আকিলিস পাপাপেত্রু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আকিলিস পাপাপেত্রু
জন্মআকিলিস পাপাপেত্রু
(১৯০৭-০২-০২)২ ফেব্রুয়ারি ১৯০৭
ইরাক্লেইয়া সেরেস, সালোনিকা ভিলায়েত, অটোম্যান সাম্রাজ্য (বর্তমানে ইরাক্লেইয়া সেরেস, গ্রিস)
মৃত্যুআগস্ট ১২, ১৯৯৭(1997-08-12) (বয়স ৯০)
প্যারিস,
ফ্রান্স
নাগরিকত্বগ্রিস, ফ্রান্স
কর্মক্ষেত্রতাত্ত্বিক পদার্থবিদ্যা
সাধারণ আপেক্ষিকতা
প্রতিষ্ঠানঅ্যাথেন্স জাতীয় প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, ডাবলিন উচ্চশিক্ষা ইন্সটিটিউট, ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়, হুমবোল্ট বিশ্ববিদ্যালয়, বার্লিন
প্রাক্তন ছাত্রঅ্যাথেন্স জাতীয় প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়
পিএইচডি উপদেষ্টাপল পিটার এওয়াল্ড
পিএইচডি ছাত্ররাহান্স ইউরগেন ত্রেদার, রদলফো গাম্বিনি
পরিচিতির কারণমাথিসন-পাপাপেত্রু-ডিক্সন সমীকরণ, মজুমদার-পাপাপেত্রু সমাধান,ভাইল-লুইস-পাপাপেত্রু ভূস্থানাঙ্ক
স্ত্রী/স্বামীকউলা

আকিলিস পাপাপেত্রু (গ্রিক: Αχιλλέας Νικολάου Παπαπέτρου; ২ ফেব্রুয়ারি, ১৯০৭ – ১২ আগস্ট, ১৯৯৭) একজন গ্রিক তাত্ত্বিক পদার্থবিজ্ঞানী ছিলেন। তিনি সাধারণ আপেক্ষিকতার ক্ষেত্রে অবদান রেখেছেন। তিনি মাথিসন-পাপাপেত্রু-ডিক্সন সমীকরণ[১], মজুমদার-পাপাপেত্রু সমাধান[২] এবং মহাকর্ষ তত্ত্বের ভাইল-লুইস-পাপাপেত্রু ভূস্থানাঙ্কের জন্য পরিচিত।

তিনি আইনস্টাইনের ক্ষেত্র সমীকরণের উপর কাজ করেছেন। তিনি অনেকদিন ঘুরন্ত বস্তুর সমাধান বের করার চেষ্টা করেছিলেন। তবে, সেই সমাধান পরবর্তীতে রয় কের বের করেছিলেন।[৩] পাপাপেত্রু তখন প্রথম বিজ্ঞানী ছিলেন যিনি কেরের যুগান্তকারী সাফল্যের স্বীকৃতি দিয়েছিলেন।[৪][৫]

প্রাথমিক জীবন ও শিক্ষা[সম্পাদনা]

পাপাপেত্রু ২ ফেব্রুয়ারি, ১৯০৭ তারিখে উত্তর গ্রিসের (মেসিডোনিয়া প্রদেশ) ইরাক্লেইয়া সেরেসে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা বিদ্যালয়ের শিক্ষক ছিলেন। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় তার পরিবার সেরেস থেকে বিতাড়িত হয়েছিল, তবে যুদ্ধের পর তারা ফিরে আসে।

১৯২৫ সাল থেকে তিনি অ্যাথেন্স জাতীয় প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে যন্ত্র প্রকৌশলইলেক্ট্রনিক প্রকৌশল অধ্যয়ন করেছিলেন। তিনি ১৯৩০ সালে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে পাশ করেছিলেন। শিক্ষার্থী থাকাকালীন তিনি গণিত বিভাগের সহকারী ছিলেন এবং প্রকৌশল হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন।[৬][৭]

গবেষণা[সম্পাদনা]

১৯৩৪ সালে স্তুতগার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে বৃত্তির মাধ্যমে পাপাপেত্রু পল পিটার এওয়াল্ডের অধীনে কঠিন অবস্থা পদার্থবিজ্ঞানর উপর স্নাতক শিক্ষা শুরু করেন। এভাবেই তিনি পদার্থবিজ্ঞানের ক্ষেত্রে গবেষণা শুরু করেছিলেন। সেখানে তিনি হেল্মাত হনালের সাথে কাজ করেছিলেন। সাধারণ আপেক্ষিকতায় পাপাপেত্রুর আগ্রহ জাগাতে হেল্মাত হনালের অবদান রয়েছে। ১৯৩৫ সালে পাপাপেত্রু সেখানে Investigations on the dendrite growth of crystals এর উপর থিসিস করার মাধ্যমে পিএইচডি অর্জন করেন।[৮] এরপর ইলেক্ট্রনিক প্রকৌশল বিভাগের সহকারী হিসেবে তিনি অ্যাথেন্স জাতীয় প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফিরে যান।

১৯৪০-১৯৪৬ সালে তিনি অ্যাথেন্স জাতীয় প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থবিজ্ঞানের অধ্যাপক হিসেবে কাজ করেছিলেন। সেখানে তিনি সাধারণ আপেক্ষিকতার উপর বক্তৃতা দিয়েছিলেন। গ্রিসে জার্মান অধিকরণের সময় তিনি একাকী কাজ করেছিলেন। বামপন্থি প্রতিরোধ আন্দোলনের সাথে সহানুভূতি প্রকাশ করায় যুদ্ধের পর তাকে চাকরি থেকে বরখাস্ত করা হয়। এর ফলে, ১৯৪৬ সালে তিনি এরভিন শ্রোডিঙারের আহ্বানে ডাবলিন উচ্চশিক্ষা ইন্সটিটিউটে যোগদান করেন।

১৯৪৮ সাল থেকে তিনি ম্যানচেস্টার বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজ করেন। সেখানে লিওন রসেনফেল্ড তার সহকর্মী ছিলেন। সেখানে তিনি সাধারণ আপেক্ষিকতার গতির সমীকরণের ক্ষেত্রে কাজ করেছিলেন।

১৯৫২-১৯৬১ সাল পর্যন্ত তিনি বার্লিনের জার্মান বিজ্ঞান একাডেমির গণিত গবেষণা ইন্সটিটিউটে গবেষক ছিলেন। ১৯৫৭ সাল থেকে তিনি হুমবোল্ট বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক হিসেবে কাজ করেন। সেখানে অন্যান্য শিক্ষার্থীদের মধ্যে গেঅর্গ দাউতকোর্ট ও হান্স ইউরগেন ত্রেদার উল্লেখযোগ্য।

১৯৬০-১৯৬১ সালের মধ্যে তিনি একদল সাধারণ আপেক্ষিক তত্ত্বের বিজ্ঞানীদের সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন। ১৯৬২ সাল থেকে তিনি পারিসের ইন্সটিটিউট হেনরি পইনকেয়ারে ছিলেন। একইসময়ে তিনি ফরাসি জাতীয় বৈজ্ঞানিক গবেষণা কেন্দ্রের গবেষণা পরিচালক ছিলেন। তিনি মহাকর্ষীয় বিকিরণ সনাক্তকারী ক্ষেত্রে স্থিতিস্থাপক তরঙ্গ, স্থির আক্ষিক প্রতিসাম্য মহাকর্ষীয় ক্ষেত্র এবং মহাকর্ষীয় ও তড়িৎচুম্বকীয় বিকিরণ ক্ষেত্রসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে কাজ করেছেন।

১৯৭৫ সালে তিনি ইন্সটিটিউট হেনরি পইনকেয়ারের তাত্ত্বিক পদার্থবিদ্যা গবেষণাগারের পরিচালক হন। ১৯৭৭ সালে তিনি অবসর গ্রহণ করেন। এরপরও তিনি বৈজ্ঞানিকভাবে সক্রিয় ছিলেন। তিনি প্রিন্সটন বিশ্ববিদ্যালয় (১৯৬৪-৬৫), ভিয়েনা বিশ্ববিদ্যালয় (১৯৭০-৭১) এবং বস্টন বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিদর্শক বিজ্ঞানী ছিলেন। পরবর্তীতে তিনি ফরাসি নাগরিকতা গ্রহণ করেন। ১৯৭১ সাল থেকে তিনি সাধারণ আপেক্ষিকতামহাকর্ষ সম্পর্কিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন এর আয়োজক কমিটির সদস্য ছিলেন।

তিনি ১২ আগস্ট ১৯৯৭ তারিখে প্যারিসে মৃত্যুবরণ করেন।[৯]

উল্লেখযোগ্য প্রকাশনা[সম্পাদনা]

আকিলিস পাপাপেত্রু দুটি বই প্রকাশ করেছেন।

তিনি শতাধিক নিবন্ধ প্রকাশ করেছেণ।

  • Über die Selbstenergie und das Gravitationsfeld einer elektrischen Punktladung, Z f Phys 112 (১৯৩৯) 65; doi: 10.1007/BF01325637
  • Über die innere Bewegung des Elektrons. I., Z f Phys 112 (১৯৩৯) 512; doi: 10.1007/BF01341246
  • Über die innere Bewegung des Elektrons. II, Z f Phys 114 (১৯৩৯) 478; doi: 10.1007/BF01329528
  • Über die innere Bewegung des Elektrons. III., Z f Phys 116 (১৯৪০) 153; doi: 10.1007/BF01337382
  • Gravitationswirkungen zwischen Pol-Dipol-Teilchen, Z f Phys 116 (১৯৪০) 298; doi: 10.1007/BF01341450
  • The Point-Charge in the Non-symmetric Field Theory, Nature 168 (১৯৫১) 40; doi: 10.1038/168040a0
  • A static solution of the equations of the gravitational field for an arbitrary charge distribution., Proc. Roy. Irish Acad. A 51 (১৯৪৮) 191
  • Spinning test particles in general relativity., I. Proc. R. Soc. A 64, 248–258 (১৯৫২)
  • Eine rotationssymmetrische Lösung in der allgemeinen Relativitätstheorie, Ann. Phys. (Leipzig) 12, 309–315 (১৯৫৩)
  • Quelques remarques sur les champs gravitationnels stationnaires. C. R. Acad. Sci. Paris 257, 2797–2800 (১৯৬৩)
  • Champs gravitationnels stationnaires à symétrie axiale. C. R. Acad. Sci. Paris 285, 90–93 (১৯৬৪)
  • Champs gravitationnels stationnaires à symétrie axiale. Ann. Inst. Henri Poincare IV, 83–105 (১৯৬৬)
  • A. Papapetrou, Eine rotationssymmetrische Lösung in der allgemeinen Relativitätstheorie, Ann. Phys. (Leipzig) 12, 309–315 (১৯৫৩)
  • A. Papapetrou, Eine Theorie des Gravitationsfeldes mit einer Feldfunktion, Z f Phys 139 (১৯৫৪) 518; doi: 10.1007/BF01374560

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Papapetrou, A. (১৯৫১)। "Spinning Test-Particles in General Relativity. I"। Proceedings of the Royal Society A: Mathematical, Physical and Engineering Sciences209 (1097): 248–258। ডিওআই:10.1098/rspa.1951.0200বিবকোড:1951RSPSA.209..248P 
  2. Papapetrou, A. (1948): "A static solution of the equations of the gravitational field for an arbitrary charge distribution", Proc. Roy. Irish Acad. A 51 191.
  3. Dautcourt, G. (২০০৯)। "Race for the Kerr field"। General Relativity and Gravitation41। পৃষ্ঠা 1437। arXiv:0807.3473অবাধে প্রবেশযোগ্যডিওআই:10.1007/s10714-008-0700-yবিবকোড:2009GReGr..41.1437D 
  4. Thorne, K. S. (1994): Black holes and time warps, W. W. Norton & Co, New York, আইএসবিএন ০৩৯৩৩১২৭৬৩, p 342: "The astronomers and astrophysicists had come to Dallas to discuss quasars; they were not at all interested in Kerr's esoteric mathematical topic. So, as Kerr got up to speak, many slipped out of the lecture hall and into the foyer to argue with each other about their favorite theories of quasars. Others, less polite, remained seated in the hall and argued in whispers. Many of the rest catnapped in a fruitless effort to remedy their sleep deficits from late night science. Only a handful of relativists listened, with rapt attention. This was more than Achilles Papapetrou, one of the world's leading relativists, could stand. As Kerr finished, Papapetrou demanded the floor, stood up, and with deep feeling explained the importance of Kerr's feat. He, Papapetrou, had been trying for thirty years to find such a solution of Einstein's equation, and had failed, as had many other relativists. The astronomers and astrophysicists nodded politely, and then, as the next speaker began to hold forth on a theory of quasars, they refocussed their attention and the meeting picked up pace."
  5. Further see, Roy P. Kerr (2007): "Discovering the Kerr and Kerr-Schild metrics" arXiv:0706.1109
  6. Ewald, P. P. (১৯৭৭)। "For Achille Papapetrou"। General Relativity and Gravitation8 (8): 539–540। ডিওআই:10.1007/BF00756303বিবকোড:1977GReGr...8..539E 
  7. Stachel, J. (১৯৭৭)। "Achille Papapetrou"। General Relativity and Gravitation8 (8): 541–543। ডিওআই:10.1007/BF00756304বিবকোড:1977GReGr...8..541S 
  8. Papapetrou, A. N. (1935). "Untersuchungen über dendritisches Wachstum von Kristallen", Pries., Zeitschrift für Kristallographie, 92 (1/2), 89-129.
  9. Stachel, J. (১৯৯৮)। "Achilles Papapetrou"। Physics Today51 (12): 74। ডিওআই:10.1063/1.882468অবাধে প্রবেশযোগ্যবিবকোড:1998PhT....51l..74S  Obituary

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]