম্বর ২১, ২০১১)। "Has Aliaa Magda Elmahdy's Nude Photography Hurt the Cause of Egypt's Liberals?"ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসনিউ ইয়র্ক: আইবিটাইমস কোম্পানি। ১০ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 
  3. Sarah Park (নভেম্বর ১৭, ২০১১)। "Egyptian Nude Blogger Aliaa Magda Elmahdy Draws Condemnation [PHOTOS]"ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসনিউ ইয়র্ক: আইবিটাইমস কোম্পানি। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "New Pictures of Aliaa Magda Elmahdy, the Nude Blogger"ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসনিউ ইয়র্ক: আইবিটাইমস কোম্পানি। নভেম্বর ২০, ২০১১। ২৩ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 
  5. Amira Asad (ফেব্রুয়ারি ১৪, ২০১৩)। "The Egyptian Feminist Who Was Kidnapped for Posing Nude"Vice। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 
  6. Gianluca Mezzofiore (নভেম্বর ১৬, ২০১১)। "Aliaa Magda Elmahdy, Nude Blogger: In Pictures"ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমসনিউ ইয়র্ক: আইবিটাইমস কোম্পানি। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 
  7. Amrutha Gayathri (ডিসেম্বর ২৬, ২০১১)। "Egypt's Nude Revolutionary Aliaa Elmahdy Asks Women to Publish Photographs without Veils"ইন্টারন্যাশনাল বিজনেস টাইমস। যুক্তরাজ্য: আইবিটাইমস কোম্পানি। ১১ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 
  8. "ISIS Terrorist Group's Flag Defecated On By Egyptian Feminist Aliaa Magda Elmahdy In Viral Nude Photo"inquisitr। আগস্ট ২৪, ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 
  9. "Egypt feminist defecates on IS flag in the nude"The Times of Israelইসরাইল। আগস্ট ২৪, ২০১৪। সংগ্রহের তারিখ এপ্রিল ৩০, ২০১৫ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]