অপ্রাকৃতিক যৌনসঙ্গম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

অপ্রাকৃতিক যৌনসঙ্গম বলতে এমন যৌনমিলন বোঝায় যার মাধ্যমে প্রজনন সম্ভব নয়। প্রধানতঃ পায়ূমৈথুনমুখমৈথুন অপ্রাকৃতিক যৌনসঙ্গম হিসেবে পরিগণিত। ১৮৬০ সালে ভারতে ব্রিটিশ শাসনামলে যে দণ্ড বিধি প্রণয়ন ও বলবৎ করা হয় তার ৩৭৭ ধারায় অপ্রাকৃতিক যৌনসঙ্গমকে শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। এ হেন যৌনকর্মকে বাইবেল এ অপ্রাকৃতিক বা প্রকৃতি-বিরূদ্ধ হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। ১৯৪৭ এ ভারত স্বাধীন হলে এই আইন বলবৎ ও কার্যকর থাকে। অদ্যাবধি এই আইন কার্যকর রয়েছে।

সমকামীরা এই আইন রদ করার জন্য দাবী করে চলেছে। সমকামী পুরুষ একে অপরের মলদ্বারে লিঙ্গ প্রবিষ্ট করে জৈবিক কামনা চরিতার্থ করে। এই আইনের অর্থাৎ ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারার ভাষ্য অনুযায়ী সমকাম এক প্রকার অপ্রাকৃতিক যৌনসঙ্গম এবং এ কারণে এটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ। আইনটিতে বস্তুতঃ পুরুষে-পুরুষে পায়ূমৈথুনকে নিষিদ্ধ এবং দণ্ডযোগ্য অপরাধ গণ্য করা হয়েছিল। অপরাধটি ছিল জামিন অযোগ্য। আদালতে প্রমাণিত হলে সমকামের সর্বোচ্চ সাজা ছিল যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। অপরাধ হয়েছে কিনা তার নিয়ামক কেবল লিঙ্গ প্রবিষ্টকরণ। এর মাধ্যমে বীর্যস্খলন আবশ্যিক শর্ত নয়।

স্বীয় স্ত্রীর সঙ্গে পায়ূমৈথুন অপ্রাকৃতিক বিধায় এই আইনের আওতায় শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য। এখানে পারস্পরিক সম্মতি কোনো নির্ণায়ক নয় কেননা এই অপরাধ রাষ্ট্রের বিরূদ্ধে সংঘটিত। পায়ূমৈথুন ছাড়াও বিপরীত লিঙ্গ বা অভিন্ন লিঙ্গের সঙ্গীর বা সঙ্গিনীর মুখে বা মুখগহ্বরে মৈথুন অপ্রাকৃতিক বিধায় ভারতীয় দণ্ডবিধির ৩৭৭ ধারাযর ভাষ্য অনুযায়ী শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

বাইবেলকুরআন এর ভাষ্য অনুযায়ী পৃথিবীতে প্রথম সমকামের উদ্ভব ঘটে আল্লাহ’র রাসুল হয়রত ইব্রাহিমের আমলে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]