হার্নান্দো ডি সোতো

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
হার্নান্দো ডি সোতো
জন্ম (১৯৪১-০৬-০৩) ৩ জুন ১৯৪১ (বয়স ৭৬)
আরেকুইপা, পেরু
জাতীয়তা পেরু পেরুভীয়
কাজের ক্ষেত্র অনানুষ্ঠানিক অর্থনীতি
যাদের দ্বারা প্রভাবিত হয়েছেন মিল্টন ফ্রিড্‌ম্যান
ফ্রীডরিখ হায়েক

হার্নান্দো ডি সোতো (Hernando de Soto; জন্ম: ৩রা জুন ১৯৪১) একজন পেরুভীয় অর্থনীতিবিদ, যিনি তার অনানুষ্ঠানিক অর্থনীতির জন্য পরিচিত। তিনি পেরুর লিমায় অবস্থিত ইনস্টিটিউট অফ লিবার্টি এন্ড ডেমোক্রেসি (আইএলডি) এর প্রধান।[১]

দে সোতো ১৯৪১ সালের ৩রা জুন পেরুর আরেকুইপায় জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা ছিলেন একজন পেরুভীয় কূটনীতিক। ১৯৪৮ সালে পেরুতে সেনা সংঘর্ষের পর তার পিতামাতা ইউরোপে রাজনৈতিক আশ্রয়ে চলে যান। দে সোতো সুইজারল্যান্ডে জেনাভার ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে পড়াশুনা করেন এবং জেনেভার গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট অব ইন্টারন্যাশনাল স্টাডিজ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি পরবর্তীতে অর্থনীতিবিদ, করপোরেট নির্বাহী ও কনসালটেন্ট হিসেবে কাজ করেন। ৩৮ বছর বয়সে তিনি পেরুতে ফিরে আসেন।[২] তার ছোট ভাই আলভারো লিমা, নিউ ইয়র্ক সিটি ও জেনেভায় পেরুভীয় কূটনীতিক হিসেবে কাজ করেন। তিনি ২০০৭ সালে জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব পদ থেকে অবসর নেন।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Institute for Liberty and Democracy, "Hernando de Soto – Detailed Bio""আইএলডি। সংগ্রহের তারিখ ২৭ এপ্রিল ২০১৮ 
  2. Source: Investors Business Daily, Monday November 6, 2006. p. A4. Leaders & Success. Article by IBD Reinhardt Kraus.
  3. "De Soto Report" (PDF)দ্য গার্ডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ ২৭ এপ্রিল ২০১৮