ম্যান অব স্টিল (চলচ্চিত্র)

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
(ম্যান অফ স্টিল (চলচ্চিত্র) থেকে পুনর্নির্দেশিত)
ম্যান অব স্টিল (Man of Steel)
সুপারম্যান তার ঐতিহাসিক লাল-নীল পোশাক পড়ে আকাশের দিকে উড়ছে। চলচ্চিত্রের শিরোনাম, প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান, রেটিং ও মুক্তির তারিখ নিচে লেখা রয়েছে।
ম্যান অব স্টিল অফিশিয়াল পোস্টার
পরিচালক জ্যাক স্নাইডার
প্রযোজক ক্রিস্টোফার নোলান
চার্লস রোভেন
ইমা থমাস
দেবরাহ স্নাইডার
চিত্রনাট্যকার ডেভিড এস গোইয়ার
গল্পকার ক্রিস্টোফার নোলান
ডেভিড এস. গোইয়ার
উৎস জেরি সিয়েগেল
জো সুস্টার কর্তৃক 
সুপারম্যান
অভিনেতা
সুরকার হ্যান্স জিমার[১]
চিত্রগ্রাহক আমির মোক্রি[২]
সম্পাদক ডেভিড ব্রেনার
স্টুডিও লিজেন্ডারি পিকচারস
সিনকপি
ডিসি এন্টারটেইনমেন্ট
পরিবেশক ওয়ার্নার ব্রস পিকচারস
মুক্তি
  • জুন ১৪, ২০১৩ (২০১৩-০৬-১৪)[৩]
দৈর্ঘ্য ১৪৩ মিনিট[৪][৫]
দেশ  যুক্তরাষ্ট্র
ভাষা ইংরেজি
নির্মাণব্যয় $২২৫ মিলিয়ন[৬]
আয় $৬৬৮ মিলিয়ন[৭]

ম্যান অব স্টিল ২০১৩ সালে মুক্তি পাওয়া একটি মার্কিন চলচ্চিত্র। এটি একটি সুপার হিরো নির্ভর চলচ্চিত্র, যেখানে ডিসি কমিক্স চরিত্র সুপারম্যানকে নিয়ে কাহিনী চিত্রায়িত হয়েছে। [৮] ছবিটি লিজেন্ডারি পিকচার্স এবং সিঙ্কপি ফিল্মস-এর যৌথ প্রযোজনায় নির্মিত এবং ওয়ার্নার ব্রস-এর ব্যানারে সরবরাহকৃত।[৯] পরিচালনায় ছিলেন জ্যাক স্নাইডার এবং প্রযোজক হিসেবে কাজ করেছেন ক্রিস্টোফার নোলান। সিনেমাটিতে সুপারম্যান চরিত্রে অভিনয় করেছেন ব্রিটিশ অভিনেতা হেনরি ক্যাভিল। সাথে রয়েছেন অ্যামি অ্যাডামস। যিনি লইস লেনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। আরও অভিনয় করেন রাসেল ক্রো, লরেন্স ফিশবার্ন, মাইকেল শ্যানন প্রমুখ। 'ম্যান অব স্টিল' সিনেমার কাজটি শুরু করা হয় ২০০৮ সাল থেকে। সিনেমাটির গল্প নেওয়া হয় কমিক বুক লেখকদের কাছ থেকে। 'ডার্ক নাইট রাইজেস' সিনেমার গল্প থেকে ক্রিস্টোফার নোলান সুপারম্যান নিয়ে কাজ করার চিন্তা করেন। ২০১০ সালে স্যান্ডলারকে ডিরেক্টর হিসেবে নিযুক্ত করা হয়। ২০১৩ সালের ১৪ জুনের মধ্যে মুক্তি দেওয়ার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। ছবিটি বক্স অফিসে সাফল্য অর্জন করে এবং ৬৬৮,০৪৫,৫১৮ মার্কিন ডলার আয় করে।[১০] ২০১৬ সালে ছবিটির একটি সিক্যুয়েল মুক্তি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে যেটির নাম 'ব্যাটম্যান ভি সুপারম্যানঃ ডন অফ জাস্টিস'।

কাহিনী[সম্পাদনা]

বহু বছর ধরে প্রাকৃতিক সম্পদ উত্তোলনের ফলে ক্রিপটন নামের এক গ্রহের সমস্ত প্রাকৃতিক সম্পদ নিঃশেষ হয়ে যায়। এর পরিণাম হিসেবে গ্রহটির কেন্দ্র অস্থিতিশীল হয়ে পড়ে এবং গ্রহটি ধ্বংসপ্রাপ্ত হবার সম্ভাবনা দেখা দেয়। এ সময় ক্রিপটনের মিলিটারি কমান্ডার, জেনারেল জড, এবং তার সমর্থকরা একটি সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাশীল পরিষদমন্ডলীকে উৎখাত করে।

বিজ্ঞানী জর-এল এবং তার স্ত্রী ক্ষণিকের জন্য লারা তাদের পুত্র ক্যাল-এলের জন্ম উদযাপন করে। নিজ গ্রহের আসন্ন ধ্বংস সম্পর্কে সচেতন থাকায় জর-এল ক্যাল-এলের কোষের সাথে ক্রিপটনের জেনেটিক কোডেক্স মিশিয়ে দেয় এবং ক্যাল-এলকে একটি মহাকাশযানে করে পৃথিবী নামক একটি গ্রহে পাঠিয়ে দেয়। জড জর-এলকে হত্যার পরেও কোডেক্স অর্জনে ব্যর্থ হয়। রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধে জেনারেল জড এবং তার সমর্থকরা মহাশূন্যের ফ্যান্টম জোন নামক স্থানে নির্বাসিত হয়। ক্রিপটনের বিস্ফোরণের পর তারা মুক্তি পায়।

অন্যদিকে জর-এলের পুত্র কাল-এল পৃথিবীতে স্মলভিল নামক একটি কৃষিনির্ভর স্থানে অবতীর্ণ হয় যেখানে জোনাথান কেন্ট এবং মার্থা কেন্ট তাকে খুঁজে পায়। কাল-এলের নাম হয়ে ওঠে ক্লার্ক-কেন্ট। ক্লার্ক জোনাথান এবং মার্থাকে নিজের বাবা-মা হিসেবেই জানে। তাদের মাঝেই তার বেড়ে ওঠা। বেড়ে ওঠার সাথে সাথে সে উপলব্ধি করে যে সে অন্যদের চাইতে আলাদা, তার ক্ষমতা অস্বাভাবিক। তবে ক্লার্ক কখনোই সেগুলো মানুষের ক্ষতি সাধনের উদ্দেশ্যে ব্যবহার করে নি। সে জানতো তার এই ক্ষমতা একসময় মানব জাতির ভাগ্য নির্ধারণ করবে। তার ধারণা সত্যি হয়। পৃথিবী আক্রান্ত হয় বহিঃশত্রু জেনারেল জড এবং তার বাহিনী কর্তৃক। সামগ্রিক অবস্থা দুর্বিষহ হয়ে ওঠে। পৃথিবী রক্ষার্থে এগিয়ে আসে সুপারম্যান, ক্লার্ক।

গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনেতাদের নাম[সম্পাদনা]

  • ক্লার্ক-কেন্ট/সুপারম্যান চরিত্রে অভিনয় করেন হেনরি ক্যাভিল
  • লইস লেন চরিত্রে রয়েছেন অ্যামি অ্যাডাম্‌স[১১]
  • জেনারেল জড চরিত্রে রয়েছেন মাইকেল শ্যানন
  • জর-এল চরিত্রে অভিনয় করেছেন রাসেল ক্রো
  • লরেন্স ফিশবার্ন অভিনয় করেন পেরি হোয়াইট চরিত্রে

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Hans Zimmer tapped to score 'Man of Steel'"। Showblitz। জুন ১৮, ২০১২। সংগৃহীত আগস্ট ১০, ২০১২ 
  2. "Amir Mokri"। Internet Encyclopedia of Cinematographers। সংগৃহীত জুলাই ৩০, ২০১১ 
  3. Davis, Edward (জুলাই ২১, ২০১১)। "Zack Snyder's Superman Film Man Of Steel Moves To June 14, 2013"indieWire। সংগৃহীত জুলাই ২৬, ২০১১ 
  4. "MAN OF STEEL (12A)"British Board of Film Classification। মে ২১, ২০১৩। সংগৃহীত মে ২১, ২০১৩ 
  5. Brew, Simon (মে ১৫, ২০১৩)। "Man Of Steel runtime confirmed, new promo image"। Den of Geek। সংগৃহীত জুন ৬, ২০১৩ 
  6. McNary, Dave (জুন ৬, ২০১৩)। Office: 945,176,470 "Warner Bros. Sets Bar High for Latest – and Priciest – Incarnation of Superman"Variety। সংগৃহীত জুন ৬, ২০১৩ 
  7. "Man of Steel (2013)". Box Office Mojo. Retrieved October 2, 2013.
  8. Andrew Dyce (এপ্রিল ১১, ২০১৩)। "‘Man of Steel’ Will Launch DC Shared Universe"। ScreenRant। সংগৃহীত এপ্রিল ১২, ২০১৩ 
  9. http://www.forbes.com/sites/merrillbarr/2014/04/09/will-warner-brothers-dc-ever-catch-up-to-marvel-television-after-last-nights-agents-of-s-h-i-e-l-d/
  10. "Man of Steel (2013)". Box Office Mojo. Retrieved October 2, 2013.
  11. Arrant, Chris (March 29, 2011). "Is Superman's New Lois Lane Really Too Old For The Man Of Steel?"

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

টেমপ্লেট:DC Comics films টেমপ্লেট:Zack Snyder