রক্ষীবাহিনীর সত্য-মিথ্যা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
রক্ষীবাহিনীর সত্য-মিথ্যা
রক্ষীবাহিনীর সত্য-মিথ্যা.jpg
লেখকআনোয়ার উল আলম
দেশবাংলাদেশ
ভাষাবাংলা ভাষা
ধরনঐতিহাসিক
প্রকাশকপ্রথমা প্রকাশন
আইএসবিএন৯৭৮৯৮৪৯০২৫৩৯৯

রক্ষীবাহিনীর সত্য-মিথ্যা কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) আনোয়ার উল আলম রচিত[১] একটি বই যা শেখ মুজিবুর রহমানের শাসনামলে জাতীয় রক্ষীবাহিনীর বিভিন্ন কর্মকাণ্ডের সন্ধান করে লিখিত।[২][৩]

সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে ১৯৭২ সালের প্রথম দিকে সরকার মুক্তিবাহিনীর সদস্যদের নিয়ে গঠন করেছিল জাতীয় রক্ষীবাহিনী। এ বাহিনীর কাজ ছিল যুদ্ধবিধ্বস্ত দেশের আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় বেসামরিক প্রশাসনকে সহায়তা করা। কিন্তু এর কর্মকাণ্ড নিয়ে নানা তর্ক-বিতর্ক শুরু হয়। প্রকৃতপক্ষে ১৯৭২-১৯৭৫ সাল পর্যন্ত আলোচনা-সমালোচনার একটি কেন্দ্রবিন্দু ছিল রক্ষীবাহিনী। সেই তর্ক-বিতর্ক আজও শেষ হয়নি।

এই গ্রন্থের লেখক আনোয়ার উল আলম শহীদ একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা, অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা ও সাবেক রাষ্ট্রদূত। লেফটেন্যান্ট কর্নেল পদমর্যাদায় তিনি রক্ষীবাহিনীর উপপরিচালক ছিলেন। তিনি রক্ষীবাহিনীর গঠন প্রক্রিয়া থেকে শুরু করে সেনাবাহিনীর  সাথে আত্তীকরণ পর্যন্ত, অর্থাৎ শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত রক্ষীবাহিনীর সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিলেন। রক্ষীবাহিনী নিয়ে যেসব প্রশ্ন ও বিতর্ক রয়েছে, তিনি সেসব নিয়ে আলোচনা করেছেন। তাঁর ভাষ্যে উন্মোচিত হয়েছে রক্ষীবাহিনী ও এর সাথে সংশ্লিষ্ট অনেক অজানা কথা।

এছাড়া আনোয়ার উল আলম ছিলেন বঙ্গবন্ধুর শাসনামলে সংঘটিত বিভিন্ন জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ ঘটনা, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ড ও এর পরবর্তী ঘটনাপ্রবাহের সরাসরি সাক্ষী এবং সেই সময়ের দেশের নীতিনির্ধারকদের খুব কাছ থেকে দেখেছেন ও তাঁদের সাথে কাজ কারেছেন। সেসব ঘটনা ও মানুষদের বর্ণনাও এই বইয়ে রয়েছে এবং তাই, একে বাংলাদেশের জাতীয় ইতিহাসের উত্থান-পতনময় কালপর্বের তাৎপর্যপূর্ণ দলিলবিশেষ মনে করা হয়। [৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Page not found | Dhaka Tribune"www.dhakatribune.com। ২০১৯-০৯-২৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৭ 
  2. "Myth, reality and Rakkhi Bahini"The Daily Star (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৪-০১-১৩। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-০৯-২৭ 
  3. "রক্ষীবাহিনীর উত্থান ও পতনের কাহিনি"প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১০-০৭ 
  4. "সংরক্ষণাগারভুক্ত অনুলিপি"। ৪ জুন ২০২০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৪ জুন ২০২০