ডেসমন্ড টুটু

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সর্বাধিক শ্রদ্ধেয়
ডেসমন্ড টুটু
কেপ শহরের প্রধান ধর্মযাজক Emeritus
Desmond tutu 20070607 2.jpg
প্রদেশ দক্ষিণ আফ্রিকার অ্যালিকেন চার্চ
দেখুন কেপ টাউন (অবসরপ্রাপ্ত)
Installed ১৯৮৬
Term ended ১৯৯৬
পূর্ববর্তী Philip Welsford Richmond Russell
পরবর্তী Njongonkulu Ndungane
অন্যান্য পোস্ট লেসেথোর বিশপ
জোহানেসবার্গের বিশপ
কেপ শহরের প্রধান ধর্মযাজক
আদেশ
বিন্যাস যাজক হিসেবে ১৯৬০
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম (১৯৩১-১০-০৭) ৭ অক্টোবর ১৯৩১ (বয়স ৮৩)

ডেসমন্ড টুটু বা ডেসমন্ড পিলো টুটু (ইংরেজি: Desmond Mpilo Tutu; জন্ম: ৭ অক্টোবর, ১৯৩১) একজন দক্ষিণ আফ্রিকান ধর্মযাজক ও অধিকার আন্দোলন কর্মী। এইডসযক্ষ্মা প্রতিরোধে তিনি অবিস্মরণীয় ভূমিকা রাখছেন। এছাড়াও, দারিদ্রতা, বর্ণবাদ, যৌনতা ইত্যাদি বিরোধী প্রচারণায় তাঁর ভূমিকা প্রশংসনীয়।

১৯৮৪ সালে তিনি নোবেল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত হন। ১৯৯৯ সালে সিডনী শান্তি পুরস্কারসহ ২০০৭ সালে গান্ধী শান্তি পুরস্কার লাভ করেন তিনি।[১]

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

তাঁর জন্ম ১৯৩১ সালের ৭ই অক্টোবর দক্ষিণ আফ্রিকার ট্রান্সভালের ক্লের্কড্রপ। লন্ডনের কিংস কলেজ থেকে (১৯৬২-৬৬) ধর্মতত্ত্বে উচ্চতর ডিগ্রী লাভ করলেন টুটু। তারপর দক্ষিণ আফ্রকায় ফিরে আসেন; এবং ধর্মতত্ত্ব পড়াতে যোগ দেন বিশ্ববিদ্যালয়ে। এরপর ধীরে ধীরে দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবৈষম্য বিরোধী আন্দোলনে নিজেকে জড়িয়ে ফেলেন টুটু। দক্ষিণ আফ্রিকায় বর্ণবাদ নিরসনে তাঁর বিশাল অবদান রয়েছে।

পুরস্কার ও সম্মাননা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

  • Shirley du Boulay, Tutu: Voice of the Voiceless (Eerdmans, 1988).
  • Michael J. Battle, Reconciliation: The Ubuntu Theology of Desmond Tutu (Pilgrim Press, 1997).
  • Steven D. Gish, Desmond Tutu: A Biography (Greenwood, 2004).
  • David Hein, "Bishop Tutu's Christology." Cross Currents 34 (1984): 492-99.
  • David Hein, "Religion and Politics in South Africa." Modern Age 31 (1987): 21-30.
  • John Allen, Rabble-Rouser for Peace: The Authorised Biography of Desmond Tutu (Rider Books, 2007).

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

Golden Key International Honour Society *www.goldenkey.org