আইন ও সালিশ কেন্দ্র

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক)
সংক্ষেপেআসক
গঠিত২০ সেপ্টেম্বর ১৯৮৬; ৩৩ বছর আগে (1986-09-20)
প্রতিষ্ঠাস্থানঢাকা, বাংলাদেশ
ধরণঅলাভজনক সংগঠন
আইনি অবস্থাসক্রিয়
সদরদপ্তর২/১৬, ব্লক: বি, লালমাটিয়া, মোহাম্মদপুর
অবস্থান
এলাকাগত সেবা
বাংলাদেশ
নির্বাহী
শীপা হাফিজা
স্টাফ
২৩২ (এপ্রিল ২০১৪ অনুযায়ী)
ওয়েবসাইটwww.askbd.org

আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক) বাংলাদেশের একটি বেসরকারী সংস্থা যারা মানবাধিকার নিয়ে কাজ করার পাশাপাশি আইনগত সহায়তাও দিয়ে থাকে। এটি বাংলাদেশের প্রথম সারির একটি মানবাধিকার সংগঠন যারা বিশেষভাবে শ্রমিক ও নারী অধিকার নিয়ে কাজ করেন।[১] এছাড়াও সংস্থাটি বাংলাদেশী আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কর্তৃক ঘটা মানবাধিকার লঙ্ঘনসমূহ বিভিন্ন সময় তুলে ধরেন।[১] আন্তর্জাতিক পর্যায়ে সংস্থাটি অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল[২] এবং জাতিসংঘ অর্থনৈতিক ও সামাজিক পরিষদের[১] পরামর্শক হিসেবে কাজ করে থাকে। ১৯৮৬ সালে বাংলাদেশের প্রখ্যাত আইনজীবীরা একত্রিত হয়ে সংস্থাটি গঠন করেন। বর্তমানে অ্যাডভোকেট জেড আই খান পান্না সংস্থাটির চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন।[৩]

কার্যক্রম[সম্পাদনা]

আইন ও সালিশ কেন্দ্র আন্তর্জাতিক সংস্থা ছাড়াও বাংলাদেশে মানবাধিকার ও সামাজিক এবং লিঙ্গভিত্তিক ন্যায়বিচার নিশ্চিত করার লক্ষ্যে কাজ করা স্থানীয় বিভিন্ন সংস্থার সাথে যৌথভাবে বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করছে। এসব কার্যক্রম পরিচালনায় স্থানীয় সংস্থাগুলোর সহয়তায় বাংলাদেশের ১০টি জেলায় ৪০টি ইউনিয়নে কার্যক্রম পরিচালনা করছে।

এছাড়াও তাদের কার্যক্রমে অন্তর্ভূক্ত রয়েছে শ্রমজীবী শিশুদের মৌলিক শিক্ষা প্রদান। শিশু নির্যাতন ও তাদের অধিকার রক্ষায় বিভিন্ন সময় সচেতনতামূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে থাকে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. আহমেদ, সাঈদ (২০১২)। "আইন ও সালিশ কেন্দ্র"ইসলাম, সিরাজুল; জামাল, আহমেদ এ।। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (দ্বিতীয় সংস্করণ)। বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটি 
  2. "Amnesty International congratulates Ain O Salish Kendra on their 25th anniversary" (PDF)অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল (ইংরেজি ভাষায়)। ২২ সেপ্টেম্বর ২০১১। সংগ্রহের তারিখ ১৮ অক্টোবর ২০১৪ 
  3. "Executive Committee"Ain o Salish Kendra(ASK) | A Legal Aid & Human Rights Organisation (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১২-০১