হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন (চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন
হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন চলচ্চিত্রের প্রচ্ছদ.JPG
পরিচালকক্রিস কলম্বাস
প্রযোজকডেভিড হেয়ম্যান
রচয়িতাচিত্রনাট্য
স্টিভ ক্লোভস
উপন্যাস
জে. কে. রাউলিং
শ্রেষ্ঠাংশেড্যানিয়েল র‌্যাডক্লিফ
রুপার্ট গ্রিন্ট
এমা ওয়াটসন
রিচার্ড হ্যারিস
রোবি কলট্রেন
ম্যাগি স্মিথ
অ্যালান রিকম্যান
ইয়ান হার্ট
সুরকারজন উইলিয়ামস
চিত্রগ্রাহকজন সিল
সম্পাদকরিচার্ড ফ্রান্সিস-ব্রুস
প্রযোজনা
কোম্পানি
হেয়ডে ফিল্মস
পরিবেশকওয়ার্নার্স ব্রাদার্স
মুক্তি০৪ নভেম্বর ২০০১ (যুক্তরাজ্য)
১৬ নভেম্বর ২০০১ (যুক্তরাষ্ট্র)
দৈর্ঘ্য১৫২ মিনিট
দেশযুক্তরাজ্য
যুক্তরাষ্ট্র
ভাষাইংরেজি
নির্মাণব্যয়$১২৫ মিলিয়ন
আয়$৯৭৪,৭৩৩,৫৫০

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন, যুক্তরাষ্ট্রভারতে হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য সরসারার্স স্টোন,[১][২][৩] জে. কে. রাউলিং রচিত একই নামের একটি উপন্যাস অবলম্বনে ২০০১ সালে নির্মিত একটি ফ্যান্টাসি-অ্যাডভেঞ্চার চলচ্চিত্র। ক্রিস কলম্বাস পরিচালিত ছবিটি হ্যারি পটার চলচ্চিত্র সিরিজের প্রথম চলচ্চিত্র। ছবিটি প্রযোজনা করেন ডেভিড হেয়ম্যান এবং চিত্রনাট্য লিখেন স্টিভ ক্লোভস। চলচ্চিত্রটিতে হ্যারি পটার নামের একজন অনাথ বালকের কাহিনী বলা হয়েছে যে তার এগারতম জন্মদিনে জানতে পারে যে সে একজন জাদুকর এবং হগওয়ার্টস জাদু বিদ্যালয়ে ভর্তি হয়। চলচ্চিত্রটিতে হ্যারির চরিত্রে অভিনয় করে ড্যানিয়েল র‌্যাডক্লিফ, এবং হ্যারির দুই বন্ধু রন উইজলিহারমায়োনি গ্রেঞ্জার এর চরিত্রে অভিনয় করে রুপার্ট গ্রিন্টএমা ওয়াটসন। অন্যান্য অভিনয়শিল্পীদের মধ্যে রয়েছেন রিচার্ড হ্যারিস, রোবি কলট্রেন, ম্যাগি স্মিথ, অ্যালান রিকম্যান ও ইয়ান হার্ট।

ওয়ার্নার ব্রাদার্স ১৯৯৯ সালে চলচ্চিত্রটি নির্মাণের সত্ত্ব কিনে নেয়। এরপর ক্রিস কলম্বাসকে ছবিটির পরিচালক নির্বাচন করা হয়। ছবিটি নির্মাণের ব্যাপারে জে কে রাউলিং এর একটি শর্ত ছিল যে, ছবির কলাকুশলীদেরকে অবশ্যই ব্রিটিশ বা আইরিশ হতে হবে। বলাবাহুল্য, এই শর্ত অত্যন্ত কঠোরতার সাথে পালন করা হয়। যুক্তরাজ্যের লিভসডেন স্টুডিওতে ছবিটি চিত্রায়িত হয়।

২০০১ সালের নভেম্বর মাসে ছবিটি যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্রে মুক্তিলাভ করে। মুক্তি পাওয়ার পরপরই ছবিটি সারা বিশ্বে অভূতপূর্ব জনপ্রিয়তা অর্জন করে এবং বক্স অফিসে $৯৭৪ মিলিয়ন আয় করতে সক্ষম হয়। ছবিটি অস্কার সহ বিভিন্ন পুরস্কারের জন্য মনোনয়ন লাভ করে। এখন পর্যন্ত সর্বকালের সর্বোচ্চ আয়কারী চলচ্চিত্রসমূহের তালিকায় ফিলোসফার্স স্টোন অষ্টম স্থানে রয়েছে।

কাহিনী[সম্পাদনা]

মূল কাহিনীঃ হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য ফিলোসফার্স স্টোন

ছবির কাহিনী শুরু হয়, ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ কালো জাদুকর লর্ড ভলডেমর্ট এর পতনের মাধ্যমে। যে এক বছর বয়স্ক হ্যারির বাবা মাকে হত্যা করে এবং হ্যারিকে হত্যা করার চেষ্টার সময় রহস্যজনকভাবে উধাও হয়ে যায়। এর ফলে অনাথ হ্যারির জায়গা হয় তার খালা ও খালু পেতুনিয়া ও ভার্নন ডার্সলির পরিবারে। এগার বছর বয়সে হ্যারি হগওয়ার্টস স্কুল থেকে একটি চিঠি পায় এবং জানতে পারে যে সে একজন জাদুকর। অর্ধ দানব এবং হগওয়ার্টসের চাবি ও ভূমির রক্ষক রুবিয়াস হ্যাগ্রিড এর সহযোগিতায় হ্যারি স্কুলের জন্য প্রয়োজনীয় সবকিছু সংগ্রহ করে এবং হগওয়ার্টসে পৌঁছায়।

হগওয়ার্টসে হ্যারি গ্রিফিন্ডর হাউজের ছাত্র হিসেবে নির্বাচিত হয় এবং বুঝতে পারে যে, সে জাদুকরদের জগতে অত্যন্ত বিখ্যাত। সে রন উইজলিহারমায়োনি গ্রেঞ্জার এর সাথে ঘনিষ্ঠ বন্ধুত্ব গড়ে তোলে। তবে স্লিদারিন হাউজের ছাত্র ড্রেকো ম্যালফয় এর সাথে তার শত্রুতা গড়ে উঠে। সকল শিক্ষক হ্যারিকে পছন্দ করলেও একমাত্র পোশন বিষয়ের শিক্ষক সেভেরাস স্নেইপ হ্যারিকে অপছন্দ করত। এসময় ধীরে ধীরে হ্যারি তার বাবা মায়ের অতীত ইতিহাস সম্পর্কে জানতে থাকে। প্রথমবর্ষের ছাত্রছাত্রীদের কুইডিচ খেলা নিষিদ্ধ হলেও হ্যারি তার স্বীয় দক্ষতার গুণে গ্রিফিন্ডর হাউজের কুইডিচ টিমে সিকার (অন্বেষী) হিসেবে খেলার সুযোগ পায়।[৪]

এসময় হ্যারি জানতে পারে, কোন একজন গ্রিংগটস ব্যাঙ্কের পূর্বেই খালি করা একটি ভল্ট ভেঙ্গে ভিতরে প্রবেশ করে। এ রহস্য আরো ঘনীভূত হয় যখন তারা ফ্লাফি নামের তিন মাথাওয়ালা একটি কুকুরকে আবিষ্কার করে যেটি চতুর্থ তালার নিষিদ্ধ করিডোর পাহারা দিচ্ছে। হ্যালোইনের সময় একটি ট্রল স্কুলে ঢুকে পড়ে এবং ঘটনাক্রমে হারমায়োনিকে আক্রমণ করে। হ্যারি ও রন এ সময় তাকে উদ্ধার করে, কিন্তু প্রফেসর ম্যাকগোনাগলের কাছে ধরা পড়ে যায়। তবে হারমায়োনি সব দোষ নিজের বলে স্বীকার করে নেয়। এরপর থেকে তাদের মধ্যে বন্ধুত্ব আরো গভীর হয়।

স্লিদারিনদের বিপক্ষে হ্যারির প্রথম কুইডিচ ম্যাচে, হ্যারি তার ঝাড়ুর উপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলে। হারমায়োনি লক্ষ্য করে যে, স্নেইপ বিড়বিড় করে কিছু বলছে। সে স্নেইপের আলখাল্লায় আগুন লাগিয়ে দেয়। এ সুযোগে হ্যারি স্নিচটি ধরে ফেললে গ্রিফিন্ডর হাউজ জয়ী হয়।

ক্রিসমাস বা বড়দিনের সময় একজন অজানা ব্যক্তি হ্যারিকে তার বাবার অদৃশ্য হওয়ার আলখাল্লাটি পায়। এ সময় সে একটি পরিত্যক্ত রুমে এরিসেডের আয়না দেখতে পায়, যার মধ্যে মানুষের অন্তরের সবচেয়ে গভীর ইচ্ছা প্রতিফলিত হয়। হ্যারি তার মৃত বাবা মাকে এই আয়নায় দেখতে পায়। এদিকে, হ্যারি, রন ও হারমায়োনি নিকোলাস ফ্লামেল সম্পর্কে জানতে পারে। যিনি ফিলোসফার্স স্টোন বা পরশপাথরের স্রষ্টা। পরশপাথর হল এমন একটি পাথর যা যেকোন ধাতুকে সোনায় পরিণত করে এবং যা ব্যবহার করে এলিক্সির অফ লাইফ তৈরি করা যায়। তারা আরো জানতে পারে যে, এই পাথরটি হগওয়ার্টসে লুকানো আছে এবং ফ্লাফি এটিকে পাহারা দিচ্ছে। ভলডেমর্ট পুনরায় শক্তিশালী হয়ে ফিরে আসার জন্য পাথরটি চুরি করার চেষ্টা করছে।

হ্যারি তাৎক্ষণিকভাবে সন্দেহ করে যে, স্নেইপ ভলডেমর্টের জন্য পাথরটি চুরি করার প্রচেষ্টা চালাচ্ছে। এসময় হ্যারি ডিটেনশনের জন্য নিষিদ্ধ বনে যায় এবং দেখতে পায় যে, একটি কালো ছায়া একটি আহত ইউনিকর্নের রক্তপান করছে। ফিরেঞ্জ নামের একজন সেনট্যার জানায় যে, এই কালো ছায়াটি হচ্ছে ভলডেমর্ট। ভলডেমর্ট নিষিদ্ধ বনে ইউনিকর্নদের হত্যা করছে এবং এদের রক্ত পান করছে। কারণ ইউনিকর্নের রক্ত মানুষকে নিশ্চিত মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা করলেও তাকে সারাজীবনের জন্য অভিশপ্ত করে দেয়। ইউনিকর্নকে হত্যা করা একটি মারাত্মক অপরাধ। এ সময় হ্যাগ্রিড একটি ড্রাগনের ডিমের বিনিময়ে অসাবধানতাবশত একজন অপরিচিত আগন্তুকের নিকট পরশপাথরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা ভেদ করার উপায় ফাঁস করে দেয়। হ্যারি সন্দেহ করে, আগন্তুকটি ছিল স্নেইপ এবং সে অচিরেই পাথরটি চুরি করবে।

তাই হ্যারি পরশপাথরটি উদ্ধার করার সিদ্ধান্ত নেয়। সে, রন ও হারমায়োনি ফ্লাফিকে কৌশল অবলম্বন করার মাধ্যমে পরাস্ত করে, এরপর তারা একের পর এক বাঁধা পার হতে থাকে। হ্যারি যখন শেষ চেম্বারে পৌঁছায় তখন সে একা হয়ে পড়ে এবং স্নেইপকে নয়, বরং প্রফেসর কুইরেলকে দেখতে পায়। কুইরেল জানায় যে, হ্যালোইনের সময় ট্রলটিকে সেই ছেড়ে দিয়েছিল। কুইডিচ ম্যাচে স্নেইপ নয়, কুইরেলই হ্যারিকে হত্যার চেষ্টা করেছিল। বরং স্নেইপ হ্যারিকে রক্ষার চেষ্টা করেছিল। সে এরিসেডের আয়নাটি ব্যবহারের মাধ্যমে পরশপাথরটি হস্তগত করার চেষ্টা করে, কিন্তু ব্যর্থ হয়। এরপর কুইরেল হ্যারিকে আয়নাটির সামনে দাঁড়াতে বাধ্য করে, এ সময় ব্যাখ্যাতীতভাবে পাথরটি হ্যারির পকেটে চলে আসে। তারপর কুইরেল তার পাগড়িটি খুলে ফেললে, তার মাথার পিছনের দিকে ভলডেমর্টের মুখটি দেখা যায়। ভলডেমর্ট/কুইরেল হ্যারির কাছ থেকে পাথরটি নেওয়ার চেষ্টা করে, কিন্তু হ্যারিকে স্পর্শ করা মাত্রি কুইরেলের হাত পুড়ে যায়। সেই মুহূর্তে অ্যালবাস ডাম্বলডোর হ্যারিকে রক্ষা করতে আসেন; ভল্ডেমর্ট পালিয়ে যায় এবং কুইরেল মারা যায়।

হ্যারি সুস্থ হয়ে উঠলে, ডাম্বলডোর হ্যারিকে জানায় যে, হ্যারির মা লিলি হ্যারির জীবন রক্ষা করার জন্য নিজের জীবন উৎসর্গ করেছিল। হ্যারির জন্য তার মায়ের এই ভালবাসা ও আত্মদানের শক্তিই হ্যারিকে ভলডেমর্টের হাত থেকে সুরক্ষিত করে রেখেছে। ডাম্বলডোর আরো জানান, পরশপাথরটি ধ্বংস করে ফেলা হয়েছে, যাতে ভলডেমর্ট পাথরটি চুরি করতে না পারে। তিনি বলেন, যারা পাথরটি খুঁজে পেতে চায় কিন্তু এটি ব্যবহার করতে চায়না, কেবলমাত্র তারাই পাথরটি খুঁজে পেতে সক্ষম, এই কারণেই হ্যারি পাথরটি পেয়েছিল।

বছর শেষ হওয়ার অনুষ্ঠানে, হ্যারি, রন, হারমায়োনি ও নেভিলের প্রাপ্ত পয়েন্টের ভিত্তিতে গ্রিফিন্ডর হাউজ হাউজকাপ লাভ করে।

কুশীলব[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধঃ হ্যারি পটার চলচ্চিত্র সিরিজের কুশীলবদের তালিকা

ছবিটি নির্মাণের আগে রাউলিং শর্ত দিয়েছিলেন যে, অভিনেতা অভিনেত্রীদেরকে ব্রিটিশ বা আইরিশ হতে হবে।[৫] সুসি ফিগিস কাস্টিং ডাইরেক্টর হিসেবে নিয়োগলাভ করেন।[৬] প্রধান তিন চরিত্র হ্যারি, রন ও হারমায়োনির জন্য উন্মুক্ত কাস্টিং প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়,[৭] শুধুমাত্র ব্রিটিশ শিশুরাই এতে অংশ নিতে সক্ষম হয়।[৮][৮][৯] ২০০০ সালের ৮ আগস্ট ড্যানিয়েল র‌্যাডক্লিফ, রুপার্ট গ্রিন্টএমা ওয়াটসনকে নির্বাচিত করা হয় যথাক্রমে হ্যারি, রন ও হারমায়োনির চরিত্রে অভিনয় করার জন্য।[১০]

  • ড্যানিয়েল র‌্যাডক্লিফ অভিনয় করে হ্যারি পটার, ছবির প্রধান চরিত্রের ভূমিকায়।[১১][১২] র‌্যাডক্লিফের পিতামাতা প্রথমে তাদের ছেলেকে ছবিতে অভিনয়ের অনুমতি না দিলেও ক্রিস কলম্বাসের অনুরোধে পরবর্তীতে তারা রাজী হন।[১১][১৩]
  • রুপার্ট গ্রিন্ট অভিনয় করে রন উইজলি, হগওয়ার্টসে হ্যারির ঘনিষ্ঠ দুই বন্ধুর একজনের ভূমিকায়। সে আগে থেকেই পটার সিরিজের একজন ভক্ত ছিল।[১৪]
  • এমা ওয়াটসন অভিনয় করে হারমায়োনি গ্রেঞ্জার, হ্যারির অপর ঘনিষ্ঠ বন্ধুর চরিত্রে। ওয়াটসনের অক্সফোর্ডের শিক্ষক তার নাম অডিশনের জন্য কাস্টিং এজেন্টের কাছে পাঠায়।[১৫] ওয়াটসনের অভিনয় দক্ষতা এবং প্রবল আত্মবিশ্বাসের জন্যই মূলত অন্য এক হাজার মেয়ের মধ্য থেকে তাকে নির্বাচন করা হয়।[১৬]
  • রোবি কলট্রেন অভিনয় করেন রুবিয়াস হ্যাগ্রিড, একজন অর্ধ-দানব ও হগওয়ার্টসের ভূমি ও চাবি রক্ষকের ভূমিকায়।[১৭]
  • টম ফেল্টন অভিনয় করে ড্রেকো ম্যালফয়, হ্যারির শত্রু স্লিদারিন হাউজের ছাত্রের ভূমিকায়।
  • রিচার্ড গ্রিফিথস অভিনয় করেন ভার্নন ডার্সলি, হ্যারির মাগল আঙ্কেলের ভূমিকায়।
  • রিচার্ড হ্যারিস অভিনয় করেন প্রফেসর অ্যালবাস ডাম্বলডোর, হগওয়ার্টসের হেডমাস্টার এবং জাদুবিশ্বের সর্বকালের সবচেয়ে বিখ্যাত ও শক্তিশালী জাদুকরের ভূমিকায়।[১৮]
  • ইয়ান হার্ট অভিনয় করেন প্রফেসর কুইরেল, হগওয়ার্টসের কালো জাদুর প্রতিরোধ বিষয়ের শিক্ষকের ভূমিকায়।[১৯]
  • জন হার্ট অভিনয় করেন মিস্টার অলিভান্ডার, জাদুদন্ড প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান "অলিভান্ডার্স" এর মালিকের ভূমিকায়।
  • অ্যালান রিকম্যান অভিনয় করেন প্রফেসর সেভেরাস স্নেইপ, হগওয়ার্টসের পোশন বিষয়ের শিক্ষক ও স্লিদারিন হাউজের প্রধানের ভূমিকায়।[২০]
  • ফায়োনা শ্য অভিনয় করেন পেতুনিয়া ডার্সলি, হ্যারির মাগল আন্টির ভূমিকায়।
  • ম্যাগি স্মিথ অভিনয় করেন প্রফেসর মিনার্ভা ম্যাকগোনাগল, হগওয়ার্টসের ডেপুটি হেডমিস্ট্রেস, গ্রিফিন্ডর হাউজের প্রধান ও ট্রান্সফিগারেশন বিষয়ের শিক্ষিকার ভূমিকায়।[১৭]
  • জুলিয়া ওয়াল্টার্স অভিনয় করেন মলি উইজলি, রনের মায়ের চরিত্রে।[২১]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Anthikad-Chhibber, Mini। "Harry Comes to Hyderabad"The Hindu। ৪ নভেম্বর ২০০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১০ 
  2. "Official Home Video Product Description for India"। Big Home Video। ২২ জুন ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৯ জুলাই ২০০৯ 
  3. Indiabroad (07-30)। "BIG Home Video To Market Warner Catalogues in India"Indo-Asian News Service (via Yahoo! India Movies)। সংগ্রহের তারিখ 7 February 2010  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |তারিখ= (সাহায্য)[স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. The film's version of this incident is different from the book's; see Rowling, J.K. (১৯৯৭)। Harry Potter and the Philosopher's Stone। Bloomsbury। পৃষ্ঠা 109–113। আইএসবিএন 0747532745 
  5. "Harry Potter and the Philosopher's Stone"Guardian Unlimited। ১৬ নভেম্বর ২০০১। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মে ২০০৭ 
  6. Linder, Brian (৩০ মার্চ ২০০০)। "Chris Columbus Talks Potter"। IGN। ৬ ডিসেম্বর ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০০৭ 
  7. Linder, Brian (৩০ মে ২০০০)। "Attention All Muggles!"। IGN। ৩১ আগস্ট ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০০৭ 
  8. Linder, Brian (১৪ জুন ২০০০)। "Harry Potter Casting Frenzy"। IGN। ২৫ এপ্রিল ২০০৯ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০০৭ 
  9. Lindner, Brian (১১ জুলাই ২০০০)। "Trouble Brewing with Potter Casting?"। IGN। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১০ 
  10. "Daniel Radcliffe, Rupert Grint and Emma Watson Bring Harry, Ron and Hermione to Life for Warner Bros. Pictures Harry Potter and the Sorcerer's Stone"Warner Bros.। ২১ আগস্ট ২০০০। ২০০৭-০৪-০৪ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৬ মে ২০০৭ 
  11. Jensen, Jeff (১৪ সেপ্টেম্বর ২০০১)। "Inside Harry Potter — It May Be a Movie about a Tyro Wizard and His Magical Adventures, but Bringing Harry Potter to the Big Screen Took Real Muggle Might, No Hocus-Pocus about It"Entertainment Weekly। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১০  অজানা প্যারামিটার |coauthors= উপেক্ষা করা হয়েছে (|author= ব্যবহারের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে) (সাহায্য)
  12. Koltnow, Barry (৮ জুলাই ২০০৭)। "One Enchanted Night at Theater, Radcliffe Became Harry Potter"East Valley Tribune। ১১ অক্টোবর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ জুলাই ২০০৭ 
  13. Sussman, Paul (২৩ আগস্ট ২০০০)। "British Child Actor "a Splendid Harry Potter""। CNN। সংগ্রহের তারিখ ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১০ 
  14. "When Danny Met Harry"। The Times। ৩ নভেম্বর ২০০১। 
  15. "Season of the Witch"Entertainment Weekly। ডিসেম্বর ১৪, ২০০১। ২০০১-১২-২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-০৭-১৮ 
  16. Kulkani, Dhananjay (২৩ জুন ২০০৪)। "Emma Watson, New Teenage Sensation!!"। Buzzle। ২৯ জুন ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৩ আগস্ট ২০০৭ 
  17. "Author's Favorites Cast for Harry Potter"Internet Movie Database। ১৪ আগস্ট ২০০০। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০০৭ 
  18. Young, C. (২৭ নভেম্বর ২০০১)। "Richard Harris: The Envelopes, Please"People। সংগ্রহের তারিখ ৯ জুলাই ২০০৭ 
  19. Morris, Clint (৯ জুন ২০০৪)। "Interview:David Thewlis"। Movie Hole। ২০০৪-০৬-১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ অক্টোবর ২০০৮ 
  20. Adler, Shawn (7 December 2007)। "What Would "Potter" Have Been Like with Tim Roth as Snape?"। MTV। সংগ্রহের তারিখ 20712-08  এখানে তারিখের মান পরীক্ষা করুন: |সংগ্রহের-তারিখ= (সাহায্য)
  21. Linder, Brian (১৯ এপ্রিল ২০০০)। ""Rosie" in Harry Potter?"। IGN। ৩১ আগস্ট ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৮ জুলাই ২০০৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]