লক্ষ্মী প্রতুরী

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
লক্ষ্মী প্রতুরী
Lakshmi Pratury BW.jpg
জাতীয়তাভারতীয়
পেশাউদ্যোক্তা, উপস্থাপক, স্পিকার

লক্ষ্মী প্রতুরী হলেন একজন উদ্যোক্তা, তত্ত্বাবধায়ক, বক্তা এবং উপস্থাপক। তিনি নিজেই নিজেকে "লোক সংগ্রাহক" হিসেবে অভিহিত করে থাকেন। তিনি আইএনকে-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইও। তিনি সরাসরি অনুষ্ঠান এবং ইঙ্কটকস.কম-এর উপস্থাপক এবং তত্তাবধায়ক হিসেবে কাজ করছেন।

লক্ষ্মী আইএনকে-এর সহযোগিতায় সিঙ্গুলারিটিইউ ইন্ডিয়া সম্মেলনের পরিচালক হিসাবেও দায়িত্ব পালন করেছেন।[১] তিনি সিঙ্গুলারিটি বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃক আয়োজিত এশিয়ার প্রথম শীর্ষ সম্মেলনে কাজ করেছেন। তিনি বেশ কয়েকটি পুরস্কার এবং সম্মান অর্জন করার পাশাপাশি ২০১৫ সালে অডি রিটজ পুরস্কার অনুষ্ঠানে "অনুপ্রেরণামূলক আইকন" খেতাব পেয়েছিলেন।[২] অতঃপর তিনি ফোর্বস ম্যাগাজিনের ২০১০ সালের "উইমেন টু ওয়াচ ইন এশিয়া" তালিকাতে অন্তর্ভুক্ত ছিলেন।[৩] লক্ষ্মী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে টিইডি সম্মেলন, জার্মানিতে ডিএলডি সম্মেলন এবং যুক্তরাজ্যে ওয়াইআরডির মত সম্মেলনে বক্তব্য পেশ করেছেন।

এর পূর্বে, লক্ষ্মী দুই দশক ধরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রযুক্তি, উদ্যোগের মূলধন এবং অলাভজনক শিল্পে কাজ করেছিলেন। তিনি হায়দ্রাবাদ, মুম্বাই, পোর্টল্যান্ড এবং সান ফ্রান্সিসকো বে এরিয়ায় বসবাস করেছেন। তিনি বর্তমানে বেঙ্গালুরু এবং উপসাগরীয় অঞ্চলের মধ্যে সময় কাটাচ্ছেন।

পটভূমি[সম্পাদনা]

লক্ষ্মী ভারতের বিশাখাপত্তনমে জন্মগ্রহণ করেছেন। তিনি হায়দ্রাবাদের ওসমানিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে নিজাম কলেজ থেকে পড়াশোনা করেছিলেন; যেখানে তিনি স্নাতক ডিগ্রি লাভ করেছিলেন। ক্লাসে শিক্ষার্থীদের মধ্যে প্রথম স্থান নিয়ে স্নাতক হওয়ার পাশাপাশি তিনি গণিতে একটি স্বর্ণপদক পেয়েছিলেন। তিনি মুম্বইয়ের ভারতীয় প্রযুক্তিবিদ্যা প্রতিষ্ঠানে যোগ দিতে গিয়েছিলেন। তিনি ভারতের বাজাজ ইনস্টিটিউট থেকে এমবিএ শেষ করেছেন। পরে তিনি ওরেগনের পোর্টল্যান্ড স্টেট বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দ্বিতীয় এমবিএ অর্জন করেছিলেন। পড়াশোনার এই কোর্স চলাকালীন, তিনি থিয়েটার আর্টসে মাইনর করেছেন।

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

লক্ষ্মী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ইন্টেল-এ ১২ বছর ধরে অর্থ, বিপণন, ব্যবসায়িক উন্নয়ন এবং কৌশল ক্ষেত্রে কাজ করেছিলেন। তিনি ইন্টেলের সাথে কৌশলগত সম্পর্ক বিকাশের জন্য সফটওয়্যার বিকাশকারী, মিডিয়া সংস্থা এবং কন্টেন্ট সংস্থাগুলোর সাথে কাজ করেছিলেন। তিনি সেই দলেরও অংশ ছিলেন, যেটি ইন্টেলের বিনিয়োগকে আরও বড় প্রযুক্তিতে অন্তর্ভুক্ত করার কাজ শুরু করেছিল; এটি পরবর্তীকালে ইন্টেল ক্যাপিটালে বিবর্তিত হয়েছিল।

অন্যান্য কাজ[সম্পাদনা]

লক্ষ্মী ভারতের বেঙ্গালুরুতে ৯৪.৩ এফএম রেডিওর একটি অনুষ্ঠান টক অ্যাট ১২ উইথ লক্ষ্মী প্রতুরী-এর উপস্থাপনা করেছেন; এই অনুষ্ঠানে তিনি বিভিন্ন ব্যক্তিবর্গের সাক্ষাৎকার গ্রহণ করেছেন। তিনি সান ফ্রান্সিসকো ক্রনিকল, সান জোসে মার্কারি নিউজ এবং মিন্টে নিবন্ধ প্রকাশ করেছেন। তদুপরি, তিনি জাতীয় পাবলিক রেডিওতে রেডিও অনুষ্ঠানে অবদান রেখেছেন। ২০১৪ সালে ভোগ ইন্ডিয়ার সপ্তম বার্ষিকী সংখ্যায় লক্ষ্মীকে নিয়ে লেখা ছিল, এই সংখ্যাটি নারী ক্ষমতায়নের উপর উৎসর্গীকৃত ছিল।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]