২০০৯ বাংলাদেশ ফেরী দুর্ঘটনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
২০০৯ বাংলাদেশ ফেরী দুর্ঘটনা
BD Districts LOC.svg
বাংলাদেশের মানচিত্র
তারিখ৪ ডিসেম্বর ২০০৯
সময়সকালবেলা
অবস্থানদাইড়া নদী, মিঠামইন উপজেলা, কিশোরগঞ্জ জেলা, বাংলাদেশ
কারণসংঘর্ষ
অংশগ্রহণকারী১০০ যাত্রী এবং নাবিক
মৃত্যু৪৭

২০০৯ বাংলাদেশ ফেরী দুর্ঘটনা বাংলাদেশের কিশোরগঞ্জ জেলার মিঠামইন উপজেলায় দাইড়া নদীতে ৪ ডিসেম্বর সংগঠিত হয়। একটি যাত্রীবাহী খেয়া এবং একটি লঞ্চের মুখোমুখি সংঘর্ষের ফলে এই দুর্ঘটনা ঘটে। এতে কমপক্ষে ৪৭জন লোক প্রাণ হারায়। সকালবেলা নদী যখন কুয়াশাচ্ছন ছিল, তখন এই দুর্ঘটনা ঘটে।[১]

দুর্ঘটনা[সম্পাদনা]

স্থানীয় সময় সকাল ৯টার দিকে, রাজধানী শহর ঢাকা থেকে ১০০ কিলোমিটার দূরে দাইড়া নদী দিয়ে যাত্রা করার সময় ঘন কুয়াশার কারণে দৃষ্টিভ্রম হয়ে ইঞ্জিনচালিত লঞ্চের সাথে সংঘর্ষ করার ফলে দুর্ঘটনা ঘটে। এই দুর্ঘটনার মাত্র এক সপ্তাহ পূর্বে বাংলাদেশে আরেকটি ফেরী দুর্ঘটনা ঘটে, যাতে অন্ততপক্ষে ৮৫ জন নিহত হয়।[২]

উদ্ধার কার্য[সম্পাদনা]

কিশোরগঞ্জ জেলার পুলিশ প্রধান, আনোয়ার হোসাইন, মন্তব্য করেন যে হতাহতের মধ্যে বেশীরভাগই নারী এবং শিশু ছিল এবং ঢাকা থেকে বিশেষজ্ঞ ডুবুরীদল সম্পূর্ণরূপে অনুসন্ধান চালিয়ে আরো ৪৬টি দেহ পুনরুদ্ধার করে। তিনি মিডিয়া বিবৃতিতে জানান যে ৮জন লোক খুঁজে পাওয়া ব্যতীত এই উদ্ধার কার্যক্রম শুক্রবার সন্ধ্যায় শেষ হয়।[৩] বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী, শেখ হাসিনা, স্বজন হারানো পরিবারের সদস্যদের সমবেদনা জানান।[২]

কারণ[সম্পাদনা]

শাহ কামাল, কিশোরগঞ্জ জেলার প্রধান সরকারি অফিসার সকালের কুয়াশার জন্য বৈরী অবস্থাকে দায়ী করেন এবং এই ঘটনার জন্য চালকের ত্রুটিও উল্লেখ করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

স্থানাঙ্ক: ২৫°৫৩′৫৬″ উত্তর ৮৯°০১′৫৪″ পূর্ব / ২৫.৮৯৮৮৫৮° উত্তর ৮৯.০৩১৬৫৮° পূর্ব / 25.898858; 89.031658