সাহেবজাদা ইয়াকুব খান

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
সাহেবজাদা ইয়াকুব খান
صاحبزادہ یعقوب خان
পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী
কাজের মেয়াদ
১১ নভেম্বর ১৯৯৬ – ২৪ ফেব্রুয়ারি ১৯৯৭
রাষ্ট্রপতি ফারুক লেগারি
প্রধানমন্ত্রী মইনউদ্দিন আহমেদ কুরেশি
পূর্বসূরী আগা শাহি
উত্তরসূরী গওহর আইয়ুব খান
কাজের মেয়াদ
২১ মার্চ ১৯৮২ – ২০ মার্চ ১৯৯১
রাষ্ট্রপতি জেনারেল মুহাম্মদ জিয়া-উল-হক
গোলাম ইসহাক খান
প্রধানমন্ত্রী মুহাম্মদ খান জুনেজো
নওয়াজ শরিফ
যুক্তরাষ্ট্রে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত
কাজের মেয়াদ
১৯ ডিসেম্বর ১৯৭৩ – ৩ জানুয়ারি ১৯৭৯
রাষ্ট্রপতি ফজল ইলাহি চৌধুরী
জেনারেল মুহাম্মদ জিয়া-উল-হক
প্রধানমন্ত্রী জুলফিকার আলি ভুট্টো
পূর্বসূরী সুলতান মুহাম্মদ খান
উত্তরসূরী সুলতান মুহাম্মদ খান
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম মুহাম্মদ ইয়াকুব আলি খান
(১৯২০-১২-২৩)২৩ ডিসেম্বর ১৯২০
রামপুর, উত্তরপ্রদেশ, ব্রিটিশ ভারত
মৃত্যু ২৬ জানুয়ারি ২০১৬(২০১৬-০১-২৬) (৯৫ বছর)
ইসলামাবাদ, পাকিস্তান
নাগরিকত্ব ব্রিটিশ ভারত ব্রিটিশ ভারত
(১৯২০–১৯৪৭)
 পাকিস্তান
(১৯৪৭–২০১৬)
জাতীয়তা পাকিস্তানি
দাম্পত্য সঙ্গী বেগব তুবা খলিলি
সন্তান ২ পুত্র
প্রাক্তন ছাত্র ভারতীয় সামরিক কলেজ
মন্ত্রীসভা জিয়ার সামরিক সরকার
ইয়াহিয়ার সামরিক সরকার
বেনজির ভুট্টোর সরকার
ধর্ম ইসলাম
সামরিক পরিষেবা
ডাকনাম SYAK
আনুগত্য  পাকিস্তান
সার্ভিস/শাখা  পাকিস্তান সেনাবাহিনী (PA – 136)
কার্যকাল ১৯৪০-১৯৭২
১৯৮২–১৯৯১
পদ US-O9 insignia.svg লেফটেনেন্ট-জেনারেল
ইউনিট পাকিস্তান আর্মি আর্ম‌র্ড‌ কর্প‌স
কমান্ড পূর্বাঞ্চলীয় সামরিক হাই কমান্ড, পূর্ব পাকিস্তান
১ম আর্ম‌র্ড‌ ডিভিশন, আর্মি আর্ম‌র্ড‌ কর্প‌স
কমান্ড এন্ড স্টাফ কলেজ
চীফ অব জেনারেল স্টাফ
যুদ্ধ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ
ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ ১৯৬৫
ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধ ১৯৭১
বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধ
সোভিয়েত-আফগান যুদ্ধ

লেফটেনেন্ট-জেনারেল সাহেবজাদা ইয়াকুব খান (উর্দু: صاحبزادہ یعقوب خان; (23 (ডিসেম্বর ২৩, ১৯২০ – ২৬ জানুয়ারি ২০১৬) ছিলেন পাকিস্তানের একজন সামরিক কর্মকর্তা। সামরিক দায়িত্বের পাশাপাশি তিনি সরকারেও দায়িত্বপালন করেছেন। তিনি পূর্ব পাকিস্তানের সামরিক আইন প্রশাসক ও গভর্নর ছিলেন। জেনারেল জিয়াউল হকের অধীনে তিনি ১৯৮২ থেকে ১৯৯১ সাল পর্যন্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রীর দায়িত্বপালন করেছেন। ১৯৯৬ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি তত্ত্বাবধায়ক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

জন্ম[সম্পাদনা]

ইয়াকুব খান ভারতের দেশীয় রাজ্য রামপুরে একটি পশতুন মুসলিম রাজপরিবারে জন্মগ্রহণ করেন।[১] তার বাবা সাহেবজাদা স্যার আবদুস সামাদ খান বাহাদুর রামপুরের মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন এবং লীগ অব নেশন্সে ব্রিটিশ ভারতের প্রতিনিধিত্ব করেছেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

ইয়াকুব খান দেরাদুনের কর্নেল ব্রাউন ক্যামব্রিজ স্কুল ও প্রিন্স অব ওয়েলস রয়েল ইন্ডিয়ান মিলিটারি কলেজে পড়াশোনা করেছেন। ১৯৪০ সালের ২২ ডিসেম্বর তিনি কমিশন লাভ করেন। ৩য় ইন্ডিয়ান মটর ব্রিগেডের অংশ ১৮তম কিং এডওয়ার্ড'স ওন ক্যাভালরিতে তিনি যোগ দেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় তিনি ব্রিটিশ ভারতীয় সেনাবাহিনীর সৈনিক হিসেবে উত্তর আফ্রিকায় দায়িত্বপালন করেছেন। ১৯৪২ সালের ৩ এপ্রিল তিনি লেফটেন্যান্ট পদে উন্নীত হন। সেই বছরের ২৭ মে তিনি বন্দী হন এবং অক্ষশক্তির যুদ্ধবন্দী শিবিরে পরবর্তী তিন বছর কাটানোর পর মুক্তি পান। স্বাধীনতার পর তিনি পাকিস্তান সেনাবাহিনীতে যোগ দেন। তার বড় ভাই সাহেবজাদা ইউনুস খান ভারতীয় সেনাবাহিনীতে থেকে গিয়েছিলেন। ১৯৪৮ সালে কাশ্মিরের রণাঙ্গনে তারা দুই ভাই পরস্পরের বিরুদ্ধে লড়াই করেছেন। সেনাবাহিনীতে তিনি লেফটেন্যান্ট-জেনারেল হিসেবে পদোন্নতি পেয়েছিলেন। তিনি চীফ অব জেনারেল স্টাফ, পূর্বাঞ্চলীয় কমান্ডের কমান্ডার এবং পূর্ব পাকিস্তানের গভর্নর হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন।

কূটনৈতিক দায়িত্ব[সম্পাদনা]

সেনাবাহিনী থেকে অবসর নেয়ার পর তিনি কূটনৈতিক হিসেবে কাজ শুরু করেন। ১৯৭২ থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত তিনি ফ্রান্স, যুক্তরাষ্ট্র ও সোভিয়েত ইউনিয়নে পাকিস্তানের রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্বপালন করেছেন। ১৯৮২ সালে তিনি পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ পান। ১৯৯২ থেকে ১৯৯৭ সাল পর্যন্ত তিনি জাতিসংঘে পশ্চিম সাহারার প্রতিনিধি ছিলেন।

অন্যান্য কর্মকাণ্ড[সম্পাদনা]

তিনি আগা খান বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রাস্টি বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান। ২০০১ সালে অবসর গ্রহণের পূর্ব পর্যন্ত দুই দশক তিনি এই দায়িত্বপালন করেছেন।[২] কার্নে‌জ কমিশনে তিনি কমিশনার হিসেবে কাজ করেছেন।[৩]

ব্যক্তিগত জীবন[সম্পাদনা]

ইয়াকুব খান কলকাতার ইরানি খলিলি পরিবারের সদস্য বেগব তুবা খলিলিকে বিয়ে করেছেন।

মৃত্যু[সম্পাদনা]

ইয়াকুব খান ২০১৬ সালের ২৬ জানুয়ারি ইসলামাবাদে ইন্তেকাল করেন।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  • Indian Army List (April 1942, April 1945)
  • Maj Gen Gurcharn Singh Sadu, I serve The Eighteenth Cavalry

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]