হর্ষ উদয় সিং গৌর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে

লেফটেন্যান্ট কর্নেল হর্ষ উদয় সিং গৌর, এসি (১ জুলাই ১৯৫৩ - ২৯ নভেম্বর ১৯৯৪) একজন ভারতীয় সামরিক কর্মকর্তা ছিলেন ১০ বিহার রেজিমেন্টের কমান্ডিং অফিসার হিসাবে নিযুক্ত ছিলেন, যিনি তাঁর অসামান্য বীরত্বের জন্য ভারতের শান্তিকালীন বীরত্বের পুরস্কার অশোক চক্র দ্বারা মরণোত্তর ভূষিত হয়েছিলেন।


হর্ষ উদয় সিং গৌর

Harsh Uday Singh Gaur.jpg
চিত্র: হর্ষ উদয় সিং গৌর
জন্ম(১৯৫৩-০৭-০১)১ জুলাই ১৯৫৩
হারদোই জেলা, উত্তর প্রদেশ, ভারত
মৃত্যু২৯ নভেম্বর ১৯৯৪(1994-11-29) (বয়স ৪১)
দাজিপুরা গ্রাম, বারমুলা জেলা, জম্মু ও কাশ্মীর, ভারত
আনুগত্য India
সার্ভিস/শাখা ভারতীয় সেনাবাহিনী
কার্যকাল১৯৭৪ - ১৯৯৪
পদমর্যাদাLieutenant Colonel of the Indian Army.svg লেফটেন্যান্ট কর্নেল
সার্ভিস নম্বরSS-27314
(স্বল্প পরিষেবা কমিশষ)
IC-36177 (স্থায়ী কমিশন)
ইউনিট১০ বিহার
পুরস্কারAshoka Chakra ribbon.svg অশোক চক্র

প্রাথমিক জীবন[সম্পাদনা]

গৌর ১৯৫৩ সালে উত্তর প্রদেশের হারদোই জেলায় জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তাঁর বাবার নাম রাজেন্দ্র সিং গৌর। তিনি নিজ শহরে পড়াশোনা শেষ করেন এবং ১৯৭২ সালে সিএম নেহেরু কলেজ থেকে স্নাতক হন।

সৈন্য কর্মজীবন[সম্পাদনা]

গৌর ১৯৭৩ সালের সেপ্টেম্বরে অফিসার্স ট্রেনিং একাডেমিতে যোগদান করেছিলেন এবং ১৯৭৪ সালের ১২ ই মে বিহার রেজিমেন্টে দ্বিতীয় লেফটেন্যান্ট হিসাবে স্বল্প-পরিষেবা কমিশন পেয়েছিলেন। [১] ১৯৭৫ সালের ১২ ই মে তিনি লেফটেন্যান্ট পদোন্নতি পান,[২] ১৯৭৯ সালের ১২ ই মে তিনি লেফটেন্যান্ট পদে পদোন্নতি সহ সেকেন্ড লেফটেন্যান্ট হিসাবে নিয়মিত কমিশন পান (৯ জুলাই ১৯৭৭ সাল থেকে জ্যেষ্ঠতাা অনুুুযায়ী)। [৩] ১৯৮১ সালের ৯ জুলাই গৌড়কে অধিনায়ক পদে পদোন্নতি দেওয়া হয়েছিল। [৪]

১৯৮৬ সালের ৯ জুলাই মেজর পদোন্নতি হয়ে তিনি ডিফেন্স সার্ভিসেস স্টাফ কলেজে যোগদান করেন এবং পদাতিক বিদ্যালয়ের প্রশিক্ষক হিসাবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। গৌর ১৯৯৪ সালে জম্মু ও কাশ্মীরের বারামুলা জেলায় মোতায়েন করা ১০ বিহার ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদে নিযুক্ত ছিলেন [৫]

অপারেশন বারামুলা[সম্পাদনা]

২৯ নভেম্বর ১৯৯৪, তাঁর একক তথ্য বুদ্ধিমত্তা একটি বেষ্টনী অপারেশন পরিকল্পনা উৎস থেকে বারামুলা জেলার দাজিপুরা গ্রামে প্রায় ১০ থেকে ১২ সন্ত্রাসী ছিল। তিনি নিজেই এই অভিযানের নেতৃত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন। তল্লাশি অভিযান চলাকালীন সন্ত্রাসীরা সেনাবাহিনীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। প্রচণ্ড ফায়ারের আদান-প্রদান সত্ত্বেও তিনি এগিয়ে যেতে থাকলেন এবং তিন সন্ত্রাসীকে হত্যা করেছিলেন। তবে গৌর গুরুতর আহত হয়ে শহীদ হন। [৬][৭]

পুরস্কার[সম্পাদনা]

১৯৯৫ সালে গৌরকে তাঁর অসাধারণ সাহস, কর্তব্যনিষ্ঠা ও ত্যাগের জন্য ভারত সরকার কর্তৃক ভারতের সর্বোচ্চ শান্তিকালীন বীরত্বের পুরস্কার 'অশোক চক্র' মরণোত্তর দ্বারা ভূষিত করা হয়েছে। [৫][৮][৯][১০]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Part I-Section 4: Ministry of Defence (Army Branch)" (PDF)। The Gazette of India। ১৮ অক্টোবর ১৯৭৫। পৃষ্ঠা 1416। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "Part I-Section 4: Ministry of Defence (Army Branch)" (PDF)। The Gazette of India। ৪ ডিসেম্বর ১৯৭৬। পৃষ্ঠা 1663। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  3. "Part I-Section 4: Ministry of Defence (Army Branch)" (PDF)। The Gazette of India। ১২ জানুয়ারি ১৯৮০। পৃষ্ঠা 73। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "Part I-Section 4: Ministry of Defence (Army Branch)" (PDF)। The Gazette of India। ২১ নভেম্বর ১৯৮১। পৃষ্ঠা 1550। [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  5. "Lt Col Harsh Udai Singh Gaur AC"। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮  উদ্ধৃতি ত্রুটি: <ref> ট্যাগ বৈধ নয়; আলাদা বিষয়বস্তুর সঙ্গে ":0" নামটি একাধিক বার সংজ্ঞায়িত করা হয়েছে
  6. "Saluting Lt Col Harsh Uday Singh Gaur, Ashok Chakra (Posthumous)"। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  7. Kittu Reddy (জানুয়ারি ২০০৭)। Bravest of the Brave (Heroes of the Indian Army): Heroes of the Indian Armyআইএসবিএন 9788187100003। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  8. "LT COL HARSH UDAY SINGH GAUR"। ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮ 
  9. Bajwa, Mandeep Singh (১৬ মার্চ ২০১৪)। "The warriors from Bihar Regiment"Hindustan Times। সংগ্রহের তারিখ ২২ জানুয়ারি ২০২০ 
  10. "Securities and Exchange Board of India chief"indiatoday.in। সংগ্রহের তারিখ ২১ ডিসেম্বর ২০১৮