হোসে মানুয়েল দে লা তোররে

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
হোসে মানুয়েল দে লা তোররে
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম হোসে মানুয়েল দে লা তোররে মানচাকা
জন্ম (1965-11-13) নভেম্বর ১৩, ১৯৬৫ (বয়স ৫৫)
জন্ম স্থান গুয়াদালাহারা, হালিস্কো, মেক্সিকো
উচ্চতা ১.৭৮ মিটার (৫ ফুট ১০ ইঞ্চি)
মাঠে অবস্থান আক্রমণাত্মক মধ্যমাঠের খেলোয়াড়
জ্যেষ্ঠ পর্যায়*
বছর দল ম্যাচ (গোল)
১৯৮৪-১৯৮৮ গুয়াদালাহারা ১১৬ (৭)
১৯৮৮-১৯৮৯ রেয়াল অভিয়েদো ৩২ (৮)
১৯৮৯-১৯৯১ পুয়েবলা ৮২ (১৫)
১৯৯১-১৯৯৩ ক্রুস আসুল ৫৬ (১৭)
১৯৯৩-১৯৯৫ গুয়াদালাহারা ৫৫ (১২)
১৯৯৫-১৯৯৬ টাইগ্রিস ২৫ (৩)
১৯৯৬ পুয়েবলা (০)
১৯৯৭-১৯৯৯ নেকাখা ৪০ (১)
জাতীয় দল
১৯৮৭-১৯৯২ মেক্সিকো ২৮ (৬)
পরিচালিত দল
২০০৫-২০০৭ গুয়াদালাহারা
২০০৮-২০১০ তলুকা
২০১০- মেক্সিকো
* শুধুমাত্র ঘরোয়া লীগে ক্লাবের হয়ে ম্যাচ ও গোলসংখ্যা গণনা করা হয়েছে

হোসে মানুয়েল "চিপো" দে লা তোররে ম্যানচাকা (স্পেনীয়: José Manuel "Chepo" de la Torre Menchaca; জন্ম: ১৩ নভেম্বর, ১৯৬৫) জলিস্কো’র গুয়াদালাহারা এলাকায় জন্মগ্রহণকারী মেক্সিকো জাতীয় ফুটবল দলের বর্তমান ম্যানেজার[১] পূর্বে তিনি মেক্সিকো দলের মধ্যমাঠের খেলোয়াড় ছিলেন। তিনি তার ডাক নাম চিপোতেই বেশি জনপ্রিয়।

খেলোয়াড়ী জীবন[সম্পাদনা]

চিভাস যুব একাডেমীর মাধ্যমে ফুটবল জগতে প্রবেশ করেন চিপো। অংশগ্রহণকৃত সকল দলেরই গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ের মর্যাদা পেয়েছেন তিনি। স্বল্পকালের জন্য ইউরোপের স্পেনের লা লিগা ক্লাবে রেয়াল ওভিয়েদোতেও খেলেছেন তিনি। সেখানে তিনি ৩২ খেলায় ৮ গোল করেন। ১৯৮৬ মৌসুমে চিভাসের পক্ষ হয়ে এস্তাদিও হালিস্কোতে ক্রুজ আজুলকে পরাভূত করে দলকে চ্যাম্পিয়ন করান। এছাড়াও পুয়েবলা ফুটবল ক্লাব, ক্রুজ আজুল, তাইগ্রিস, নেকাক্স এবং চিভাস দে গুয়াদালাহারা দলে খেলেছেন তিনি। বিভিন্ন সময়ে মেক্সিকো জাতীয় ফুটবল দলেও খেললেও কোন ফিফা বিশ্বকাপ ফুটবলে অংশগ্রহণের জন্য ডাক পাননি।

মেক্সিকো জাতীয় ফুটবল দল[সম্পাদনা]

১৮ অক্টোবর, ২০১০ তারিখে ঘোষণা করা হয় যে, ২০১০-১১ মৌসুমের প্রিমেরা দিভিসিওন দে মেহিকো শেষে দে লা তোররে মেক্সিকোর নতুন ম্যানেজাররূপে আসীন হতে যাচ্ছেন।[২][৩] ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১১ তারিখে বসনিয়া ও হার্জেগোভিনা জাতীয় ফুটবল দলের বিরুদ্ধে প্রীতি খেলায় মেক্সিকোর ২-০ গোলে জয়ের মাধ্যমে ম্যানেজার হিসেবে অভিষেক ঘটে তার।[৪] তার নেতৃত্বে মেক্সিকো ২০১১ সালের কনকাকাফ গোল্ড কাপ প্রতিযোগিতায় অপরাজিত চ্যাম্পিয়ন হয়। চূড়ান্ত খেলায় তারা চীরপ্রতিদ্বন্দ্বী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে ৪-২ ব্যবধানে জয়ী হয়।[৫] ম্যানেজার হিসেবে তার প্রথম পরাজয় ঘটে ব্রাজিলের বিপক্ষে অনুষ্ঠিত প্রীতি খেলায় ২-১ গোলের ব্যবধানে।[৬] ২০১১ সালের শেষ খেলায় সার্বিয়া জাতীয় ফুটবল দলের বিপক্ষে তার দল ২-০ ব্যবধানে জয় পায়।[৭]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Convocatoria de la Selección Mayor" [Called up for the major selection] (Spanish ভাষায়)। femexfut। ২০ মে ২০১৩। ৮ জুন ২০১৩ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০ মে ২০১৩ 
  2. [১]
  3. "Jose Manuel "Chepo" De La Torre Named Mexico National Team Manager"Goal.com। ২০১০-১০-১৮। সংগ্রহের তারিখ ২০১০-১১-২৫ 
  4. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০১৩ 
  5. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০১৩ 
  6. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ২৯ জানুয়ারি ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২ জুন ২০১৩ 
  7. [২][স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:Club Deportivo Guadalajara managers টেমপ্লেট:Mexico national football team managers