স্তেফান এল শারাওই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
স্তেফান এল শারাওই
Stephan El Shaarawy.jpg
২০১১ সালে এল শারাওই
ব্যক্তিগত তথ্য
পূর্ণ নাম স্তেফান কারিম এল শারাওই
জন্ম (১৯৯২-১০-২৭) ২৭ অক্টোবর ১৯৯২ (বয়স ২৬)
জন্ম স্থান সাভোনা, ইতালি
উচ্চতা

১.৭৮ মিটার (৫ ফুট ১০ ইঞ্চি)

[১]
মাঠে অবস্থান ফরোয়ার্ড / উইঙ্গার
ক্লাবের তথ্য
বর্তমান ক্লাব মিলান
জার্সি নম্বর ৯২
যুব পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন
২০০১–২০০৬ লেজিনো
২০০৬–২০০৮ জেনোয়া
জ্যেষ্ঠ পর্যায়ের খেলোয়াড়ী জীবন*
বছর দল উপস্থিতি (গোল)
২০০৮–২০১১ জেনোয়া (০)
২০১০–২০১১পাদুভা (ধার) ২৯ (৯)
২০১১– মিলান ৬৩ (১৮)
জাতীয় দল
২০০৮ ইতালি অনূর্ধ্ব-১৬ (৪)
২০০৮–২০০৯ ইতালি অনূর্ধ্ব-১৭ ১৫ (২)
২০১০ ইতালি অনূর্ধ্ব-১৮ (১)
২০১০ ইতালি অনূর্ধ্ব-১৯ (১)
২০১১– ইতালি অনূর্ধ্ব-২১ (৩)
২০১২– ইতালি ১০ (১)
  • পেশাদারী ক্লাবের উপস্থিতি ও গোলসংখ্যা শুধুমাত্র ঘরোয়া লিগের জন্য গণনা করা হয়েছে এবং ৫ জানুয়ারি ২০১৪ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

† উপস্থিতি(গোল সংখ্যা)।

‡ জাতীয় দলের হয়ে খেলার সংখ্যা এবং গোল ৩০ জুন ২০১৩ তারিখ অনুযায়ী সঠিক।

স্তেফান কারিম এল শারাওই (আরবি: ستيفان كريم الشعراوي‎‎; জন্ম ২৭ অক্টোবর ১৯৯২), একজন ইতালীয় পেশাদার ফুটবলার, যিনি ফরোয়ার্ড হিসেবে সিরি এ এর ক্লাব মিলান এবং ইতালি জাতীয় দলের হয়ে খেলেন। তার ডাকনাম ইল ফারাউনে (ফারাও)।[২] এল শারাওই তার কর্মজীবন শুরু করেন জেনোয়াতে। এরপর তিনি ধারে চলে যান পাদুভাতে, তারপর স্থানান্তরিত হন মিলানে। জ্লাতান ইব্রাহিমোভিচের পারি সাঁ-জের্‌মাঁয় চলে যাওয়ার পর তিনি মিলানের একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ে পরিণত হন। ২০১২ সালে, দ্য গার্ডিয়ান কর্তৃক প্রকাশিত বিশ্বের ১০০ জন সেরা ফুটবলারের তালিকায় তিনি ৫২তম স্থান অর্জন করেন।[৩]

এল শারাওই ইতালি জাতীয় দল এবং ইতালি অনূর্ধ্ব-২১ জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন, এছাড়া তিনি ইতালি অনূর্ধ্ব-১৭ জাতীয় দলের এবং ইতালি অনূর্ধ্ব-১৯ জাতীয় দলের হয়েও খেলেছেন। ২০১২ সালের আগস্টে, ইংল্যান্ডের বিপক্ষে একটি প্রদর্শনী খেলায় ইতালির সিনিয়র দলে তাঁর অভিষেক হয়। আন্তর্জাতিক অভিষেকের তিন মাস পর, ২০১২ সালের নভেম্বরে, ফ্রান্সের বিপক্ষে শারাওই তাঁর প্রথম আন্তর্জাতিক গোল করেন।

প্রারম্ভিক জীবন[সম্পাদনা]

এল শারাওই ইতালির সাভোনাতে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর বাবা মিশরীয় এবং মা ইতালীয়। তিনি একজন নামমাত্র মুসলিম।[৪]

ক্লাব কর্মজীবন[সম্পাদনা]

জেনোয়া[সম্পাদনা]

এল শারাওই তাঁর যুব কর্মজীবন শুরু করেন ১৪ বছর বয়সে স্থানীয় সিরি এ ক্লাব জেনোয়ার হয়ে।[৪]

২০০৮ সালের ২১ ডিসেম্বর, ১৬ বছর এবং ৫৫ দিন বয়সে, কিয়েভোর বিপক্ষে খেলায় জেনোয়ার মূল দলে তাঁর অভিষেক হয়। বদলি হিসেবে নেমে তিনি ১০ মিনিট খেলেন। সিরি এ এর ইতিহাসের চতুর্থ সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে তাঁর অভিষেক হয়।[৫] ওই মৌসুমে এই একটি মাত্র খেলায়ই তিনি মাঠে নামেন, যদিও অনেকগুলো খেলার স্কোয়াডে তিনি বদলি খেলোয়াড় হিসেবে অন্তর্ভুক্ত ছিলেন।

পাদুভা (ধার)[সম্পাদনা]

২০১০ সালের জুনে তাঁকে ধারে পাদুভাতে পাঠানো হয়।[৬] অতি শীঘ্রই তিনি দলের একজন গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়ে পরিণত হন। তিনি দলকে প্রমোশন প্লে-অফের ফাইনালে নিয়ে যান, যেখানে তাঁরা নোভারার বিপক্ষে পরাজিত হয়। তিনি ২০১১ সালে সিরি বি এর সেরা খেলোয়াড়ের পুরস্কার অর্জন করেন।[৭]

মিলান[সম্পাদনা]

রিয়াল মাদ্রিদের বিপক্ষে প্রাক-মৌসুম প্রদর্শনী খেলায় সতীর্থ রবিনিয়োর সাথে এল শারাওই।

২০১১ সালের ২৫ জুন, এ.সি. মিলানের সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেন এল শারাওই।[৮] ২০১১ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর, নাপোলির বিপক্ষে মিলানের হয়ে তাঁর অভিষেক হয়। ঐ খেলায় তাঁরা ৩–১ গোলে পরাজিত হয়।[৯] তিন দিন পর, ক্লাসিও উদিনেজের বিপক্ষে আলেজান্দ্রে পাতোর বদলি হিসেবে মাঠে নেমে মিলানের হয়ে নিজের প্রথম গোল করেন শারাওই। খেলাটি ১–১ গোলে ড্র হয়।[১০]

মিলানে শারাওই তাঁর প্রথম ছয় মাসে মাত্র সাতটি খেলায় মাঠে নামেন। এতে করে সংবাদ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে যে তিনি আরও বেশি খেলায় মাঠে নামার জন্য কোন দলে ধারে চলে যেতে পারেন। অবশ্য ক্লাবের ভাইস-প্রেসিডেন্ট আর্দ্রিয়ানো গাল্লিয়ানি, কোচ মাস্সিমিলিয়ানো আল্লেগ্রির সাথে শারাওইকে অদূর ভবিষ্যত্‍ পর্যন্ত দলে রাখার সিদ্ধান্তে পৌছান। মিলানের হয়ে তিনি উন্নতি করতে থাকেন এবং ইতালির অন্যতম সেরা তরুন প্রতিভাবনে পরিণত হন। ২০১২ সালের ৮ ফেব্রুয়ারী, জুভেন্তাসের বিপক্ষে কোপা ইতালিয়ার সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগে মিলানের হয়ে তিনি একটি গোল করেন, যদিও খেলায় তারা ১–২ গোলে পরাজিত হয়।[১১] তিন দিন পর, উদিনেজের বিপক্ষে তিনি একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ জয়সূচক গোল করেন।[১২]

২০১২–১৩ মৌসুম[সম্পাদনা]

২০১২ সালের ২৫ জুলাই, শারাওই মিলানের সাথে পাঁচ বছরের চুক্তি স্বাক্ষর করেন।[১৩][১৪] ২০১২ সালের ৩ অক্টোবর, জেনিত সেইন্ট পিটার্সবার্গের বিপক্ষে শারাওই তাঁর প্রথম চ্যাম্পিয়নস লীগ গোল করেন। এতে করে ১৯ বছর এবং ৩৪২ দিন বয়সে এসি মিলানের সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় হিসেবে এই প্রতিযোগিতায় গোল করার কৃতিত্ব অর্জন করেন তিনি।[১৫][১৬] ২০১২ সালের ১৭ নভেম্বর, তিনি নগর প্রতিদ্বন্দী নাপোলির বিপক্ষে জোড়া গোল করার মাধ্যমে তিনি দলকে একটি গুরুত্বপূর্ণ খেলায় পরাজয় থেকে রক্ষা করেন।[১৭] তিনি তাঁর দূর্দান্ত ফর্ম ধরে রাখেন এবং কাতানিয়ার বিপক্ষেও জোড়া গোল করে দলকে ১–৩ গোলের জয় এনে দেন।[১৮]

২০১৩–১৪ মৌসুম[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Stephan El Shaarawy profile"এ.সি. মিলান। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  2. "Le confessioni di El Shaarawy: "Devo molto ad Allegri, mi ha sempre dato ottimi consigli. Grazie a lui riesco a tenere i piedi per terra""Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  3. "The 100 best footballers in the world"দ্য গার্ডিয়ান। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  4. "The Little Pharoah with a big reputation"ইয়াহু! স্পোর্টস। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  5. "Olivera lancia il Genoa Il Chievo sprofonda" (ইতালীয় ভাষায়)। La Gazzetta dello Sport। ২২ ডিসেম্বর ২০০৮। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  6. "E' il baby talento Stephan El Shaarawy il primo volto nuovo del Padova 2010–11" (ইতালীও ভাষায়)। ক্লাসিও পাদুভা। ২৭ জুন ২০১০। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  7. "El Shaarawy, Milan's latest jewel"ফিফা। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  8. Devaney, Patrick (২৫ জুন ২০১১)। "Stephen El Shaarawy completes AC Milan transfer"Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  9. Coerts, Stefan (২৯ জুন ২০১২)। "El Shaarawy: I had a great first season at AC Milan"Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  10. "Milan vs. Udinese 1 - 1"সকারওয়ে। ২২ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  11. Voakes, Kris (৮ ফেব্রুয়ারি ২০১২)। "AC Milan vs Juventus Report"Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  12. Webber, Tom (১১ ফেব্রুয়ারি ২০১২)। "Udinese vs AC Milan Report"Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৩ এপ্রিল ২০১৪ 
  13. "El Shaarawy extends Milan contract until 2017"উয়েফা। ২৫ জুলাই ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৪ 
  14. "El Shaarawy renews AC Milan deal"Goal.com। ২৫ জুলাই ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৪ এপ্রিল ২০১৪ 
  15. "El Shaarawy entra nella storia del Milan: è il suo marcatore più giovane in Champions"Milannews.it। ৩ অক্টোবর ২০১২। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৪ 
  16. "Stephan El Shaarawy statistics"Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৪ 
  17. Doyle, Mark (১৭ নভেম্বর ২০১২)। "SSC Napoli vs AC Milan Report"Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৪ 
  18. Webber, Tom (৩০ নভেম্বর ২০১২)। "Catania vs AC Milan Report"Goal.com। সংগ্রহের তারিখ ২৫ এপ্রিল ২০১৪ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]