হট চকলেট

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(হট চকোলেট থেকে পুনর্নির্দেশিত)
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
হট চকোলেট
Becher Kakao mit Sahnehäubchen.JPG
প্রকারহট কোকোয়া
উৎপত্তিস্থলমধ্য আমেরিকা
রংবাদামী
স্বাদচকোলেট
সংশ্লিষ্ট পণ্যচকোলেট

হট চকলেট গরম কোকো নামেও পরিচিত শক্ত চকলেট, গলানো চকলেট বা কোকো, উত্তপ্ত দুধ বা পানি এবং চিনির সমন্বয়ে তৈরি এক ধরনের উত্তপ্ত পানীয়। গলানো চকলেট দিয়ে তৈরি এই হট চকলেটকে কখনও কখনও বেভারেজ চকলেট বা পানীয় চকোলেটও বলা হয়। এটি কম মিষ্টি জাতীয় এবং ইহা কম ঘন চকলেট দ্বারা তৈরি করা হয়।[১] প্রথম চকলেটের পানীয় আনুমানিক প্রায় ২,০০০ বছর আগে তৈরি করা হয়েছে বলে মনে করা হয় এবং কোকোয়া দ্বারা তৈরি পানীয় ১৪০০ খ্রিস্টাব্দের দিকে অ্যাজটেক সংস্কৃতির অপরিহার্য অংশ ছিল।[২] এ পানীয় নিউ ওয়ার্ল্ড মেক্সিকো থেকে চালু হওয়ার পর ইউরোপে বেশ জনপ্রিয় হয়ে ওঠে এবং তারপর থেকে এর একাধিক পরিবর্তন ঘটানো হয়েছে। ১৯ শতকে হট চকলেট বিভিন্ন রোগ যেমন যকৃত এবং পেটের রোগের চিকিৎসায় ডাক্তারি কাজের উপাদান হিসাবে ব্যবহৃত হত। আজও হট চকোলেট সারা পৃথিবীতে প্রচুর পরিমাণে খাওয়া হয় এবং খুব পুরু চকোলেট ইতালিতে "ডেনসা" এবং স্পেনে "লা তাজা" নামে পরিবেশিত হয় এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে পাতলা গরম কোকোসহ হট চকোলেট খাওয়া হয় যা একাধিক বিচিত্রতা নিয়ে তৈরি করা হয়।

খুব কাছে থেকে হট চকোলেট

ইতিহাস[সম্পাদনা]

রূপার হট চকোলেটের পাত্র, ফ্রান্স, ১৯৭৯।[৩] ভিক্টোরিয়া এবং আলবার্ট মিউজিয়াম, লন্ডন

রিও আজুল, গুয়াতেমালা, সাইট থেকে জানা যায় প্রাথমিক ক্লাসিক সময়ের (৪৬০-৪৮০ খ্রিস্টাব্দ) মায়া সমাধিতে একটি কোকোয়া দিয়ে তৈরি চকোলেট অবশিষ্ট ড্রিংক ছিল। [৪][৫] এই পানীয়টি তখন ঠাণ্ডা অবস্থায় পরিবেশিত হত। এ চকোলেট পানীয়টি তৈরি করতে, মায়া জমিতে কোকোয়া বীজের পেস্ট তৈরি করে এর মধ্যে পানি, ভুট্টার অংশ, মরিচ এবং অন্যান্য উপাদানের সঙ্গে মিশিয়ে প্রস্তুত করা হত।[৪] এরপর তারা প্রচুর ফেনা তোলার জন্য একটি পাত্রে একটি কাপ থেকে ড্রিংক ঢেলে ফেনা তুলত। মায়া'দের সব সামাজিক ধাপেই চকোলেটের ব্যবহার পাওয়া যেত। ধনীরা পরিপূর্ণভাবে সজ্জিত চকলেট জাহাজে করে আনাত।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] স্পেনীয়রা চকলেট বেস, ভ্যানিলা ও অন্যান্য মশলা দিয়ে তৈরি এ পানীয়কে বলত "এক্চকোলেট" বলত এবং এ পানীয় ঠাণ্ডা অবস্থায় পরিবেশিত করত।[৬][৭]

আমেরিকা থেকে এর চিনি আসত,[৪] কারণ "চকোলেট" এ একটি আলাদা স্বাদ দিতে বলা হয়েছিল। কিন্তু এ পানীয় সুগন্ধ এবং তিক্ত স্বাদের আস্বাদন থাকত কিন্তু উল্টোদিকে আধুনিক হট চকলেট হয় মিষ্টি স্বাদ জাতীয়।[৪] এ চকোলেট প্রথম প্রথম গরম পরিবেশিত হত।[৪] যাইহোক ১৬শ শতকের দিকে মেক্সিকোর পেরু এবং স্পেনীয়ে বসবাসকারী জেসুইটস ধর্মপ্রচারক জোসে ডি আকস্তা চকোলেট সম্পর্কে বর্ণনা করেন:

এটার সাথে পরিচিত না হওয়াই ভাল ছিল। এটার খুবই বাজে স্বাদ, এটি একটি গাদ বা ফেনা যুক্ত একটি পানীয়। তবুও তারা এটা তাদের দেশে খুব উপভোগ করত। যেখানে ভারতীয়দের মধ্যে জনপ্রিয় দামী একটা পানীয় ছিল এটি। এই চকলেট স্পেনের পুরুষ এবং মহিলা উভয়ের কাছে খুবই লোভনীয় ছিল। তারা বলত যে এগুলো পেটের জন্য এবং শ্লেষ্মার বিরুদ্ধে ভাল কাজ করে। তারা এটা বিভিন্ন প্রকারের তৈরি করত কিছু তৈরি হত গরম, কিছু ঠাণ্ডা, এবং কিছু মৃদ্যু এবং তাতে অনেক পরিমাণে "মরিচ" ব্যবহার করত[৮]

ইউরোপীয় অভিযোজন[সম্পাদনা]

চকোলেটের পাত্র, চিনামাটির পাত্র, ১৮শ শতকে

"মন্টেজুমা এর ওয়ারিয়র্স" পরাজিত হবার পরে ১৫২৮ সালে স্পেনে ফিরে তিনি সকল প্রশাসনিক ক্ষমতা হাতে নেন, সাথে কোকোয়া, মটরশুঁটি এবং চকলেট পানীয় তৈরির সরঞ্জাম আনেন। [৯] এই সময়ে, মায়ানিবাসীগণ এর উদ্ভাবিত চকলেটে শুধুমাত্র তিক্ত স্বাদ বিশিষ্ট ছিল। [৪] মিষ্টি হট চকলেট এবং বার চকলেট বর্তমানে তৈরি করা হয়।

ইউরোপে তার আগমনের পরে, এ পানীয়টি ধীরে ধীরে বেশ জনপ্রিয়তা অর্জন করে। রাজা পঞ্চম চার্লসের দরবারে শীঘ্রই এ "হট চকোলেট" গ্রহণ করে এবং তারপর স্পেনীয়ে শুধুমাত্র "চকোলেট" নামে পরিচিত হয়। উচ্চ শ্রেণীর মানুষদের কাছে জনপ্রিয় একটি কেতাদুরস্ত পানীয় ওঠে "হট চকোলেট"। উপরন্তু, তখন কোকোয়া যৌতুক হিসেবে স্পেনীয় রাজকীয় পরিবারের সদস্যদের ও অন্যান্য ইউরোপীয় বিয়েতে দেওয়া হত। [১০] সেই সময়ে চকোলেট ইউরোপে খুব ব্যয়বহুল ছিল কারণ কোকো শুধুমাত্র দক্ষিণ আমেরিকায় উৎপন্ন হত [১১] ১৭ শতকের দিকে মিষ্টি স্বাদের "হট চকোলেট" ইউরোপীয়দের কাছে একটি বিলাসিতা ও আভিজাত্য আইটেমে পরিণত হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] প্রথম চকোলেট হাউস (একটি আধুনিক কফি হাউজ অনুরূপ)[৪] ১৬৫৭ সালে খোলা হয়। এমনকি তখন ৫০ পাউন্ড চকোলেটে ৭৫ পেন্স (আনুমানিক ১০-১৫ শিলিং) খোয়াতে হত বলে এটি খুব দামী ছিল। [১২]

১৭ শতাব্দীর শেষ দিকে রয়েল কলেজ অব ফিজিসিয়ান এর সভাপতি, চিকিৎসক হান্স স্লোনি জ্যামাইকা পরিদর্শন করেন। যখন তিনি ইংল্যান্ডে ফিরে আসেন, তখন তার সাথে এর রেসিপি আনেন। তখন ইংল্যান্ডে দুধের "হট চকলেট" এর তৈরি শুরু করেন। [১৩] ১৮২৮ সালে "কনরেড জোহানেস ভ্যান হাউটেন" নেদারল্যান্ডে প্রথম কোকো উৎপাদনের মেশিন তৈরি করেন। [৪][১৪] তখন কোকো গুঁড়া এবং কোকো মাখন কম পরিমাণে ব্যবহার করে বার চকলেট উৎপাদন করা হত।

বিচিত্রতা[সম্পাদনা]

বাড়িতে হট চকোলেট পানীয় তৈরি করার প্রক্রিয়া
সাদা হট চকোলেট

কোকোয়া বীজ[১৫] আর মটরশুঁটি থেকে সমৃদ্ধ কোকোয়া গুঁড়া থেকে তৈরি "গরম কোকো" চকোলেট এবং বার চকলেট আর চিনি থেকে সরাসরি তৈরি "হট চকলেট" এর মধ্য অবশ্যই পার্থক্য রয়েছে। [১৫] সুতরাং, দুই প্রকারের মধ্যে প্রধান পার্থক্য হল কোকোয়া বাটারের মধ্য। কোকোয়া বাটার ছাড়া হট চকোলেট সাধারণ হট চকলেটের থেকে কম চর্বি যুক্ত হয়। কিন্তু এ চকলেটে সব অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহ পাওয়া যায়। [১৬] হট চকলেট কখনো কালো, রঙিন বা দুধের সাথে চিনি যোগে এর মধ্যে ছোট টুকরা টুকরা করে তৈরি এবং মিষ্টি, ঘি দিয়েও এ চকলেট দিয়ে তৈরি করা যেতে পারে। আমেরিকান ইনস্ট্যান্ট গরম কোকোয়াতে প্রায়ই গুঁড়া-দুধ অথবা দুধ ব্যবহার না করেও তৈরি করে। যাতে অন্যান্য যে দুগ্ধজাত উপাদানগুলো আছে সেগুলো রয়েছে। [১৭] যুক্তরাজ্যে "হট চকলেট" গরম দুধ, পানি, এবং চকোলেট, চিনি গুঁড়া, এবং গুঁড়া-দুধ দিয়ে মিষ্টি এ পানীয় তৈরি করা হয়। আর "কোকোয়া" সাধারণত শুধু গরম দুধ ও কোকোয়া পাউডার দিয়ে তৈরি একটি অনুরূপ পানীয় বোঝায়, সাথে চিনি দিয়ে তৈরি এ পানীয় খেতে মিষ্টি ( সবসময় মিষ্টি না)। [১৭]

ব্যবহার[সম্পাদনা]

পানীয় চকলেট বা কোকো আকারে হট চকলেট বর্তমানে আরামদায়ক ও লোভনীয় পানীয় হিসেবে গণ্য করা হচ্ছে এবং ব্যাপকভাবে বিশ্বের বহু জায়গায় ব্যবহৃত হচ্ছে।

ইউরোপ[সম্পাদনা]

হট চকোলেট, নেদারল্যান্ড
হট চকোলেট, ওয়ারশ, পোল্যান্ড

মূল ভূখণ্ড ইউরোপে (বিশেষত স্পেন এবং ইতালিতে), হট চকলেটে কখনও কখনও কন্সটার্চ হিসাবে খুব মোটা পুরু এজেন্ট ব্যবহার করে পরিবেশিত হয়।

ইউরোপে গরম চকলেট একাধিক পুরু ফরমের মাধ্যমে ইতালীয় "চকোলেটা ডেনসা" পরিবেশিত হয়। জার্মানিতে বৈচিত্র্যপূর্ণ খুব মোটা এবং ভারী ফরমের জন্য পরিচিত এটি।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]নেদারল্যান্ডে হট চকলেট খুবই জনপ্রিয় পানীয়, যা "চকোলেডিমিল্ক" হিসাবে পরিচিত। এই হট চকোলেট প্রায়ই বাড়িতে বা ক্যাফেতে পরিবেশিত হয়।

ফ্রান্সে হট চকোলেট প্রায়ই সকালের নাস্তার সময় পরিবেশিত হয়; কখনো মাখন, জ্যাম, মধুর সঙ্গে দেয়া হয়। কখনও কখনও সাথে ছোট ছোট টুকরা করা রুটির মাঝে গরম চকলেট দেয়া হয়। বিশেষভাবে ব্রেকফাস্টের সময় ভাল ব্র্যান্ডের হট চকলেট থাকে, এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য হল বানানিয়া[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

হট চকোলেটে আরও অনেক বৈচিত্র্য বিদ্যমান। বেলজিয়ামের কিছু ক্যাফেতে এবং অন্যান্য এলাকায়, "ওয়ার্মি চকোলেড" বা "চকোলেট দধি" এর মধ্যে দ্রবীভূত সাদা দুধ এবং চকলেটের চিপ এর একটি ছোট এক কাপ বা বাটি মিহি তরল যোগ করা থাকে। [১৭]

উত্তর আমেরিকা[সম্পাদনা]

ঐতিহ্যবাহী স্পেনীয় হট চকোলেট

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বেশিরভাগই কোকোয়া পাউডার, চিনি, এবং শুষ্ক গুঁড়া দুধের একটি প্যাকেট থেকে গরম পানি বা দুধ দিয়ে তাৎক্ষণিক তৈরি জনপ্রিয় পানীয় এটি। [১৮] এটির প্রধান বৈচিত্র্য এটি পাতলা ভাবে তৈরি।[১৯] এটি খুব মিষ্টি স্বাদের হয় এবং ফেটানো ক্রিম বা কঠিন চকলেটের এক টুকরার সঙ্গে খুবই জনপ্রিয় হিসাবে বিবেচিত হয়ে থাকে।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন] হট চকলেট প্রথম প্রথম ডাচদের দ্বারা ১৭ শতকের দিকে উত্তর আমেরিকায় থেকে আনা হয়েছিল, কিন্তু প্রথমবার ঔপনিবেশিকদের দ্বারা ১৭৫৫ সালের কাছাকাছি সময়ে হট চকলেট বিক্রি করা শুরু হয়। [২০] ঐতিহ্যগতভাবে, হট চকলেট যুক্তরাষ্ট্রের ঠাণ্ডা আবহাওয়া, শীতকাল, এবং ডেজার্টের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। [২১] মেক্সিকোতে, হট চকলেট একটি জনপ্রিয় জাতীয় পানীয় হিসাবে গণ্য করা হয়।ঐতিহ্যগতভাবে মেক্সিকোতে তাৎক্ষনিক গুঁড়া কোকোয়ার হট চকলেট, আধা মিষ্টি চকলেট, দারুচিনি, চিনি, এবং ভ্যানিলা প্রভৃতি যোগে চকোলেট রয়েছে।

দক্ষিণ আমেরিকা[সম্পাদনা]

কলম্বিয়াতে, দুধ ও পানি দিয়ে তৈরি করা হয় এ হট চকলেট। যা "চকোলেটেরা" এবং "মোলিনিলো" বলা হয়। ব্রেকফাস্টে রুটি এবং তাজা পনিরের সঙ্গে উপভোগ করা হয়। চকলেট বার প্রস্তুতিতে চিনি ব্যবহৃত হয় এবং কখনও কখনও এর সাথে দারুচিনি, লবঙ্গ ও ভ্যানিলা যোগ করে চকলেটে আলাদা স্বাদে দেয়া হয়।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

পেরুতে হট চকলেট একটি প্রাচীন ঐতিহ্যের অংশ হিসাবে বিবেচিত হয়। যদিও বড়দিনের ব্রেকফাস্টে এটি পরিবেশিত হয়। এই কারণে চকলেট বার টিপিক্যাল ব্রান্ডের এই কোকোয়া উৎপাদক অঞ্চল থেকে নেয়া হয়। ভাল মানের কোকো উৎপাদন করে এমন অন্য অঞ্চল হল উত্তর পেরুর রেইনফরেস্ট সান মার্টিন অঞ্চল।[তথ্যসূত্র প্রয়োজন]

স্বাস্থ্য[সম্পাদনা]

হট চকলেট সাধারণত আনন্দময় মুহূর্তের জন্য খাওয়া হয়, এ পানীয়টি বিভিন্ন স্বাস্থ্য উপকারিতা প্রদান করে। কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২০০৩ সালের এক গবেষণায় দেখা যায় যে, কোকো ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করতে পারে কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট রয়েছে।[২২] এছাড়াও, কোকো বীজ হজমশক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে। [২৩] ১৬ থেকে ১৯ শতাব্দী পর্যন্ত, এই পানীয়টি (হট চকলেট) মূল্যবান হিসাবে বিবেচিত ছিল কারণ এটি মেডিসিনের সাথে দেয়া হত। [৭]

এক্সপ্লোরার ফ্রান্সিসকো হার্নান্দেজ লিখেছেন চকলেট পানীয় জ্বর এবং যকৃতের রোগ সারাতে সাহায্য করে। [৭] আরেকজন এক্সপ্লোরার, সান্তিয়াগো দে ভোল্ডারডে ট্যুরিসেস বিশ্বাস করেন যে বেশি পরিমাণ হট চকলেট বুকের রোগের চিকিৎসায় সহায়ক ছিল এবং অল্প পরিমাণেও পেট রোগ সারাতে সাহায্য করতে পারে। [৭]

১৭ শতাব্দীতে ফ্রান্সে একটা জনশ্রুতি চালু ছিল, যে "চকলেট প্রচণ্ড রাগ ও মন খারাপের বিরুদ্ধে লড়াই করেতে ব্যবহৃত হয়।"[২০] বর্তমানে, হট চকলেট চিকিৎসা কাজের চেয়ে বরং মনের খোরাক মেটানোর জন্যই খাওয়া হয়, কিন্তু নতুন গবেষণায় এ ড্রিংকে অন্যান্য স্বাস্থ্য সুবিধা থাকতে পারে তা বলা হয়। অন্যদিকে, কিছু হট চকলেটের বিভিন্ন নেতিবাচক প্রভাব রয়েছে যেমন: কিছু রেসিপিতে অতি উচ্চমাত্রায় চিনি রয়েছে,[২৪] এছাড়াও এতে তেলরঙ ও চর্বি থাকে যা স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর।[২৫]

উপকারিতা[সম্পাদনা]

গ্রাফটিতে কোকোয়া, রেড ওয়াইন, এবং সবুজ চা এর অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহের পরিমাণে দেখাচ্ছে

গবেষণায় দেখা গেছেন হট চকলেট স্বাস্থ্যের জন্য ইতিবাচক হতে পারে। কর্নেল বিশ্ববিদ্যালয় দ্বারা পরিচালিত একটি সমীক্ষায় দেখা যায় হট চকলেট হৃদরোগের ঝুঁকি হ্রাস, মদ ও চা বেশী অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহের এ রয়েছে তা দেখানো হয়েছে। [১৬] কোকোয়ার একটি একক রেসিপিতে গবেষণায় গ্যালিক এসিড ৬১২ মিলিগ্রাম (জিএই) এবং ইপিক্যাটিন সমকক্ষ (ইসিই) এর ৫৬৪ মিলিগ্রাম পাওয়া গেছে যা সবুজ চায়ের (জিএই) ৩৪০ মিলিগ্রাম এবং রেড ওয়াইন (ইসিই) ১৬৩ মিলিগ্রাম, এবং (জিএই) 165 মিলিগ্রাম এবং (ইসিই) ৪৭ মিলিগ্রাম পাওয়া গেছে। [২৩] "ইউং ইয়ং লি" এর গবেষণায় পরিচালিত যারা কর্নেল এ অধ্যাপক ও গবেষক বলেন, পানীয় গরম করা হলে তখন অ্যান্টিঅক্সিডেন্টসমূহ প্রচুর পরিমাণে মুক্ত হয়। [১৬] প্রধান কারণ গরম চকলেটে পাওয়া ফ্ল্যাভোনয়েড স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী।এরা রক্তনালীর দেয়াল ক্ষতির থেকে রক্ষা করে।এছাড়াও হট চকলেট এর কোকো ফ্ল্যাভোনয়েড ধামনিক স্বাস্থ্যের ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। চকলেট কোম্পানি দ্বারা সমর্থিত "ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ হেলথ" দ্বারা পরিচালিত একটি বিশেষ গবেষণায় দেখা যায় যে-রিচ কোকো পানীয় একটি "ফ্লাভানল" পানের পরে উচ্চ চাপের রক্ত ​​প্রবাহে উন্নতি দেখিয়েছেন। [২৬] গবেষণার বিষয়ে প্রতিদিন ৯০০ মিলিগ্রাম "ফ্লাভানল" সহ একটি কোকো পানীয় (২৭ জন মানুষ বয়স ২৮ থেকে৭২) পানেবরক্তনালীসমূহের রেখায় যে রক্ত ​​প্রবাহ উন্নতি এবং এন্ডোথেলিয়াল কোষ ফাংশন দেখায় তা দেখা হয়। [২৬] ডঃ নর্মান হলেনবার্গ, ব্রিগহাম এর একটি "নারী হাসপাতাল ও হার্ভার্ড মেডিক্যাল স্কুল" এ মেডিসিন অধ্যাপক আরও গবেষণা পরিচালিত করেন। ফ্লাবানল রক্তবাহে রক্তনালীর দেয়ালে ক্লাস্টারিং থেকে প্লেটলেট অবদান রাখে। [২৬] এভাবে হট চকলেট এর কোকো ফ্ল্যাভোনয়েড ধামনিক স্বাস্থ্যের ওপর ইতিবাচক প্রভাব ফেলে। [২৭]

ফ্লাবানল রক্তে ​​প্লেটলেট জমা কমাবে এবং হৃদযন্ত্রের উপকারী কাজ করবে, যা মাত্রা সামঞ্জস্য বজায় রাখতে যাবে সাহায্য বলে মনে করা হয়। [২৭]

ঝুঁকি[সম্পাদনা]

বেশ কিছু নেতিবাচক প্রভাবের জন্য হট চকলেটকে দায়ী করা যেতে পারে। হট চকলেট বিভিন্ন প্রস্তুত প্রণালীর ফলে বিভিন্ন ধরনের স্বাস্থ্য ঝুঁকি ও রোগের তীব্রতা বাড়তে পারে।[২৮] দুধ থেকে তৈরি হট চকলেটে প্রাকৃতিকভাবে চিনি রয়েছে যা দুধ থেকে পাওয়া যায়। প্রক্রিয়াজাত কোকোয়াতে সাধারণত অতিরিক্ত চিনি রয়েছে। [৪] কিছু কিছু ব্রান্ডের হট চকোলেট এ নারকেল ডেরাইভেটিভস সবচেয়ে সাধারণ, যার হাইড্রোজেনাটেড তেল এবং চর্বি ধারণ করে। [২৫]

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. গ্রাভিটি, লুইস ই.; স্যাপিরো, হুয়ার্ড-ইয়ানা (২০০৯)। চকোলেট: ইতিহাস, সংস্কৃতি, এবং ঐতিহ্য (ইংরেজি ভাষায়)। জন উইলি এন্ড সন্স। পৃষ্ঠা ৩৪৫। আইএসবিএন 978-0-470-12165-8 
  2. "Chocolate invented 3,100 years ago by the Aztecs - but they were trying to make beer"ডেইলি মেইল (ইংরেজি ভাষায়)। লন্ডন। নভেম্বর ১৩, ২০০৭। 
  3. "Silver Chocolate Pot"Metalwork (ইংরেজি ভাষায়)। Victoria and Albert Museum। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১৮, ২০০৭ 
  4. Burleigh, রবার্ট (২০০২)। Chocolate: Riches from the Rainforest (ইংরেজি ভাষায়)। Harry N. Abrams, Ins., Publishers। আইএসবিএন 0-8109-5734-5 
  5. Earley, Diane (২০০১)। The Official M&M's History of Chocolate (ইংরেজি ভাষায়)। Charlesbridge Publishing। আইএসবিএন 1-57091-448-6 
  6. Hickling, William (1838). History of the Conquest of Mexico. আইএসবিএন ০-৩৭৫-৭৫৮০৩-৮.
  7. Stradley, Linda (২০০৪)। "Rediscover True Hot Chocolate - History of Hot Chocolate" (ইংরেজি ভাষায়)। What's Cooking America। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৭, ২০০৮ 
  8. Spadaccini, Jim (২০০৮)। "The Sweet Lure of Chocolate" (ইংরেজি ভাষায়)। Exploratorium। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৮, ২০০৮ 
  9. "Don Cortes" (ইংরেজি ভাষায়)। Cadbury Trebor Bassett। ২০০৮। ২১ অক্টোবর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৭, ২০০৮ 
  10. "History of Hot Chocolate" (ইংরেজি ভাষায়)। Pelangie Studio Design। ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৬, ২০০৮ 
  11. Pearce, David (২০০৮)। "Cacao and Chocolate Timeline" (ইংরেজি ভাষায়)। David Pearce। ১৯ ফেব্রুয়ারি ২০০৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৭, ২০০৮ 
  12. "Chocolate Houses" (ইংরেজি ভাষায়)। Cadbury Trebor Bassett। ২০০৮। ২৮ অক্টোবর ২০০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৭, ২০০৮ 
  13. "About Sir Hans Sloane" (ইংরেজি ভাষায়)। The Natural History Museum। সংগ্রহের তারিখ অক্টোবর ৩, ২০১৫ 
  14. "Chocolate History" (ইংরেজি ভাষায়)। Middleborough Public Schools। ২০০৮। ২ জুলাই ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৬, ২০০৮ 
  15. Craddock, Darren। "Why Hot Cocoa Is Healthier Than Hot Chocolate" (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৬, ২০০৮ 
  16. "Hot Cocoa Tops Red Wine And Tea In Antioxidants; May Be Healthier Choice" (ইংরেজি ভাষায়)। Science Daily। নভেম্বর ৬, ২০০৩। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৬, ২০০৮ 
  17. The Nibble (২০০৫–২০০৮)। "Some Like It Hot: Hot Chocolate & Hot Cocoa Mixes: An Overview" (ইংরেজি ভাষায়)। Lifestyle Direct, Inc.। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ১৫, ২০০৮ 
  18. Rosengarten, David (জানুয়ারি ৬, ২০০৪)। "Hot chocolate like you've never tasted before" (ইংরেজি ভাষায়)। TODAY। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২০, ২০০৯ 
  19. Billet, Felisa (অক্টোবর ২৩, ২০০৯)। "Warming up to real hot chocolate" (ইংরেজি ভাষায়)। USA TODAY। সংগ্রহের তারিখ ডিসেম্বর ২০, ২০০৯ 
  20. Morton, Marcia; Frederic Morton (১৯৮৬)। Chocolate, An Illustrated History (ইংরেজি ভাষায়)। New York: Crown Publishers, Inc.। 
  21. Sciscenti, Mark J. (ফেব্রুয়ারি ৭, ২০১৫)। "Why We Drink Hot Chocolate in the Winter" (ইংরেজি ভাষায়)। The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০১৫ 
  22. ফ্রেন্ডলিডার জুনিয়র, ব্লেইন (নভেম্বর ২০, ২০০৩)। "CU scientists tout the health punch of cocoa over red wine or green tea"কর্নেল চর্ণিকেল (ইংরেজি ভাষায়)। 
  23. Friedlander Jr., Blaine P. (ডিসেম্বর ৩, ২০০৩)। "Ahhhh! Better than red wine or green tea, cocoa froths with cancer-preventing compounds, Cornell food scientists say" (ইংরেজি ভাষায়)। Cornell News। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৫, ২০০৮ 
  24. Bonneville, Marguerite। "Can Chocolate Benefit Your Health?" (ইংরেজি ভাষায়)। Open Kitchen। ২০ জুলাই ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৭, ২০০৮ 
  25. White, Ellie (ডিসেম্বর ১৩, ২০০৭)। "Killer fats hidden in hot drinks" (ইংরেজি ভাষায়)। News Group Newspapers Ltd। সংগ্রহের তারিখ আগস্ট ১১, ২০০৯ 
  26. Olson, Elizabeth (ফেব্রুয়ারি ১৭, ২০০৪)। "Beyond Delicious, Chocolate May Help Pump Up Your Heart" (ইংরেজি ভাষায়)। New York Times। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৫, ২০০৮ 
  27. "Your Heart and Vascular Health" (ইংরেজি ভাষায়)। The Cleveland Clinic। ১৯৯৫–২০০৮। সংগ্রহের তারিখ জুলাই ৫, ২০০৮ 
  28. গার্টম্যান, লিন্ডা; Uri গার্টম্যান (২০০৮)। "হট কোকোয়া ব. হট [[চকোলেট]]" (ইংরেজি ভাষায়)। বেস্ট ফ্রেইন্ডস্ কোকোয়া। ৩১ মে ২০০৮ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ জুন ২৯, ২০০৮  ইউআরএল–উইকিসংযোগ দ্বন্দ্ব (সাহায্য)

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]