বহু-পৃথিবী ব্যাখ্যা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Many-worlds interpretation থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
বহু-বিশ্বের ব্যাখ্যা অনুসারে কোয়ান্টাম-মেকানিক্স এর "শ্রোডিঙ্গারের বিড়াল " উপপাদ্য । এই ব্যাখ্যায় প্রতিটি ঘটনা একটি শাখা বিন্দু; বাক্সটি খোলার আগে বিড়ালটি একই সাথে জীবন্ত এবং মৃত , তবে "জীবিত" এবং "মৃত" বিড়ালগুলি মহাবিশ্বের ভিন্ন ভিন্ন শাখায় রয়েছে, উভয়ই সমান বাস্তব, কিন্তু এরা একে অপরের সাথে মিথস্ক্রিয়া করে না। [১]

বহুবিশ্বের ব্যাখ্যা ( এমডাব্লুআই ) হচ্ছে কোয়ান্টাম মেকানিক্সের এমন একটি ব্যাখ্যা যা সর্বজনীন তরঙ্গ ফাংশনের(universal wavefunction) বস্তুনিষ্ঠ বাস্তবতাকে দৃঢ়ভাবে প্রমাণ করে এবং তরঙ্গ ফাংশনের পতনের (wavefunction collapse)বাস্তবতাকে অস্বীকার করে। অনেকগুলো বিশ্বের ধারণা কোয়ান্টাম তত্ত্ব এবং পুরো পদার্থবিজ্ঞানের জগত থেকেই যদৃচ্ছতা(randomness) এবং দূরক্রিয়ার(action at a distance) ধারনাকে অপসারণ করা সম্ভবপর করে তোলে। বহু-জগত বোঝায় যে সব ধরনের সম্ভাব্য বিকল্প অতীত এবং ভবিষ্যৎই বাস্তব, যাদের প্রতিটিই একেকটি "বিশ্ব" (বা "মহাবিশ্ব") উপস্থাপন করে। সহজ ভাষায়, উপরিউক্ত অনুকল্প(hypothesis) অনুসারে — অনেক,অনেক — সম্ভবত অসীম [২] সংখ্যক মহাবিশ্ব রয়েছে , এবং এমন সব ঘটনা যেগুলো আমাদের অতীতে ঘটতে পারত, কিন্তু ঘটে নি, তা অন্য একটি বা একাধিক মহাবিশ্বের অতীতে ঘটেছিল। এই তত্ত্বকে আপেক্ষিক অবস্থা গঠন(relative state formulation), এভারেট ব্যাখ্যা (এর স্রষ্টা, মার্কিন-আমেরিকান পদার্থবিজ্ঞানী হিউ এভারেটের নামানুসারে ), সর্বজনীন তরঙ্গ ফাংশন তত্ত্ব, বহু-মহাবিশ্বের ব্যাখ্যা, মাল্টিভার্স তত্ত্ব বা কেবল বহু-বিশ্ব হিসাবেও অভিহিত করা হয়।

মূলতঃ আপেক্ষিক অবস্থা গঠনের ধারণাটি হিউ এভারেট 1957 সালে প্রদান করেন। [৩] [৪] পরবর্তীতে 1960 এবং 1970-এর দশকে এই ধারণাটি বহুবিশ্ব তত্ত্ব নামে জনপ্রিয় হয়ে ওঠেব্রাইস সেলিগম্যান ডিউইট এর দৌলতে। [১] [৫] [৬] [৭] কোয়ান্টাম তত্ত্বকে ব্যাখ্যা করার ক্ষেত্রে কোয়ান্টাম অসঙ্গতির( Quantum Decoherence ) পন্থাগুলি আরও অন্বেষিত ও বিকাশিত হয়েছে, [৮] [৯] [১০] যেগুলো বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এমডাব্লুআইআই পদার্থবিজ্ঞান এবং দর্শনের অনেকগুলি মাল্টিভার্স অনুমানের(multiverse hypotheses) মধ্যে একটি। এটি বর্তমানে অন্যান্য কোয়ান্টাম অসঙ্গতির ব্যাখ্যাসমূহ, পতনের(collapse theories) তত্ত্বসমূহ ( ঐতিহাসিক কোপেনহেগেন ব্যাখ্যা(Copenhagen interpretation),) সহ), [১১] এবং বোহমিয়ান মেকানিক্সের(Bohmian mechanics) মতো গুপ্ত চলক তত্ত্বগুলির(hidden variable theories) সাথে এটি মূলধারার ব্যাখ্যা হিসাবে বিবেচিত হয়।

বহু-জগতের আগে বাস্তবতা সবসময়ই একটি একক প্রকাশিত ইতিহাস হিসাবে দেখা হত। বহু-জগত ধারণা ঐতিহাসিক বাস্তবতাকে বহু শাখাবিশিষ্ট গাছের মতো চিন্তা করে , যেখানে প্রতিটি সম্ভাব্য কোয়ান্টাম ফলাফলকে হিসাবে নেওয়া হয়। [১২] বহুবিশ্ব কোয়ান্টাম পদার্থবিজ্ঞানের সম্পূর্ণ নিশ্চয়তাবাদী(deterministic) সমীকরণসমূহের সাথে এলোমেলো তেজস্ক্রিয় ক্ষয়ের(random radioactive decay) মতো ঘটনাগুলোর পর্যবেক্ষণ হতে প্রাপ্ত অনিশ্চয়তাবাদী(non-deterministic) ফলাফলগুলোর মধ্যে যোগসূত্র স্থাপন করে।

বহুবিশ্বে কোয়ান্টাম অসঙ্গতির প্রক্রিয়া দ্বারা তরঙ্গ পতনের বিষয়গত উপস্থিতিকে ব্যাখ্যা করা হয়েছে, এবং যেহেতু প্রতিটি ঘটনা বা ইভেন্টেরই প্রতিটি সম্ভাব্য ফলাফল তার নিজস্ব "ইতিহাস" বা "বিশ্বে" সংজ্ঞায়িত বা উপস্থিত থাকে, তাই এটি কোয়ান্টাম তত্ত্বের সমস্ত পারস্পরিক সম্পর্কের প্যারাডক্স (যেমন ইপিআর প্যারাডক্স [১৩] [১৪] এবং "শ্রোডিঙ্গারের বিড়াল") সমাধানের উপায় বাতলে দেয় , [১]

উৎস[সম্পাদনা]

১৯৫২ সালে এরউইন শ্রোডিঙ্গার ডাবলিনে একটি বক্তৃতা দিয়েছিলেন, যেখানে এক পর্যায়ে তিনি হাস্যকরভাবে তাঁর শ্রোতাদের সতর্ক করে দিয়েছিলেন যে তিনি যা বলতে যাচ্ছেন তা সম্ভবত "পাগলাটে বলে মনে হতে পারে"। তিনি জোর দিয়ে বলেন যে, যে সমীকরণ তাকে নোবেল পুরষ্কার জিতিয়েছে— যদিও মনে হতে পারে সেটা ভিন্ন ভিন্ন সময়ের ইতিহাসকে বিবৃত করছে, সেগুলি "ভিন্ন ভিন্ন সময়ের নয় বরং সবগুলি ইতিহাস একই সাথে ঘটে" ।এটিই ,জানা মতে ,বহু-জগতের সর্বপ্রথম রেফারেন্স। [১৫] [১৬]

রূপরেখা[সম্পাদনা]

যদিও হিউ এভারেটের পরে বহু-জগত ধারণার কতকগুলো সংস্করণ প্রস্তাব করা হয়েছে , [৪] কিন্তু তাদের সকলেরই একটি মাত্র মূল ধারণা রয়েছে: পদার্থবিজ্ঞানের যেসকল সমীকরণ কোন পর্যবেক্ষকবিহীন সিস্টেমের সময় বিবর্তন মডেল করতে পারে, সেগুলো পর্যবেক্ষকযুক্ত সিস্টেমসমূহের মডেলিং এর জন্য যথেষ্ট ; বিশেষত এমন কোনও পর্যবেক্ষণনির্ভর তরঙ্গ ফাংশন পতন নেই যা কোপেনহেগেন ব্যাখ্যা কর্তৃক প্রস্তাবিত।যদি এই তত্ত্বটির সাথে তরঙ্গ ফাংশনের সম্পর্ক রৈখিক হয়ে থাকে,তাহলে মডেলকৃত কোয়ান্টাম ডায়নামিক্সের সঠিক রূপ — এটি আপেক্ষিক শ্রোডিঞ্জার সমীকরণ, আপেক্ষিক কোয়ান্টাম ফিল্ড তত্ত্ব বা কোয়ান্টাম মাধ্যাকর্ষণ বা স্ট্রিং তত্ত্বের কোনও রূপই হোক, এমডাব্লুআইয়ের বৈধতাকে বাতিল করে না। এর কারণ হচ্ছে এমডব্লিউআই সকল রৈখিক কোয়ান্টাম তত্ত্বের জন্য প্রযোজ্য একটি মেটাথিওরি এবং পদার্থবিজ্ঞানে তরঙ্গফাংশন অ-রৈখিক হওয়ার কোন পরীক্ষামূলক প্রমাণ নেই। [১৭] [১৮] এমডব্লিউআই এর মূল উপসংহারটি হল মহাবিশ্ব (বা আরও ভালো করে বললে মাল্টিভার্স ) অনেকগুলো, এমনকি সম্ভবত অগণিত অসীম [২] সংখ্যক ক্রমাগত দূরে সরে যেতে থাকা পারস্পরিক সংযোগবিহীন সমান্তরাল মহাবিশ্ব বা কোয়ান্টাম বিশ্বসমূহের কোয়ান্টাম সুপারপজিশন দ্বারা গঠিত।[৭]

এমডাব্লুআইয়ের ধারণাটির উত্স এভারেটের প্রিন্সটন পিএইচডি থেকে হয়েছিল in থিসিস "থিওরি অফ ইউনিভার্সাল ওয়েভফংশন ", [৭] তাঁর থিসিস উপদেষ্টা জন আর্কিবাল্ড হুইলারের অধীনে বিকশিত হয়েছিল, এর একটি সংক্ষিপ্ত সংক্ষিপ্তসার প্রকাশিত হয়েছিল ১৯ "7 সালে "কোয়ান্টাম মেকানিক্সের রিলেটিভ স্টেট ফর্মুলেশন" শিরোনামে (হুইলারের "আপেক্ষিক রাষ্ট্র" উপাধি অবদান; [১৯] এভারেট মূলত তার পদ্ধতির নামটিকে "সম্পর্ক সম্পর্কিত ব্যাখ্যা" বলেছিলেন, যেখানে "পারস্পরিক সম্পর্ক" কোয়ান্টাম জড়িয়ে পড়াকে বোঝায়)। "বহু-জগত" বাক্যটি ব্রাইস ডিউইটের কারণে, [৭] যিনি এভারেটের তত্ত্বের ব্যাপক জনপ্রিয়তার জন্য দায়বদ্ধ ছিলেন, যেটি প্রকাশের পরে প্রথম দশকে বেশিরভাগভাবে উপেক্ষা করা হয়েছিল। ডিউইট-এর "বহু-জগতের" বাক্যটি এভারেটের "ইউনিভার্সাল ওয়েভফংশন" বা এভারেট-হুইলারের "সম্পর্কিত রাষ্ট্র সূত্র" এর চেয়ে অনেক বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে যে অনেকে ভুলে যায় যে এটি কেবলমাত্র পরিভাষার একটি পার্থক্য; এভারেটের দুটি কাগজপত্র এবং ডিউইট-এর জনপ্রিয় নিবন্ধের বিষয়বস্তু একই।

ধারাবাহিক বিভাজন সহ ক্রমাগত পরিমাপ
  1. Bryce Seligman DeWitt, Quantum Mechanics and Reality: Could the solution to the dilemma of indeterminism be a universe in which all possible outcomes of an experiment actually occur?, Physics Today, 23(9) pp 30–40 (September 1970) "every quantum transition taking place on every star, in every galaxy, in every remote corner of the universe is splitting our local world on earth into myriads of copies of itself." See also Physics Today, letters followup, 24(4), (April 1971), pp 38–44
  2. Osnaghi, Stefano; Freitas, Fabio (২০০৯)। "The Origin of the Everettian Heresy" (PDF): 97–123। CiteSeerX 10.1.1.397.3933অবাধে প্রবেশযোগ্যdoi:10.1016/j.shpsb.2008.10.002 
  3. Hugh Everett Theory of the Universal Wavefunction, Thesis, Princeton University, (1956, 1973), pp 1–140
  4. Everett, Hugh (১৯৫৭)। "Relative State Formulation of Quantum Mechanics": 454–462। doi:10.1103/RevModPhys.29.454। ২০১১-১০-২৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-১০-২৪ 
  5. Cecile M. DeWitt, John A. Wheeler eds, The Everett–Wheeler Interpretation of Quantum Mechanics, Battelle Rencontres: 1967 Lectures in Mathematics and Physics (1968)
  6. Bryce Seligman DeWitt, The Many-Universes Interpretation of Quantum Mechanics, Proceedings of the International School of Physics "Enrico Fermi" Course IL: Foundations of Quantum Mechanics, Academic Press (1972)
  7. Bryce Seligman DeWitt, R. Neill Graham, eds, The Many-Worlds Interpretation of Quantum Mechanics, Princeton Series in Physics, Princeton University Press (1973), ISBN 0-691-08131-X Contains Everett's thesis: The Theory of the Universal Wavefunction, pp 3–140. উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ অবৈধ; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে "dewitt73" নাম একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  8. H. Dieter Zeh, On the Interpretation of Measurement in Quantum Theory, Foundations of Physics, vol. 1, pp. 69–76, (1970).
  9. Wojciech Hubert Zurek, Decoherence and the transition from quantum to classical, Physics Today, vol. 44, issue 10, pp. 36–44, (1991).
  10. Wojciech Hubert Zurek, Decoherence, einselection, and the quantum origins of the classical, Reviews of Modern Physics, 75, pp 715–775, (2003)
  11. The Many Worlds Interpretation of Quantum Mechanics[অকার্যকর সংযোগ]
  12. David Deutsch argues that a great deal of fiction is close to a fact somewhere in the so called multiverse, Beginning of Infinity, p. 294
  13. Bryce Seligman DeWitt, R. Neill Graham, eds, The Many-Worlds Interpretation of Quantum Mechanics, Princeton Series in Physics, Princeton University Press (1973), আইএসবিএন ০-৬৯১-০৮১৩১-X Contains Everett's thesis: The Theory of the Universal Wavefunction, where the claim to resolves all paradoxes is made on pg 118, 149.
  14. Hugh Everett, Relative State Formulation of Quantum Mechanics ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৭ অক্টোবর ২০১১ তারিখে, Reviews of Modern Physics vol 29, (July 1957) pp 454–462. The claim to resolve EPR is made on page 462
  15. David Deutsch. The Beginning of infinity. Page 310.
  16. Blincoe, Nicholas (২০১২-০৪-০৫)। "Erwin Schrödinger and the Quantum Revolution by John Gribbin: review"The Telegraph (ইংরেজি ভাষায়)। আইএসএসএন 0307-1235। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০২-১০ 
  17. Steven Weinberg, Dreams of a Final Theory: The Search for the Fundamental Laws of Nature (1993), আইএসবিএন ০-০৯-৯২২৩৯১-০, pg 68–69
  18. Steven Weinberg Testing Quantum Mechanics, Annals of Physics Vol 194 #2 (1989), pg 336–386
  19. John Archibald Wheeler, Geons, Black Holes & Quantum Foam, আইএসবিএন ০-৩৯৩-৩১৯৯১-১. pp 268–270