আন্তর্জাতিক চা দিবস

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
আন্তর্জাতিক চা দিবস
Sri Lanka-Province du Centre-Cueilleuse de thé (3).jpg
শ্রীলঙ্কার একটি চা বাগান; শ্রীলঙ্কা বিশ্বের একটি অন্যতম চা উৎপাদনকারী দেশ
আনুষ্ঠানিক নামআন্তর্জাতিক চা দিবস
পালনকারীচা উৎপাদনকারী দেশসমূহ
শুরু২০০৫
তারিখ১৫ ডিসেম্বর

আন্তর্জাতিক চা দিবস প্রতি বছর ১৫ ডিসেম্বর উদযাপিত হয়। বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, নেপাল, ভিয়েতনাম, ইন্দোনেশিয়া, কেনিয়া, মালাউই, মালয়েশিয়া, উগান্ডা, ভারততানজানিয়ার মতো চা উৎপাদনকারী দেশসমূহ ২০০৫ সাল থেকে প্রতি বছর এই দিবসটি উদ্‌যাপন করে আসছে।[১] আন্তর্জাতিক চা দিবসের উদ্দেশ্য হলো চা-কর্মী ও উৎপাদকদের ওপর বৈশ্বিক বাণিজ্যের প্রভাব সরকার ও জনগণের সামনে তুলে ধরা এবং অর্থনৈতিক সমর্থন ও ন্যায্য বাণিজ্যের সংযোগ স্থাপন করা।[২][৩]

২০০৪ সালে বিশ্ব সামাজিক সম্মেলনের পর ২০০৫ সালে প্রথম আন্তর্জাতিক চা দিবস উদযাপিত হয় ভারতের নয়া দিল্লিতে[৪] পরবর্তীতে ২০০৬ ও ২০০৮ সালে দিবসটি উদ্‌যাপনের আয়োজন করে শ্রীলঙ্কা[২] আন্তর্জাতিক চা দিবস উদ্‌যাপন ও এর সাথে সম্পর্কিত বিশ্ব চা সম্মেলন যৌথভাবে বিভিন্ন শ্রমকল্যাণ সমিতি আয়োজন করে থাকে।[২]

২০১৫ সালে ভারত সরকার খাদ্য ও কৃষি সংস্থার মাধ্যমে দিবসটির উদ্‌যাপন আরো বিস্তৃত করার প্রস্তাব দেয়।[৫]

জাতিসংঘেত খাদ্য ও কৃষি সংস্থার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২০২০ সাল থেকে ২১ মেকে আন্তর্জাতিক চা দিবস হিসেবে পালন করার ঘোষণা দেয়া হয়।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "International Tea Day"Confederation of Indian Small Tea Growers Association। ২২ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  2. "South Asian tea workers call for International Tea day"সানডে টাইমস, শ্রীলঙ্কা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  3. "International Tea Day: Consumers Demand a Fair Cuppa"ফেয়ারট্রেড কানাডা। ১১ জানুয়ারি ২০১০। ২২ ডিসেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  4. "International Tea Day 2005 Report" (PDF)। শিক্ষা ও যোগাযোগ কেন্দ্র। ২ মার্চ ২০০৬। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ 
  5. "'Tea day' proposal to UN"দ্য টেলিগ্রাফ। সংগ্রহের তারিখ ১৫ ডিসেম্বর ২০১৫ 

বহিসংযোগ[সম্পাদনা]