মেমফিস, মিশর

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মেমফিস
منف
Memphis200401.JPG
দ্বিতীয় রামেসিসের স্তম্ভযুক্ত সভাঘরের ধ্বংসাবশেষ, মিত রাহিনা
মেমফিস, মিশর মিশর-এ অবস্থিত
মেমফিস, মিশর
মিশরে অবস্থান
বিকল্প নাম
mn
n
nfrf
r
O24niwt
মেমফিস
(মধ্য মিশরীয়)
ⲙⲟⲩⲛ ⲛⲟϥⲣⲓ
(কপটিক প্রতিবর্ণীকরণ)
স্থায়ী ও সুন্দর (mn nfr)
চিত্রলিপিতে

DdstststO24niwt
মেমফিস
(পুরনো মিশরীয়)
চিরস্থায়ী স্থানসমূহ (Djd swt)
চিত্রলিপিতে

Hwtt
pr
kA
Z1
p
t
HA40
মেমফিস
(পরবর্তী মিশরীয়)
ϩⲱ ⲭⲟ ⲡⲑⲁϩ
(কপটিক প্রতিবর্ণীকরণ)
পিতাহ্-এর আত্মার ভবন ("কা") (hwt-ka-ptah)
চিত্রলিপিতে

anxn
x
tA
tA
N23
N23
মেমফিস
(মধ্য মিশরীয়[১])
যেখানে দুই দেশ বাস করে (anekh-tauy)
চিত্রলিপিতে
অবস্থানমিত রাহিনা, গিজা গভর্নরেট, মিশর
অঞ্চলনিম্ন মিশর
স্থানাঙ্ক২৯°৫০′৪১″ উত্তর ৩১°১৫′৩″ পূর্ব / ২৯.৮৪৪৭২° উত্তর ৩১.২৫০৮৩° পূর্ব / 29.84472; 31.25083স্থানাঙ্ক: ২৯°৫০′৪১″ উত্তর ৩১°১৫′৩″ পূর্ব / ২৯.৮৪৪৭২° উত্তর ৩১.২৫০৮৩° পূর্ব / 29.84472; 31.25083
ধরনজনবসতি
ইতিহাস
নির্মাতাঅজ্ঞাত, আইরি-হোরের রাজত্বকালেও এই শহরের অস্তিত্ব ছিল। [২]
প্রতিষ্ঠিতখ্রিস্টপূর্ব একত্রিংশ শতাব্দীর আগে
পরিত্যক্তখ্রিস্টীয় সপ্তম শতাব্দী
সময়কালআদি রাজবংশীয় যুগ থেকে আদি মধ্যযুগ
প্রাতিষ্ঠানিক নামমেমফিস ও তার সমাধিনগরী – গিজা থেকে দাহশুরের পিরামিড ক্ষেত্রসমূহ
ধরনসাংস্কৃতিক
মানকi, iii, vi
অন্তর্ভুক্তির তারিখ১৯৭৯ (তৃতীয় অধিবেশন)
রেফারেন্স নং৮৬
অঞ্চলআরব রাষ্ট্রসমূহ

মেমফিস (মেনেফের) (আরবি: مَنْف‎‎ Manf  মিশরীয় আরবি: mænf; বোহাইরিকটেমপ্লেট:Lang-cop; গ্রিক: Μέμφις) ছিল mḥw ("উত্তর") নামে পরিচিত নিম্ন মিশরের প্রথম নোম আইনেবু-হেদ্জের প্রাচীন রাজধানী।[৩] অধুনা মিশর রাষ্ট্রের বৃহত্তর কায়রোর গিজার ২০ কিলোমিটার (১২ মাইল) দক্ষিণে আধুনিক শহর মিত রাহিনার কাছে মেমফিসের ধ্বংসাবশেষ অবস্থিত।

খ্রিস্টপূর্ব তৃতীয় শতাব্দীতে প্রাচীন মিশরের হেলেনীয় যুগের টলেমীয় রাজ্যের অধিবাসী এক পুরোহিত ও ইতিহাসবিদ মানেথো উল্লিখিত একটি কিংবদন্তি অনুযায়ী, ফ্যারাও মেনেস এই শহরটি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। পুরনো রাজ্যের আমলে মেমফিস ছিল প্রাচীন মিশরের রাজধানী (কেমেত বা কুমাত) এবং প্রাচীন মিশরের সমগ্র ইতিহাস জুড়েই এটি একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর হিসেবেই রয়ে যায়।[৪][৫][৬]

পাদটীকা[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Najovits, Simson R. Egypt, trunk of the tree: a modern survey of an ancient land (Vol. 1–2), Algora Publishing, p171.
  2. P. Tallet, D. Laisnay: Iry-Hor et Narmer au Sud-Sinaï (Ouadi 'Ameyra), un complément à la chronologie des expéditios minière égyptiene, in: BIFAO 112 (2012), 381–395, available online
  3. "TM Places"www.trismegistos.org। সংগ্রহের তারিখ ২০১৯-১১-১৬ 
  4. Bard, Encyclopedia of the Archaeology of Ancient Egypt, p. 694.
  5. Meskell, Lynn (2002). Private Life in New Kingdom Egypt. Princeton University Press, p.34
  6. Shaw, Ian (2003). The Oxford History of Ancient Egypt. Oxford University Press, p.279

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

  • Herodotus, The Histories (Vol II).
  • Diodorus Siculus, Bibliotheca historica, (Vol I).
  • Strabo, Geographica, Book XVII: North Africa.
  • Suetonius, The Twelve Caesars, Part XI: Life of Titus.
  • Ammianus Marcellinus; translation by C.D. Yonge (১৮৬২)। Roman History, Book XXII। London: Bohn। পৃষ্ঠা 276–316। 
  • Jean de Thévenot (১৬৬৫)। Relation d'un voyage fait au Levant। Paris: L. Billaine। 
  • Government of France (1809–1822). Description de l'Égypte. Paris: Imprimerie impériale.
  • Champollion, Jean-François (১৮১৪)। L'Égypte sous les Pharaons। Paris: De Bure। 
  • Champollion, Jacques-Joseph (১৮৪০)। L'Égypte Ancienne। Paris: Firmin Didot Frères। 
  • Lepsius, Karl Richard (১৮৪৯–১৮৫৯)। Denkmäler aus Aegypten und Aethiopien। Berlin: Nicolaische Buchhandlung। 
  • Ramée, Daniel (১৮৬০)। Histoire générale de l'architecture। Paris: Amyot। 
  • Joanne, Adolphe Laurent; Isambert, Émile (১৮৬১)। Itinéraire descriptif, historique et archéologique de l'Orient। Paris: Hachette। 
  • Brugsch, Heinrich Karl (১৮৬২)। Collection of Egyptian monuments, Part I। Leipzig: J.C. Hinrichs। 
  • Mariette, Auguste (১৮৭২)। Monuments divers collected in Egypt and in Nubia। Paris: A. Franck। 
  • Maspero, Gaston (১৮৭৫)। Histoire des peuples de l'Orient। Paris: Hachette। 
  • Maspero, Gaston (১৯০২)। Visitor's Guide to the Cairo Museum। Cairo: Institut Français d'Archéologie Orientale। 
  • Jacques de Rougé (১৮৯১)। Géographie ancienne de la Basse-Égypte। Paris: J. Rothschild। 
  • Breasted, James Henry (১৯০৬–১৯০৭)। Ancient Records of Egypt: Historical Documents from the Earliest Times to the Persian Conquest। Chicago: University of Chicago Press। আইএসবিএন 978-0-8160-4036-0 
  • Petrie, W.M. Flinders, Sir (১৯০৮)। Memphis I। British School of Archaeology; Egyptian Research Account। 
  • Petrie, W.M. Flinders, Sir (১৯০৮)। Memphis II। British School of Archaeology; Egyptian Research Account। 
  • Petrie, W.M. Flinders, Sir (১৯১০)। Maydum and Memphis III। British School of Archaeology; Egyptian Research Account। 
  • Al-Hitta, Abdul Tawab (১৯৫৫)। Excavations at Memphis of Kom el-Fakhri। Cairo। 
  • Anthes, Rudolf (১৯৫৬)। A First Season of Excavating in Memphis। Philadelphia: University of Philadelphia। 
  • Anthes, Rudolf (১৯৫৭)। Memphis (Mit Rahineh) in 1956। Philadelphia: University of Philadelphia। 
  • Anthes, Rudolf (১৯৫৯)। Mit Rahineh in 1955। Philadelphia: University of Philadelphia। 
  • Badawy, Ahmed (১৯৫৬)। Das Grab des Kronprinzen Scheschonk, Sohnes Osorkon's II, und Hohenpriesters von Memphis। Cairo: Annales du Service des Antiquités de l'Égypte, Issue 54। 
  • Montet, Pierre (১৯৫৭)। Géographie de l'Égypte ancienne, (Vol I)। Paris: Imprimerie Nationale। 
  • Goyon, Georges (১৯৭১)। Les ports des Pyramides et le Grand Canal de Memphis। Paris: Revue d'Égyptologie, Issue 23। 
  • Löhr, Beatrix (১৯৭৫)। Aḫanjāti in Memphis। Karlsruhe। 
  • Mahmud, Abdullah el-Sayed (১৯৭৮)। A new temple for Hathor at Memphis। Cairo: Egyptology Today, Issue 1। 
  • Meeks, Dimitri (১৯৭৯)। Hommage à Serge Sauneron I। Cairo: Institut Français d’Archéologie Orientale। 
  • Crawford, D.J.; Quaegebeur, J.; Clarysse, W. (১৯৮০)। Studies on Ptolemaic Memphis। Leuven: Studia Hellenistica। 
  • Lalouette, Claire (১৯৮৪)। Textes sacrés et textes profanes de l'Ancienne Égypte, (Vol II)। Paris: Gallimard। 
  • Jeffreys, David G. (১৯৮৫)। The Survey of Memphis। London: Journal of Egyptian Archaeology 
  • Tanis: l'Or des pharaons. Paris: Association Française d’Action Artistique (1987).
  • Thompson, Dorothy (১৯৮৮)। Memphis under the Ptolemies। Princeton: Princeton University Press। 
  • Málek, Jaromir (১৯৮৮)। A Temple with a Noble Pylon। Archaeology Today। 
  • Baines, John; Málek, Jaromir (১৯৮০)। Cultural Atlas of Ancient Egyptবিনামূল্যে নিবন্ধন প্রয়োজন। Oxfordshire: Andromeda। আইএসবিএন 978-0-87196-334-5 
  • Alain-Pierre, Zivie (১৯৮৮)। Memphis et ses nécropoles au Nouvel Empire। Paris: French National Centre for Scientific Research। 
  • Sourouzian, Hourig (১৯৮৯)। Les monuments du roi Mérenptah। Mainz am Rhein: Verlag Philpp von Zabern। 
  • Jones, Michael (১৯৯০)। The temple of Apis in Memphis। London: Journal of Egyptian Archaeology (Vol 76)। 
  • Martin, Geoffrey T. (১৯৯১)। The Hidden Tombs of Memphis। London: Thames & Hudson। 
  • Maystre, Charles (১৯৯২)। The High Priests of Ptah of Memphis। Freiburg: Universitätsverlag। 
  • Cabrol, Agnès (২০০০)। Amenhotep III le magnifique। Rocher: Editions du Rocher। 
  • Hawass, Zahi; Verner, Miroslav (২০০৩)। The Treasure of the Pyramids। Vercelli। 
  • Grandet, Pierre (২০০৫)। Le papyrus Harris I (BM 9999)। Cairo: Institut Français d’Archéologie Orientale। 
  • Sagrillo, Troy (২০০৫)। The Mummy of Shoshenq I Re-discovered?। Göttingen: Göttinger Miszellen, Issue 205। পৃষ্ঠা 95–103। 
  • Bard, Katheryn A. (১৯৯৯)। Encyclopedia of the Archaeology of Ancient Egypt। London: Routledge। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

পূর্বসূরী
থিনিস
মিশরের রাজধানী
খ্রিস্টপূর্ব ৩১০০–২১৮০ অব্দ
উত্তরসূরী
হেরাকলিওপোলিস

টেমপ্লেট:Memphis Necropolis