সৌদি আরব-সেনেগাল সম্পর্ক

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
সৌদি আরব-সেনেগাল সম্পর্ক
মানচিত্র সৌদি আরব এবং সেনেগালের অবস্থান নির্দেশ করছে

সৌদি আরব

সেনেগাল

সৌদি আরব-সেনেগাল সম্পর্ক দ্বারা সৌদি আরব অধিরাজ্য এবং সেনেগাল প্রজাতন্ত্রের মধ্যকার সাম্প্রতিক ও ঐতিহাসিক সম্পর্ককে বোঝানো হয়ে থাকে। সৌদি আরবের দূতাবাস যেখানে ডাকারে অবস্থিত, সেখানে সেনেগালের দূতাবাস রিয়াদে এবং বাণিজ্যদূতাবাস জেদ্দায় অবস্থিত। উভয় দেশ সুন্নি মুসলিম ধর্মাবলম্বী হওয়ায়, সৌদি আরব ও সেনেগালের মধ্যে পারস্পরিক সম্পর্ক খুবই জোরদার। উভয় দেশ সাম্প্রতিককালে কূটনৈতিক বিষয়সমূহে একে অপরকে সমর্থন দিচ্ছে।

সাম্প্রতিক সম্পর্ক[সম্পাদনা]

ইয়েমেনী গৃহ যুদ্ধ[সম্পাদনা]

ইয়েমেনী গৃহ যুদ্ধের শুরু থেকেই সেনেগাল, হৌথিস, ইয়েমেনের স্বদেশী একটি শিয়া বিদ্রোহী দলের বিরুদ্ধে সৌদি-পরিচালিত জোটের হয়ে লড়ছে। সেনেগাল ২,১০০-রো অধিক সৈন্য সৌদি আরবে প্রেরণ করেছে,[১] এবং দক্ষিণ সৌদি আরবে হৌথি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধে একে অপরকে সহায়তা করছে।

ইরান[সম্পাদনা]

ইরানের সাথে পারস্পরিক সম্পর্ক জোরদার হলেও, দেশটিতে ইরানের প্রভাব নিয়ে সেনেগাল সতর্ক। ফলে, সৌদি আরব আফ্রিকার দেশসমূহে ইরানীয় প্রভাব কমাতে প্রচেষ্টা চালাচ্ছে।[২]

কাতারের কূটনৈতিক সংকট[সম্পাদনা]

কাতারের সাথে সম্পর্ক বিচ্ছিন্ন না করলেও, সৌদিআরব এবং কাতারের মধ্যে কূটনৈতিক সংকট শুরু হওয়ার সময় থেকেই কাতারের সাথে সম্পর্ক কমিয়ে সেনেগাল সৌদি আরবকে সমর্থন দিচ্ছে। যাইহোক, সেনেগাল পরবর্তীতে আবার কাতারে তার রাষ্ট্রদূতকে পূনর্বহাল করে, যাতে উপসাগরীয় এই আরব দেশ দুটিতে দুশ্চিন্তা কাটিয়ে সম্পরক উন্নয়ন করা যায়।[৩]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Senegal to send 2,100 troops to join Saudi-led 5, 2015"রয়টার্স 
  2. "In Senegal, Iran and Saudi Arabia vie for religious influence"রয়টার্স। মে ১২, ২০১৭।  line feed character in |title= at position 21 (সাহায্য)
  3. "Senegal reappoints Qatar ambassador, urges to resolve crisis"Daily Sabah 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]