হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অব ফায়ার

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
হ্যারি পটার উপন্যাস
হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অফ ফায়ার
লেখক জে. কে. রাউলিং
চিত্রণ গাইলস গ্রিনফিল্ড (যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশ)
ম্যারি গ্র্যান্ডপ্রি (যুক্তরাষ্ট্র)
ধরণ রূপকথা
প্রকাশক ব্লুমসবারি (যুক্তরাজ্য)
স্কলাস্টিক (যুক্তরাষ্ট্র)
অঙ্কুর (বাংলাদেশ)
প্রকাশের তারিখ ৮ জুলাই ২০০০
বইয়ের সংখ্যা চতুর্থ
বিক্রয় ৬৬ মিলিয়ন
গল্পের সময়রেখা ৪ আগস্ট ১৯৯৪ – ২৫ জুন ১৯৯৫
অধ্যায় ৩৭
পৃষ্ঠাসংখ্যা ৬৩৬ (যুক্তরাজ্য)
৭৩৪ (যুক্তরাষ্ট্র)
৫০৫ (বাংলাদেশ)
পূর্ববর্তী বই হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য প্রিজনার অফ আজকাবান
পরবর্তী বই হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য অর্ডার অফ দ্য ফিনিক্স

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অফ ফায়ার (ইংরেজিতে Harry Potter and the Goblet of Fire) ব্রিটিশ লেখিকা জে. কে. রাউলিং রচিত হ্যারি পটার উপন্যাস সিরিজের চতুর্থ বই। এটি ২০০০ সালের ৮ জুলাই প্রকাশিত হয়। বইটি ২০০১ সালে হুগো অ্যাওয়ার্ড অর্জন করে।[১]

কাহিনী সংক্ষেপ[সম্পাদনা]

হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অফ ফায়ার

পূর্ব প্রেক্ষাপট[সম্পাদনা]

হ্যারি পটার সিরিজের পূর্ববর্তী চারটি উপন্যাসে, প্রধান চরিত্র হ্যারি পটারকে কেন্দ্র করে কাহিনী গড়ে উঠে। হ্যারির বয়স যখন এক বছর, তখন সেই সময়ের সব্বচেয়ে ভয়ঙ্কর কালো জাদুকর লর্ড ভলডেমর্ট হ্যারির বাবা মাকে হত্যা করে। ভলডেমর্ট হ্যারিকেও হত্যা করতে চেয়েছিল, কিন্তু কোন এক রহস্যময় কারণে হ্যারি বেঁচে যায় এবং ভলডেমর্টের পতন ঘটে। এরপর থেকে সে তার মাগল খালা ও খালু পেতুনিয়া ও ভার্নন ডার্সলির সঙ্গে বসবাস করতে থাকে।

এগার বছর বয়সে সে জাদুবিশ্বের অস্তিত্ব সম্পর্কে জানতে পারে এবং হগওয়ার্টস স্কুলে ভর্তি হয়। সে রন উইজলিহারমায়োনি গ্রেঞ্জার এর সাথে বন্ধুত্ব গড়ে তোলে এবং ভলডেমর্টের পুনরায় ক্ষমতায় ফিরে আসার পথে বাঁধা দেয়। পরের বছর কেউ একজন স্কুলে অবস্থিত চেম্বার অফ সিক্রেটস খুলে দেয় এবং একটি বাসিলিস্ক ছাত্রছাত্রীদের আক্রমণ করতে থাকে। হ্যারি বাসিলিস্কটিকে হত্যা করে এবং ভলডেমর্টের ফিরে আসার আরেকটি পথ বন্ধ করে দেয়। এর পরের বছর হ্যারি জানতে পারে, আজকাবান ভেঙ্গে পালানো বন্দী সিরিয়াস ব্ল্যাক হ্যারিকে হত্যার টার্গেট করেছে। এই পরিস্থিতিতে স্কুলের নিরাপত্তা জোরদার করা হয়। কিন্তু শেষে জানা যায়, সিরিয়াস ব্ল্যাক আসলে প্রকৃত অপরাধী নয়, বরং সে হ্যারির গডফাদার।

মূল কাহিনী[সম্পাদনা]

বইটির সূচনা হয় যখন হ্যারি পটার গ্রীষ্মের ছুটিতে ফ্র্যাঙ্ক ব্রাইস (রিডল পরিবারের বাড়ির কেয়ারটেকার), লর্ড ভলডেমর্ট ও তার ডেথ ইটার পিটার পেট্টিগ্রু, এই তিনজনকে নিয়ে একটি স্বপ্ন দেখে। স্বপ্নে হ্যারি দেখতে পায়, ভলডেমর্ট ব্রাইসকে হত্যা করেছে। পরবর্তীতে হ্যারি, হারমায়োনি গ্রেঞ্জাররন উইজলি অন্যান্য উইজলিদের সাথে কুইডিচ বিশ্বকাপের খেলা দেখতে যায়। সেখানে ভলডেমর্টের কিছু অনুসারী সেখানে হামলা চালায়; কিন্তু আকাশে ডার্ক মার্ক দেখে তারা পালিয়ে যায়।

অ্যালবাস ডাম্বলডোর স্কুলের সূচনালগ্নে ঘোষণা করেন যে, 'দ্য ট্রাইউইজার্ড টুর্নামেন্ট' সে বছর হগওয়ার্টসে অনুষ্ঠিত হবে। ট্রাইউইজার্ড টুর্নামেন্ট হল হগওয়ার্টস ও অন্য দুইটি স্কুলের মধ্যে অনুষ্ঠিত একটি আন্তঃস্কুল জাদু প্রতিযোগিতা। অন্য স্কুল দুইটি হল- বক্সবেটন অ্যাকাডেমি ও ডার্মস্ট্র্যাংগ ইনস্টিটিউট। প্রত্যেকটি স্কুল থেকে একজন ছাত্র বা ছাত্রী টুর্নামেন্টে প্রতিযোগিতার জন্য একটি গবলেটের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়। তাদেরকে চ্যাম্পিয়ন বলা হয়। সে বছরের চ্যাম্পিয়নরা হল- বক্সবেটনের ফ্লেউর ডেলাকৌর, ডার্মস্ট্র্যাংগের ভিক্টর ক্রাম এবং হগওয়ার্টসের সেড্রিক ডিগরি। এছাড়া রহস্যময় কারণে গবলেট হ্যারিকেও একজন চ্যাম্পিয়ন হিসেবে নির্বাচিত করে। এ কারণে রনের সাথে হ্যারির বন্ধুত্বে টানাপোড়েনের সৃষ্টি হয়।

কালো জাদুর বিরুদ্ধে প্রতিরোধ বিষয়ের নতুন শিক্ষক, অবসরপ্রাপ্ত অরর অ্যালাস্টর "ম্যাড-আই" মুডি তার ক্লাসে শিক্ষার্থীদের আনফরগিভেবল কার্স পড়াতে থাকেন। যা আইনত নিষিদ্ধ। এই আনফরগিভেবল কার্সগুলো হল- ইমপেরিও (ইমপেরিয়াস কার্স), ক্রুসিও (ক্রুসিয়াটাস কার্স) ও আভাদা কেদাভ্রা (কিলিং কার্স)।

ট্রাইউইজার্ড টুর্নামেন্টের 'চ্যাম্পিয়নদের' তিনটি টাস্কে অংশ নিতে হয়। এগুলো হল- ড্রাগনের কাছ থেকে ড্রাগনের ডিম উদ্ধার, হ্রদের তলদেশে মারপিপলদের কাছ থেকে হোস্টজ উদ্ধার ও শ্বাপদসংকুল গোলকধাঁধা সমাধান।

তৃতীয় টাস্কে হ্যারি ও সেড্রিক সফলভাবে গোলকধাঁধার সমাধান করতে সক্ষম হয়। তারা একসাথে ট্রাইউইজার্ড কাপটির নিকট পৌঁছায় । কাপটি স্পর্শ করার সাথে সাথে এটি একটি পোর্টকিতে পরিণত হয় এবং হ্যারি ও সেড্রিককে লিটল হ্যাঙ্গলটনের একটি কবরস্থানে নিয়ে যায়। সেখানে, দেহবিহীন ভল্ডেমর্ট ও তার ভৃত্য পেট্টিগ্রু অপেক্ষা করছিল। পেট্টিগ্রু সেড্রিককে হত্যা করে। ভল্ডেমর্ট তার বাবার দেহের হাড়, হ্যারির শরীরের রক্ত ও পেট্টিগ্রুর উৎসর্গকৃত মাংস ব্যবহার করে একটি পোশন তৈরি করে এবং একটি নতুন দেহ ও পূর্ণ ক্ষমতা লাভ করে।

এরপর ভল্ডেমর্ট তার ভৃত্য ডেথ ইটারদের সামন করে এবং প্রকাশ করে যে, হগওয়ার্টসে অবস্থান করা তার এক বিশ্বস্ত ভৃত্যের সহায়তায় সেই ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে হ্যারিকে ট্রাইউইজার্ড টুর্নামেন্টে নিয়ম বহির্ভূতভাবে অন্তর্ভুক্ত করার ছক কষে এবং হ্যারিকে এখানে নিয়ে আসে। এরপর সে হ্যারির সাথে দ্বন্দ্বযুদ্ধে লিপ্ত হয়। হ্যারি এক্সপেলিয়ার্মাসভল্ডেমর্ট আভাদা কেদাভ্রা কার্স প্রয়োগ করে। কিন্তু এ সময় ব্যাখ্যাতীতভাবে হ্যারি ও ভল্ডেমর্টের জাদুদন্ড দুটি পরস্পরের সাথে সংযুক্ত হয়ে যায় এবং ভল্ডেমর্ট এতদিন পর্যন্ত যাদেরকে হত্যা করেছে, তাদের প্রত্যেকের আত্মার একটি করে ছায়া তার দন্ড থেকে বের হতে থাকে। একসময় হ্যারির মা ও বাবা লিলি ও জেমস পটারেরও আবির্ভাব ঘটে। তারা সকলে মিলে হ্যারিকে সেড্রিকের মৃতদেহ নিয়ে কবরস্থান থেকে পালাতে সাহায্য করে।

হ্যারি সেড্রিকের মৃতদেহ নিয়ে হগওয়ার্টসে পৌঁছায়। এ সময় হ্যারি জানতে পারে যে, এতদিন সে যে মুডিকে চিনত, সে আসলে প্রকৃত মুডি ছিল না। বরং সে ছিল মুডির রূপ ধারণকারী ডেথ ইটার বার্টি ক্রাউচ জুনিয়র। ক্রাউচ প্রকৃত মুডিকে তার ট্রাঙ্কে বন্দী করে, পলিজুস পোশনের মাধ্যমে মুডির রূপ ধরে হগওয়ার্টসে আসে এবং ভল্ডেমর্টের ষড়যন্ত্রের নীলনকশা বাস্তবায়ন করে।

হ্যারি ট্রাইউইজার্ড চ্যাম্পিয়ন হওয়ার বদৌলতে ১০০০ গ্যালিওন পুরস্কার লাভ করে। কিন্তু সে এই অর্থ নিজে গ্রহণ না করে, ফ্রেড ও জর্জ উইজলিকে তাদের জোকশপ খোলার জন্য দিয়ে দেয়।

অধ্যায়সমূহ[সম্পাদনা]

গবলেট অফ ফায়ারে মোট ৩৭ টি অধ্যায় রয়েছে। এগুলো হলঃ

১। রিডলদের বাড়ি
২। কাটাদাগ
৩। নিমন্ত্রণ
৪। বারোতে ফিরে যাওয়া
৫। উইজলির উইজার্ডিং হুইজেস
৬। পোর্টকি
৭। বেগম্যান ও ক্রাউচ
৮। কুইডিচ বিশ্বকাপ
৯। ডার্ক মার্ক
১০। মন্ত্রণালয়ে ঝামেলা
১১। হগওয়ার্টস এক্সপ্রেসে যাত্রা
১২। ট্রাইউইজার্ড টুর্নামেন্ট
১৩। ম্যাড-আই মুডি
১৪। অক্ষমণীয় অভিশাপ
১৫। বক্সবেটনস ও ডার্মস্ট্র্যাংগ
১৬। গবলেট অফ ফায়ার
১৭। চার চ্যাম্পিয়ন
১৮। জাদুদন্ডের ওজন উৎসব
১৯। হাঙ্গেরিয়ান হর্নটেইল
২০। প্রথম টাস্ক
২১। হাউজ-এলফ স্বাধীনতা সংঘ
২২। অপ্রত্যাশিত টাস্ক
২৩। ইউল বল
২৪। রিটা স্কিটারের স্কুপ
২৫। ডিম এবং চোখ
২৬। দ্বিতীয় টাস্ক
২৭। প্যাডফুটের প্রত্যাবর্তন
২৮। ভারসাম্যহীন মিস্টার ক্রাউচ
২৯। স্বপ্ন
৩০। পেনসিভ
৩১। তৃতীয় টাস্ক
৩২। রক্ত, মাংস এবং হাড়
৩৩। ডেথ ইটারস
৩৪। প্রিওরি ইনক্যানটাটেম
৩৫। ভেরিটাসেরাম
৩৬। ভিন্নপথে যাত্রা
৩৭। সূচনা

রূপায়ণ[সম্পাদনা]

চলচ্চিত্র[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধঃ হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অব ফায়ার (চলচ্চিত্র)

গবলেট অফ ফায়ার বইয়ের কাহিনী অবলম্বনে একই নামে একটি চলচ্চিত্র নির্মিত হয়েছে। এটি ২০০৫ সালের ১৮ নভেম্বর মুক্তি পায়। ওয়ার্নার্স ব্রাদার্স স্টুডিও থেকে নির্মিত চলচ্চিত্রটি পরিচালনা করেছেন মাইক নিউয়েল এবং প্রযোজনা করেছেন ডেভিড হেয়ম্যান। স্টিভ ক্লোভস এর চিত্রনাট্য লিখেছেন। বরাবরের মত এ চলচ্চিত্রেও ড্যানিয়েল র‌্যাডক্লিফ, রুপার্ট গ্রিন্ট, এমা ওয়াটসন, মাইকেল গ্যাম্বন, অ্যালান রিকম্যান, ম্যাগি স্মিথ, মার্ক উইলিয়ামস, ম্যাথিউ লেউয়িস, বোনি রাইট, অলিভার ও জেমস ফেল্পস, ডেভিড ব্র্যাডলি, জেসন আইজ্যাকস, টম ফেল্টন ও রোবি কলট্রেন অভিনয় করেছে। এছাড়া র‌্যালফ ফাইনেস, ব্রেন্ডন গ্লিসন, রজার লয়েড-প্যাক, ফ্রান্সেস ডি লা ট্যুর, প্রেড্রাগ জেলাক, স্ট্যানিস্লাভ ইয়ানেভস্কি, ক্লেঁমেন্স পয়েঁসি, শেফালি চোধুরী, আফশান আজাদ ও ক্যাটি লিয়াং প্রথমবারের মত এই সিরিজে অভিনয় করে।

ভিডিও গেমস[সম্পাদনা]

ইলেকট্রনিক্স আর্টস ২০০৫ সালে গবলেট অফ ফায়ার বই ও চলচ্চিত্রের কাহিনী অবলম্বনে একটি ভিডিও গেমস নির্মাণ করেছে।

অনুবাদ[সম্পাদনা]

মূল নিবন্ধঃ অনুবাদে হ্যারি পটার

সিরিজের অন্য বইগুলোর মত গবলেট অফ ফায়ার বইটিও বিভিন্ন ভাষায় অনূদিত হয়েছে। বইটি সর্বপ্রথম ভিয়েতনামি ভাষায় অনূদিত হয়, এরপর একে একে সার্বীয়, ডাচ, জার্মান, রুশ, হিন্দি, বাংলা, আরবি, ফরাসি, ফার্সি প্রভৃতি ভাষায় অনূদিত হতে থাকে। ফ্রান্স ও নেদারল্যান্ডে বইটির অনেক বেআইনী অনুবাদও প্রকাশিত হয়।[২] চেক প্রজাতন্ত্রে, বেশ কয়েকজন তরুণ ছেলেমেয়ে বইটির ইংরেজি সংস্করণ বের হওয়ার মাত্র দুই সপ্তাহের মধ্যেই এর অর্ধেক অনুবাদ করে ফেলে।[৩]

বাংলা ভাষায় অনুবাদ[সম্পাদনা]

অঙ্কুর প্রকাশনী হ্যারি পটার সিরিজের বইগুলোকে বাংলাদেশে বাংলা ভাষায় প্রকাশ করেছে।[৪] সিরিজের চতুর্থ বই গবলেট অফ ফায়ার এর বাংলা অনুবাদ ২০০৬ সালের ফেব্রুয়ারিতে অঙ্কুর সর্বপ্রথম বাংলাদেশে প্রকাশ করে। অনুবাদক অসীম চৌধুরী বইটিকে সহজ ও সরলভাবে বাংলা ভাষায় অনুবাদ করেছেন। এর পৃষ্ঠাসংখ্যা ৫০৫। বইটি বাংলাভাষী হ্যারি পটার ভক্তদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলে।

আরো দেখুন[সম্পাদনা]


তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "2001 Award Winners & Nominees"Worlds Without End। সংগৃহীত ২৩ জুলাই ২০০৯ 
  2. "Harry auf Deutsch: Projekt-Übersicht der Harry Potter Übersetzung(en)"। সংগৃহীত ৫ ডিসেম্বর ২০০৫ 
  3. "News"। Radio Prague। ০৫.০৭.২০০৩। সংগৃহীত ১ জুন ২০০৯ 
  4. "Ankur prakashani publishes the Bengali version of Harry Potter books" 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

  • উইকিবই প্রকল্পে নিম্নের বিষয়ের উপরে সহায়িকা, বই, বা তথ্য রয়েছে: হ্যারি পটার অ্যান্ড দ্য গবলেট অফ ফায়ার Muggles' Guide to Harry Potter