মোহাম্মাদ আনোয়ার আনোয়ারজাই

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মোহাম্মাদ আনোয়ার আনোয়ারজাই
পাকিস্তান  আফগানিস্থান  রাষ্ট্রদূত
কাজের মেয়াদ
2007–2008
রাষ্ট্রপতিহামিদ কারজাই
পূর্বসূরীনানগায়ালাই তারজি
উত্তরসূরীআব্দুল খালিক ফারাহি
Australia Afghanistan রাষ্ট্রদূত
কাজের মেয়াদ
2005–2007
পূর্বসূরীMahmoud Saikal
উত্তরসূরীAmanullah Jayhoon
ব্যক্তিগত বিবরণ
জন্ম১৯৩৭
কাবুল, আফগানিস্থান 
জাতীয়তাআফগান 
জীবিকাকুটনৈতিক 

মোহাম্মদ আনোয়ার আনোয়ারজাই হলেন আফগান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের জাতিসংঘ বিষয়ক ডিপার্টমেন্ট এর প্রধান। তিনি পাকিস্তানে নিযুক্ত সাবেক আফগান রাষ্ট্রদূত ছিলেন।

প্রাথমিক জীবন [সম্পাদনা]

আনোয়ারজাই ১৯৩৭ সালে কাবুলে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৫৪ সালে নেজাত (আমানি) উচ্চ বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাশ করেন। এরপর তিনি কাবুল বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন এবং ১৯৫৯ সালে আইন অনুষদ থেকে স্নাতক সম্পন্ন করেন। তারপর তিনি ইংল্যান্ডে যান ও অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। সেখান থেকে ১৯৭০ সালে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক এবং আন্তর্জাতিক আইন এর ওপর পড়াশোনা শেষ করেন। এখানে তিনি উন্নয়নশীল দেশের কূটনীতিকদের জন্য একটি বিশেষভাবে নকশা করা প্রোগ্রামে পড়াশোনা করেন। 

কূটনীতিক (সত্তরের দশক) [সম্পাদনা]

একজন সরকারি কর্মচারী হিসেবে ১৯৬০ এর দশকে তার কর্মজীবন শুরু হয়। আফগান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিভিন্ন বিভাগে তিনি কাজ করেছেন। ১৯৬৪ থেকে ১৯৬৯ সালে আনোয়ারজাই দ্বিতীয় সচিব হিসেবে সরাসরি রাষ্ট্রদূত আব্দুর রহমান  পাযহাক এর তত্ত্বাবধানে  কাজ করেন। ১৯৭৩ সাল থেকে ১৯৭৬ সাল পর্যন্ত আফগানিস্তান দূতাবাস মস্কোতে প্রথম সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। এরপর ১৯৭৬ থেকে ১৯৭৮ সাল পর্যন্ত মিশন প্রধান হিসেবে ত্রিপোলিতে নিযুক্ত হন।

সোভিয়েত আগ্রাসনের সময়[সম্পাদনা]

সোভিয়েত আগ্রাসনের পরে আনোয়ারজাই ও তার পরিবার রাজনৈতিক শরণার্থী হয়ে পরেন ও পরের ২৩ বছর নির্বাসিত জীবন কাটান। ১৯৭৯ সাল থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত তিনি আফগান মুক্তিযোদ্ধাদের যৌক্তিকতা, সভা-সেমিনার, আফগানদের স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম এবং আফগানিস্তানে সোভিয়েত নৃশংসতা ইত্যাদি প্রচারে সক্রিয় ছিলেন।

আফগানিস্তানে প্রত্যাবর্তন [সম্পাদনা]

২০০২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে বন চুক্তির পর তিনি আফগানিস্তানে  ফিরে আসেন। তিনি আফগান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে নিযুক্ত হন।

রাষ্ট্রদূত[সম্পাদনা]

২০০৫ সালে তিনি অস্ট্রেলিয়ায় আফগানিস্তানের  রাষ্ট্রদূত হিসেবে নিয়োগ পান। [১] ২০০৭ সালে যখন তিনি অস্ট্রেলিয়া থেকে ফিরে আসেন, তার জন্য বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।[২]

২০০৭ সালে তিনি রাষ্ট্রদূত হিসেবে পাকিস্তানে আসেন। তিনি সেখানে এক বছর কাজ করেন।[৩]

পাকিস্তানে রাষ্ট্রদূত হিসেবে তিনি বলেন যে পারভেজ মোশাররফের প্রস্থান পাকিস্তানের গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানকে জোরদার করবে।[৪]

তার উত্তরসূরি হিসেবে নিয়োগপ্রাপ্ত রাষ্ট্রদূত আব্দুল খালিক ফারাহিকে একটি অজানা সশস্ত্র পুরুষদের দল অপহরণ করে, যখন তিনি রাষ্ট্রদূত হন নি।[৫]

পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে প্রত্যাবর্তন[সম্পাদনা]

তারপর তিনি আফগান পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে জাতিসংঘ বিষয়ক ডিপার্টমেন্ট এর প্রধান হন। ২০০৯ সালের নভেম্বর মাসে অনুষ্ঠিত বার্সেলোনা - স্পেন জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক আলোচনায় উপস্থিত ছিলেন।[৬]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Safis Web: Profile: Mohammad Anwar Anwarzai"। ১৮ জুলাই ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ নভেম্বর ২০১৭ 
  2. "Canberra Times, 17 February 2007"। ১১ অক্টোবর ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ নভেম্বর ২০১৭ 
  3. [১][স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. The Nation: 'Musharraf's resignation to strengthen democracy'
  5. "All Voices: Afghan ambassador abducted while his driver killed"। ২৮ মার্চ ২০১২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ নভেম্বর ২০১৭ 
  6. "Afghan Foreign Ministry: Afghanistan Presents National Action Plan on Climate Change"। ২৯ সেপ্টেম্বর ২০১১ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ৬ নভেম্বর ২০১৭