খলিলুল্লাহ খলিলি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(Khalilullah Khalili থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
খলিলুল্লাহ খলিলি
"দিওয়ান-ই খলিলুল্লাহ খলিলী" নামক গ্রন্থের কভার পৃষ্ঠায় খলিলুল্লাহ খলিলী
"দিওয়ান-ই খলিলুল্লাহ খলিলী" নামক গ্রন্থের কভার পৃষ্ঠায় খলিলুল্লাহ খলিলী
জন্ম১৯০৭
মৃত্যু১৯৮৭
ভাষাফার্সি nationality = আফগান
ধরনকাব্য
উল্লেখযোগ্য রচনাবলিহিরু অব খোরাসান

খলিলুল্লাহ খলিলি (১৯০৭-১৯৮৭; ফার্সি: خلیلالله خلیلی‎‎ - খলিল্লাহ খলিলি; অন্যান্য উচ্চারণ 'খালিলুল্লাহ, খলিল উল্লাহ) আফগানিস্তানের বিংশ শতাব্দির প্রধানতম কবি এবং উল্লেখযোগ্য ঐতিহাসিক, কূটনৈতিক এবং দেশের বিশ্বস্ত বন্ধু। শাস্ত্রীয় ফার্সি কবিদের মধ্যে তিনি শেষতম কবি এবং আফগাণ কবিগণের মধ্যে তিনিই প্রথম আফগান সাহিত্যে আধুনিক ফার্সি কাব্য এবং নিমাই ধরন নিয়ে আসেন। তিনি খোরাসানি ধরনেও অভিজ্ঞ ছিলেন এবং ফারুকী সিসতানির অনুসারী ছিলেন। আফগান কবিদের মধ্যে ইরানে একমাত্র তারই প্রচুর ভক্ত রয়েছে এবং সেখানে তার বেশকিছু নির্বাচিত ইরানি ভাষায় প্রকাশিত হয়েছে। ইরানি সাহিত্যের নামকরা সাহিত্যিক এবং বুদ্ধিজীবিগণ তার রচনাগুলোর প্রশাংসা করেছেন। অনেকেই তাকে আফগানিস্তানের ফার্সি ভাষার সবচেয়ে উচুঁমানের সমসাময়িক কবি হিসেবে বিবেচনা করেন। তিনি "হিরু অব খোরাসান", আফগানিস্তানের আমির হাবিবুল্লাহ কালাকানির বিতকিত র্জীবনী, নামক জীবনী গ্রন্থের জন্যও তিনি অধিক পরিচিত।

জীবনী[সম্পাদনা]

খলিলি আফগানিস্তানের [[কাবুল প্রদেশ|কাবুল প্রদেশে ১৯০১ খ্রিষ্টাব্দে জন্মগ্রহণ করেন[১] এবং হাবিবুল্লাহ কালাকানি যে গ্রমে জন্মেছেন তিনিও সেখানে জন্মগ্রহণ করেন।[২] তিনি একচেটিয়াভাবে ফার্সি ভাষায় সাহিত্য রচনা করেছেন এবং মাঝে মধ্যে তিনি তাজিক জাতীয়তাবাদ ধারণার সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি পশতু সাফি জাতিভুক্ত ছিলেন।[৩] তার পিতা, মিজা মুহাম্মদ হুসেইন খান, রাজা হাবিবুল্লাহ খানের অর্থ মন্ত্রী ছিলেন এবং কাবুলজালালাবাদে তার নিজস্ব বাসভবন ছিল, কিন্তু পরবর্তীতে তিনি পদচ্যুত হন এবং আমানুল্লাহ খান, হাবিবুল্লাহ খানের পুত্র এবং উত্তরসূরী, কর্তৃক মৃত্যুদন্ড প্রদান করা হয়।[১] তার মাতা আব্দুল কাদির খানের, আঞ্জলিক সাফি গোত্রের নেতা, কন্যা ছিলেন খলিলির বয়স যখন সাত বছর তথন তার মাতা মারা যান।

খলিলি ১১ বছর বয়স পর্যন্ত কাবুলে বসবাস এবং পড়ালেখা চালিয়ে যান। যখন হাবিবুল্লাহ খান, আফগানিস্তানের রাজা, এর হত্যাকান্ডের পর, তার পুত্র আমানুল্লাহ খান তার পিতার শাসন ব্যবস্থা সংস্কার করেন এবং তার পিতার শাসন আমলের সময় নিয়োজিত খলিলির পিতাসহ অলেককেই গ্রেপ্তার করেন এবং মৃত্যুদন্ড প্রদান করেন।

সাহিত্যকর্ম[সম্পাদনা]

খলিলুল্লাহ খলিলি বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী কবি ছিলেন। তিনি ৩৫ কাব্যগ্রন্থ প্রকাশ করেন যার মধ্যে তার বিখ্যাত সাহিত্য কর্ম "আসখা ওয়া হুনহা" (অশ্রু এবং রক্ত), সোভিয়েত দখলদারিত্বের সময় লিখিত, এবং "আয়ার-ই আয হোরাসান" (হিরু অব হোরসান")ও রয়েছে। কিছু নির্বাচিত চতুষ্পদী শ্লোক[৪] এবং সম্প্রতী প্রকাশিত “পোকা-মাকড়ের সমাবেশ”,[৫] ব্যতীত তার অধিকাংশ সাহিত্যকর্ম সর্ম্পকে ইংরেজী সাহিত্যের পাঠকগণ অবহিত ছিলেন না।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. L.R. Reddy, Inside Afghanistan: End of Taliban Era, APH Publishing Corporation, 2002, p. 74
  2. David B. Edwards, Before Taliban, University of California Press, 2002, p. 312
  3. Lynch, Stephen (2003) "Tulips in a Minefield" Afghan Relief p.3 ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৪ জুলাই ২০১১ তারিখে, originally published, on 12 October 2003 in The Orange County Register, last accessed 17 January 2009
  4. Khalīlī, Khalīl Allāh (1981). Quatrains of Khalilullah Khalili, Octagon Press Ltd, London, আইএসবিএন ০-৮৬৩০৪-০৪২-X, OCLC 11289418
  5. Khalīlī, Khalīl Allāh (2004). An Assembly of Moths: Selected Poems of Khalilullah Khalili, Jayyad Pr., Delhi, OCLC 283802813

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]