আর্থার স্ট্যানলি এডিংটন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
আর্থার এডিংটন
Arthur Stanley Eddington.jpg
আর্থার স্ট্যানলি এডিংটন
জন্ম (১৮৮২-১২-২৮)ডিসেম্বর ২৮, ১৮৮২
কেন্ডাল, ইংল্যান্ড
মৃত্যু নভেম্বর ২২, ১৯৪৪(১৯৪৪-১১-২২) (৬১ বছর)
কেমব্রিজ, ইংল্যান্ড
বাসস্থান যুক্তরাজ্য
জাতীয়তা ব্রিটিশ
কর্মক্ষেত্র জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানী
প্রতিষ্ঠান কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়
প্রাক্তন ছাত্র কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়
পিএইচডি উপদেষ্টা হোরাস ল্যাম্ব
পিএইচডি ছাত্ররা Leslie Comrie
পরিচিতির কারণ এডিংটন সীমা
এডিংটন নম্বর
এডিংটন-ডিরাক নম্বর
উল্লেখযোগ্য পুরস্কার রয়েল সোসাইটি রয়েল মেডেল (১৯২৮)
ব্রুস পদক (১৯২৪)
অর্ডার অব মেরিট (১৯৩৮)
টীকা
এডিংটন ১৯০৫ সালে এমএ সম্পন্ন করেন এবং কখনও ডক্টোরাল গবেষণা করেননি। তাই তার কোন ডক্টোরাল উপদেষ্টাও নেই। অবশ্য হোরাস ল্যাম্বকে সেরকম উৎসাহদাতা হিসেবে গণ্য করা যায়।

স্যার আর্থার স্ট্যানলি এডিংটন (ডিসেম্বর ২৮, ১৮৮২ - নভেম্বর ২২, ১৯৪৪) ছিলেন বিংশ শতাব্দীর বিখ্যাত জ্যোতিঃপদার্থবিজ্ঞানী। এডিংটন সীমার নামকরণ তার নাম অনুসারে করা হয়েছে। এটি একটি কমপ্যাক্ট বস্তুর উপরকার বিবৃদ্ধি থেকে বিকিরিত দীপন ক্ষমতার সীমা নির্দেশ করে।

আপেক্ষিকতার তত্ত্ব বিষয়ক গবেষণার জন্য তিনি বিখ্যাত। ১৯১৯ সালে তিনি একটি গবেষণাপত্র লিখেছিলেন যাতে মহাকর্ষের আপেক্ষিক তত্ত্ব সংশ্রিষ্ট তত্ত্ব ব্যাখ্যা করা হয়। এই নিবন্ধের মাধ্যমেই আইনস্টাইনের আপেক্ষিকতার সাধারণ তত্ত্ব ইংরেজি ভাষী বিশ্বে পরিচিতি লাভ করে।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

এডিংটন ২২নভেম্বর,১৯৪৪ সালে কেমব্রিজের ইভলিন নার্সিং হোমে ক্যান্সারের জন্য মারা যান।তার শরীর ২৭ নভেম্বর ১৯৪৪ সালে কেমব্রিজ শ্মশানঘাট (কেমব্রীজশায়ার )-এ শবদাহ করা হয়। তার দেহাবশেষ কেমব্রিজের আ'সেনশন প্যারিশ কবরখানায় তার মায়ের কবরের পাশে সমাহিত করা।

রচনাসমূহ[সম্পাদনা]