অজ্ঞাতমূল শব্দ (ব্যাকরণ)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন

বাংলা ভাষার শব্দভাণ্ডার তৎসম,অর্ধতৎসম,তদ্ভব, দেশি ও বিদেশি শব্দের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে। কিন্তু এমন অনেক শব্দ রয়েছে যার মূল নির্ণয় করা সম্ভব হয়নি অর্থাৎ তা দেশি না বিদেশি শব্দ থেকে আগত নাকি আংশিক পরিবর্তিত হয়েছে; কোনো কিছুই সঠিকভাবে বলা যায় না। এদের বাংলা ভাষার পণ্ডিতগণ অজ্ঞাতমূল শব্দ রূপে চিহ্নিত করেছেন।

সারণি[সম্পাদনা]

কতিপয় চিহ্নিত অজ্ঞাতমূল শব্দ হলো[১]

অজ্ঞাতমূল শব্দ শব্দার্থ
উশো বর্ধকীদের ব্যাবহার্য পলস্তারা সমান করার কাষ্ঠনির্মিত যন্ত্র[২]
কৈলু বৃক্ষবিশেষ[৩]
খনা নাকি সুরে কথা বলা[৪]
খিচক দূরে, পার্থক্য
খুনসুটি/খুনসুড়ি কৃত্রিম বিবাদ[৫]
গরদ এক প্রকার রেশমি কাপড়[৬]
গরান বৃক্ষবিশেষ[৭]
গিরিম্বারি লম্ফ ঝম্প, আস্ফালন[৮]
গোরাপ এক জাতীয় নৌকা[৯]
গ্রাবু তাসখেলা বিশেষ[১০]
ছিপি কর্ক, বোতলের মুখ
জাংড়া অশ্বারোহী
জাঙ্গি কালো রঙের হরীতকীবিশেষ
জুম পাহাড় কেটে চাষের পদ্ধতিবিশেষ
জেবলি ফুলবিশেষ
ঝাটল ঘণ্টা পাটল গাছ
টুপা জলের পাত্র
ডুলিকা খঞ্জন পাখির মতো আকার বিশিষ্ট পাখি
ডেকুরা কুঁড়েঘর
ঢেউ তরঙ্গ
তাঁই উপস্থিত
দাঁড়িকা ছোটমাছ বিশেষ
দিস প্রকার
দুর্পিটা উত্তপ্ত লাল লৌহে হাতুড়ির আঘাতে যে অগ্নিময় ময়লা ছিটকে পড়ে, লৌহজাল
দোমালা অর্ধপক্ব নারিকেল
দোরমা পটলের ব্যঞ্জনবিশেষ
ধানাইপানাই অসংঘবদ্ধ কথা
নটকনা,নটকান বাসন্তী রং,এক প্রকার গাছ বা তার বীজ[১১]
নর্কু চতুরঙ্গ জাতীয় খেলাবিশেষ
নিদেন লাঙলের মুড়ার উপরে ধরার কাঠ দণ্ড[১২]
নেড়ড়ি গেড়ড়ি বোচকাবুচকি[১৩]
পারশে,পার্শে মৎস্য বিশেষ[১৪]
পেনেট গৌরীপট্ট,তার উপর শিবলিঙ্গ স্থাপন করা যায়[১৫]
বকৌলি বন্যা[১৬]
বসিধ দূত, বার্তাবাহক[১৭]
ভাগাড় মৃত গরু-মহিষাদি ফেলার নির্দিষ্ট স্থান, পতিত ভূমি[১৮]
মসীন অত্যাচার[১৯]
মাইপোশ:(মাইপোষ নয়),মাইকোশ গুপ্ত বাক্স সহ তক্তাপোশ[২০]
মুকেরি মধ্যযুগে বাংলার মুসলিম সম্প্রদায়বিশেষ[২১]
মুরি নালা,জলনালি, নর্দমা[২২]
মেঠে ধাতুনির্মিত বালা,কড়া[২৩]
লদপদ লুটানো, শুয়ে পড়া[২৪]
লম্পটি-ঝম্পটি("ঝম্পটি" অংশটুকু অনুকারজাত, তবে এই পুরো শব্দ অজ্ঞাতমূল হওয়ার চেয়ে ধ্বন্যাত্মক হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল) হাবুডুবু খাওয়া[২৫]
সতবর্গ ফুলবিশেষ[২৬]
সলুপা,সুলফা শাকবিশেষ[২৭]
সাওকুড়ি,সাওকুড়ী মাতব্বরি[২৮]
সুন্দা এক ধরনের মশলা[২৯]
সুন্দি,সুন্ধি শ্বেতপদ্ম, কুমুদ ফুল[৩০]
সেগো,সেঙো (অশ্লীল) শিশ্ন,স্ত্রীচিহ্ন[৩১]
হটকা দীর্ঘ, লম্বা[৩২]
হড়পা নদীতে হঠাৎ যে বানের আবির্ভাব হয়[৩৩]
হাকিক এক প্রকার মূল্যবান প্রস্তর[৩৪]
হাবিজাবি আজেবাজে[৩৫]
হিবাচী চুল্লি,হাঁপর[৩৬]
হেঁজিপেজি তুচ্ছ, নগণ্য, সামান্য,অখ্যাত[৩৭]
হ্যাজাক অধিকতর উজ্জ্বল আলোড়নকারী বাতিবিশেষ[৩৮]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

•অধিকাংশ অজ্ঞাতমূল শব্দ বহুল ব্যবহৃত নয়।

•আভিধানিক চিহ্ন-অমূ।

•সারণিতে বিদ্যমান কিছু শব্দ শুধুমাত্র মধ্যযুগীয় বাংলায় পাওয়া যায়।যেমন:সলুপা, মুকেরি

•কোনো কোনো অজ্ঞাতমূল শব্দ কথ্য বা লেখ্য ভাষায় ব্যবহৃত না হওয়া সত্ত্বেও সাহিত্যে ব্যবহারে উৎকর্ষ লাভ করেছে। যেমন:সুন্দা,সুন্দি[৩৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ১১২,১৭৪,২৮৯ ইত্যাদি। 
  2. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১৭৪। 
  3. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ২৮৯। 
  4. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৩০৯। 
  5. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৩২৬। 
  6. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৩৪৫। 
  7. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৩৪৬। 
  8. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৩৫৭। 
  9. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৩৭৪। 
  10. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৩৭৮। 
  11. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৬৫৮। 
  12. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ৬৮৪ পৃষ্ঠা। 
  13. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ৭০৩ পৃষ্ঠা। 
  14. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ৭৪৮ পৃষ্ঠা। 
  15. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ৭৬৮ পৃষ্ঠা। 
  16. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমী। পৃষ্ঠা ৮২০। 
  17. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৮৪১। 
  18. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৯২২। 
  19. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৯৬১। 
  20. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৯৬৮। 
  21. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৯৮৮। 
  22. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৯৯৩। 
  23. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ৯৯৬। 
  24. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১০৪৮। 
  25. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১০৪৯। 
  26. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১০৯। 
  27. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১৩৪। 
  28. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১৩৭। 
  29. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১৫৯। 
  30. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১৫৯। 
  31. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১৭০। 
  32. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১৯১। 
  33. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১১৯১। 
  34. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। 
  35. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১২০৪। 
  36. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১২০৯। 
  37. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। পৃষ্ঠা ১২১৪। 
  38. ব্যবহারিক বাংলা অভিধান। ঢাকা: বাংলা একাডেমি। 
  39. ,, জসীমউদ্দীন। নকশী কাঁথার মাঠ