১২বি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
১২বি
১২বি চলচ্চিত্রের ডিভিডি প্রচ্ছদ.jpg
ডিভিডি প্রচ্ছদ
পরিচালকজীব
প্রযোজকবিক্রম সিং
রচয়িতাজীব
সুজাতা রঙ্গরজন
শ্রেষ্ঠাংশেশাম
সিমরান
জ্যোতিকা
বিবেক
মুনমুন সেন
সুনীল শেঠি
সুরকারহরিষ জয়রাজ
চিত্রগ্রাহকজীব
সম্পাদকবি লেনিন
ভি টি বিজয়ন
প্রযোজনা
কোম্পানি
ফিল্ম ওয়ার্ক্স
মুক্তি২৮ সেপ্টেম্বর ২০০১
দৈর্ঘ্য১৩০ মিনিট
দেশভারত
ভাষাতামিল

১২বি (তামিল: 12 பி; বাংলা: ১২বি, একটি বাসের নম্বর) হচ্ছে ২০০১ সালে জীব দ্বারা পরিচালিত একটি তামিল ভাষার চলচ্চিত্র। চলচ্চিত্রটি বিক্রম সিং প্রযোজনা করেন এবং কাহিনী জীব এবং সুজাতা রঙ্গরজন লেখেন। চলচ্চিত্রটিতে শাম, জ্যোতিকা এবং সিমরান মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেন, শামের চলচ্চিত্র ক্যারিয়ার এই ১২বি দ্বারাই শুরু হয়েছিলো। চলচ্চিত্রটিতে এছাড়া বিবেক, মুনমুন সেন এবং একটি বিশেষ চরিত্রে হিন্দি চলচ্চিত্র অভিনেতা সুনীল শেঠি অভিনয় করেন। চলচ্চিত্রটির সঙ্গীত পরিচালনার দায়িত্বে ছিলেন হরিষ জয়রাজ, যিনি মিন্নালেতে সঙ্গীত পরিচালনার কারণে খ্যাতি লাভ করেছিলেন। ২০০১ সালের ২৮ সেপ্টেম্বর তারিখে ১২বি মুক্তি পায় এবং মোটামুটি ব্যবসা করে।[১][২][৩][৪][৫]

কাহিনীসংক্ষেপ[সম্পাদনা]

এই চলচ্চিত্রটি শক্তি নামের এক বেকার তরুনকে দিয়ে শুরু হয়, যে চাকরির ইন্টারভিউ দিতে যায় এবং রাস্তায় সে জ্যোতিকা 'জো' নামের এক মেয়েকে দেখে পছন্দ করে ফেলে কিন্তু তাকে পরক্ষণেই হারিয়ে ফেলে। সে মেয়েটিকে অনুসরণ করতে করতে বাস ধরতে ব্যর্থ হয়। চলচ্চিত্রটি এই পর্যায়ে শক্তির দুইরকম কাহিনী দেখায়, একবার দেখায় সে বাস মিস করে অফিসে দেরী করে পৌঁছায় এবং আরেকবার দেখায় যে সে বেবী ট্যাক্সিতে করে ঠিক সময়ে অফিসে পৌঁছে ইন্টারভিউ দেয় এবং চাকরি পেয়ে যায়।

যেই শক্তি ইন্টারভিউ পাশ করে চাকরি পেয়ে যায় সে প্রিয়া নামের এক সহকর্মীকে আবিষ্কার করে এবং তাকে পছন্দ করে ফেলে। অপরদিকে যে শক্তি বাস মিস করে সে জোকেই পছন্দ করতে থাকে এবং তার এক বন্ধু দ্বারা গাড়ি মেকানিকের কাজ করা শুরু করে। একদিন এই শক্তি আবার জো'র দেখা পায় রাস্তায়, এবং তার সঙ্গে বন্ধুত্ব করে ফেলে। শক্তি এবং জো পরস্পরের মধ্যে ভালো বন্ধুত্ব বানিয়ে ফেলে, জো'কে দেখার জন্য অরবিন্দ নামের এক লোক ওদের বাড়িতে আসে এবং দেখেই পছন্দ করে ফেলে আর বিয়ে করতে চায়।

কিছু সমস্যার কারণে জো এবং শক্তির সম্পর্ক ভেঙ্গে যায়। অপরদিকে যেই শক্তি অফিসে কাজ করে তাকে প্রিয়া প্রেমের প্রস্তাব দেয়। শক্তি একটি দূর্ঘটনায় পতিত হয়ে মারা যায়, অপরদিকে যে শক্তি মেকানিক সে জো'কে ভালোবাসার কথা বলার চেষ্টা করে। চাকরিজীবী শক্তি আর মেকানিক শক্তি দুইজনেই হাসপাতালে ভর্তি হয়।

চলচ্চিত্রটি শেষ হয় প্রিয়া চাকরিজীবী শক্তির মৃত্যুতে কাঁদছে এবং আরেক মেকানিক শক্তি জো'র পিছু নিচ্ছে।

অভিনয়ে[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]