যদুনাথ সিংহ

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
যদুনাথ সিংহ
যদুনাথ সিংহ.jpg
জন্মযদুনাথ সিংহ
১৮৯২
কুরুমগ্রাম, বীরভূম, পশ্চিমবঙ্গ
মৃত্যুআগস্ট ১০, ১৯৭৮(১৯৭৮-০৮-১০)
পেশাদার্শনিক, লেখক
ভাষাবাংলা, ইংরাজি
জাতীয়তাভারতীয়
নাগরিকত্বভারতীয়
শিক্ষাস্নাতক
শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়
উল্লেখযোগ্য রচনাA manual of ethics,
Indian psychology,
A history of Indian philosophy,
Indian Philosophy
উল্লেখযোগ্য পুরস্কারফিলিপ স্যামুয়েল স্মিথ পুরস্কার, ক্লাইন্ট মেমোরিয়াল পুরস্কার

যদুনাথ সিংহ (১৮৯২ – ১০ আগস্ট, ১৯৭৮) হলেন ভারতীয় ইতিহাসের একজন বিখ্যাত বাঙালি হিন্দু দার্শনিক তথা লেখক।[১][২]

জন্ম ও পরিবার[সম্পাদনা]

যদুনাথ সিংহ পশ্চিমবঙ্গের বীরভূম জেলার কুরুমগ্রামে ১৮৯২ খ্রিষ্টাব্দে সিংহ পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। পরবর্তীকালে তারা মুর্শিদাবাদকলকাতায় বসবাস করেন। যদুনাথ সিংহ এক শাক্ত বাঙালি হিন্দু পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাই তার জীবনে আধ্যাত্মিক অভিজ্ঞতার উন্মেষ ঘটে। তার শাস্ত্রীয় তন্ত্রশাস্ত্র ও তন্ত্র ভক্তির উপর বিশ্বাস ছিল। তিনি তন্ত্র শাস্ত্রকে দার্শনিক চিন্তার মাধ্যমে সার্বিকিকরণ করতে সচেষ্ট হন।[১]

শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

যদুনাথ সিংহ ১৯১৫ খ্রিষ্টাব্দে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে দর্শনে বি.এ. পাশ করেন ও ফিলিপ স্যামুয়েল স্মিথক্লাইন্ট মেমোরিয়াল পুরস্কারের জন্য আবেদন করেন। এরপর তিনি ১৯১৭ খ্রিষ্টাব্দে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয় থেকেই এম.এ. পাশ করেন এবং পরবর্তীতে ১৯৩৪ খ্রিষ্টাব্দে সেখান থেকেই পি.এইচ.ডি. করেন। এরপর বিভিন্ন প্রসিদ্ধ প্রকাশনা থেকে তিনি তার লেখা দর্শন ও অন্যান্য বিষয়ক বিভিন্ন বই প্রকাশ করেন। তার লেখা দুটি বই লন্ডনের M/s. Kegan Paul থেকে প্রকাশিত হয়। এরপর ডঃ সিংহ ভারতীয় দার্শনিক হিসেবে নিজেকে তুলে ধরেন। পরবর্তীতে তিনি আধ্যাত্মিক চেতনায় নিজের জীবন অতিবাহিত করেন।[৩]

রাধাকৃষ্ণানের সঙ্গে মোকদ্দমা[সম্পাদনা]

১৯২৯ খ্রিষ্টাব্দের জানুয়ারি মাসে অধ্যাপক যদুনাথ সিংহ ভারতের সারস্বত সমাজকে নাড়িয়ে দিয়ে সর্বপল্লী রাধাকৃষ্ণানের বিরুদ্ধে থিসিস চুরির অভিযোগে কলকাতা উচ্চআদালতে মামলা করেন। যদুনাথ সিংহ প্রেমচাঁদ রায়চাঁদ বৃত্তির জন্য যে গবেষণাপত্রটি ইন্ডিয়ান সাইকলজি অব পারসেপশন প্রথম ও দ্বিতীয় খণ্ড জমা দিয়েছিলেন, সেই গবেষণাপত্র থেকে ব্যাপকভাবে টুকে ধরা পড়েছিলেন রাধাকৃষ্ণান।[৪]

১৯২৭ সালে প্রকাশিত হয়েছিল রাধাকৃষ্ণানের সাড়া জাগানো বই "ইন্ডিয়ান ফিলজফি"র দ্বিতীয় খণ্ড, যা ছিল ডঃ যদুনাথ সিংহের গবেষণাপত্রটির পুনর্মুদ্রণ। ডঃ সিংহ এই চুরির বিষয়টি জানতে পারেন যখন ১৯২৮ সালে রাধাকৃষ্ণানের দ্য বেদান্ত অ্যাকর্ডিং টু শংকর অ্যান্ড রামানুজ নামে আরো একটি বই প্রকাশিত হয়। এই বইটি ছিল রাধাকৃষ্ণনের ইন্ডিয়ান ফিলজফি দ্বিতীয় খণ্ডের অষ্টম এবং নবম অধ্যায়ের একটি স্বতন্ত্র পুনর্মুদ্রণ।[পাদটিকা ১][৫] সেই বইটি থেকেই যদুনাথ সিংহ সবিস্ময়ে জানতে পারেন যে তার গবেষণার প্রথম দুটি অধ্যায় থেকে অনেক অনুচ্ছেদ খ্যাতনামা অধ্যাপক রাধাকৃষন চুরি করেন।[৬]

ডঃ সিংহ মর্ডান রিভিউ পত্রিকায় রাধাকৃষ্ণনের এই চৌর্যবৃত্তির ইতিবৃত্ত তুলনামূলক ভাবে প্রকাশ করেন। সিংহপুরুষ যদুনাথ সিংহ মরিসন রিভিউ পত্রিকার মাধম্যে ও কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করে রাধাকৃষ্ণনের মতো মহান মানুষের প্রকৃত মুখোশ খুলে দেন। কলকাতা হাইকোর্ট এই মামলাটির রায় না বের করেই মামলার স্থগিতাদেশ দিয়ে দেন।[পাদটিকা ২] কিন্তু ডঃ সিংহ মানুষদের জানিয়ে দিয়েছিলেন রাধাকৃষ্ণনের চৌর্যবৃত্তির কথা।

রচিত গ্রন্থ[সম্পাদনা]

তথ্যসমূহ[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "A Biography of Jadunath Sinha"www.om-guru.com। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-০৭ 
  2. "সম্পাদক সমীপেষু: জেনে রাখা ভাল"anandabazar.com (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-০৭ 
  3. Aich, Utpal। "Dr. Sarvepalli Radhakrishnan: The teacher who stole from his student's thesis"Round Table India (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-০৭ 
  4. Bakhtiar, Idrees (২০১২-০৮-১৪)। "Subcontinental plagiarism"DAWN.COM (ইংরেজি ভাষায়)। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-০৯ 
  5. "Why Teachers' Day in India is a sham"www.dailyo.in। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-০৯ 
  6. "S. Radhakrishnan: Philosopher, President, Plagiarizer? | Madras Courier"Madras Courier (ইংরেজি ভাষায়)। ২০১৬-১০-২০। সংগ্রহের তারিখ ২০১৮-০৯-০৮ 
  7. Jadunath Sinha (১৯৩৪)। Indian Psychology Perception 
  8. Sinha, Jadunath (১৯৫৬)। A History of Indian Philosophy (ইংরেজি ভাষায়)। Sinha Publishing House। 
  9. Sinha, Jadunath (১৯৯৮)। Outline Of Indian Philosophy (ইংরেজি ভাষায়)। New Central Book Agency। আইএসবিএন 9788173812033 

পাদটিকা[সম্পাদনা]

  1. Dr. Radhakrishnan had published another book titled "The Vedanta according to Sankara and Ramanuja" in 1928, which was actually a reprint of Chapters 8 & 9 of his book "Indian Philosophy Vol. II." That book also had extensive pirated paragraphs from Prof. Jadunath Sinha's Premchand Roychand Studentship thesis. Luckily for Prof. Jadunath Sinha, he had published extracts from those two parts of his Premchand Roychand Studentship thesis in the Meerut College Magazines of 1924 and 1926.
  2. Then in the first half of the month of August 1929, Prof. Jadunath Sinha sued Dr. Sarvepalli Radhakrishnan in the Calcutta High Court for infringement of copyrights of his original literary works, claiming Rs.20,000/- as damages. Sometime in the first week of September 1929, Radhakrishnan filed a counter libel suit against Prof. Jadunath Sinha and Shri Ramananda Chattopadhyay demanding Rs.1,00,000/-. Probably Radhakrishnan thought that attack was the best defence!