মুসা ইব্রাহীম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
মুসা ইব্রাহীম
Portrait of Musa Ibrahim.JPG
মুসা ইব্রাহীম
জন্ম১৯৭৯
জাতীয়তাবাংলাদেশী
পেশাপর্বতারোহী, সাংবাদিক
পরিচিতির কারণপ্রথম বাংলাদেশী হিসেবে মাউন্ট এভারেস্ট জয়
ওয়েবসাইটwww.musaibrahim.com.bd

মুসা ইব্রাহীম (জন্ম: ১৯৭৯) একজন বাংলাদেশী পর্বতারোহী এবং সাংবাদিক, যিনি প্রথম বাংলাদেশী হিসেবে মাউন্ট এভারেস্ট জয় করেছেন।[১][২][৩][৪][৫][৬][৭] সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদ অনুযায়ী তিনি ২৩ মে ২০১০ তারিখে বাংলাদেশ সময় ভোর ৫টা ৫ মিনিটে এভারেস্ট শৃঙ্গ জয় করেন। ঈশ্বরী পাড়ওয়ালকে উদ্ধৃত করে কাঠমান্ডুতে বাংলাদেশের উপ-মিশনপ্রধান নাসরিন জাহান মুসা ইব্রাহীমের এভারেস্ট জয়ের তথ্য নিশ্চিত করেন। [৮]

জন্ম ও শিক্ষাজীবন[সম্পাদনা]

জন্ম:লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নে, ১৯৭৯ সালে। বিদ্যালয়: ঠাকুরগাঁও চিনিকল উচ্চ বিদ্যালয়, ঠাকুরগাঁও

নটরডেম কলেজ, ঢাকা

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

কর্মজীবন[সম্পাদনা]

মুসা ইব্রাহীম নর্থ আলপাইন ক্লাব বাংলাদেশ নামক পর্বতারোহন ক্লাবের মহাসচিব এবং ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক হিসেবে কর্মরত আছেন। এর আগে তিনি বাংলাদেশী বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল টুয়েন্টিফোরে জ্যেষ্ঠ সংবাদদাতা হিসেবে এবং বাংলাদেশী ইংরেজি দৈনিক দ্য ডেইলি স্টারের সহকারী সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। পর্বত আরোহণ ও অ্যাডভেঞ্চার বিষয়ক নানা আয়োজনে তরুণ তরুণীদের অংশগ্রহণ বাড়াতে ২০১১ সালে তিনি প্রতিষ্ঠা করেনএভারেস্ট একাডেমী

পর্বত জয়[সম্পাদনা]

এভারেস্টের চূড়ায়[সম্পাদনা]

মাউন্ট এভারেস্ট চূড়ায় বাংলাদেশের পতাকা হাতে মুসা ইব্রাহীম (বামে)

২০১০ সালের ২৩ মে মুসা ইব্রাহীম বাংলাদেশ সময় সকাল ৫ টা ১৬ মিনিটে এভারেস্টের চূড়ায় উঠেন এবং বাংলাদেশের পতাকা উড়ান।

কিলিমানজারো জয়[সম্পাদনা]

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১১ মুসা ইব্রাহিম আফ্রিকা মহাদেশের সর্বোচ্চ পর্বত কিলিমাঞ্জারো'র চূড়া জয় করেন। তার সঙ্গী ছিলেন নিয়াজ মোরশেদ পাটওয়ারী ও এমএ সাত্তার। তবে শুধু মুসা ও নিয়াজ ১৯ হাজার ৩৪০ ফুট উচ্চতার কিলিমাঞ্জারো পর্বতের চূড়ায় বাংলাদেশের পতাকা উড়িয়েছেন। [৯]

কার্স্টেনজ পিরামিড পর্বত শৃঙ্গ জয়[সম্পাদনা]

১৩ জুন ২০১৭, মুসা এবং দু'জন ভারতীয় পর্বতারোহী ইন্দোনেশিয়ার পাপুয়া প্রদেশে কার্স্টেনজ পিরামিড পর্বত শৃঙ্গ জয় করে নামার পথে বেজ ক্যাম্পে আটকা পড়েন। পরে হেলিকপ্টার তাদেরকে উদ্ধার করে ইন্দোনেশিয়ার টিমিকা বিমানবন্দরে নিয়ে আসে।[১০][১১][১২]

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Bangladesh, Nepal climbers to scale virgin peak in Himalayas ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ২৮ সেপ্টেম্বর ২০১০ তারিখে (AFP), Published: Sep 24, 2010, Retrieved: Oct. 18, 2010
  2. Bangladeshi scales Everest ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৭ অক্টোবর ২০১০ তারিখে (News24.com), Published: May 24, 2010, Retrieved: Oct. 18, 2010.
  3. "এভারেস্ট জয়ের সনদ পেলেন মুসা"। দৈনিক প্রথম আলো। সংগ্রহের তারিখ ২৭ মে ২০১০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  4. "Musa Ibrahim reaches top of Mt. Everest"। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১০ 
  5. "Musa conquers Everest"। The Daily Star। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১০ 
  6. "Prothom-alo.com"। সংগ্রহের তারিখ ২৪ মে ২০১০ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  7. http://www.dw-world.de/dw/article/0,,5605963,00.html
  8. "প্রথম আলো"। ২০১৪-০৪-০২ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৪-০১-০৩ 
  9. এভারেস্টের পর কিলিমানজারো জয় করলেন মুসা ইব্রাহীম ওয়েব্যাক মেশিনে আর্কাইভকৃত ১৯ জুন ২০১২ তারিখে, সর্বশেষ সংস্করনঃ ১৪ সেপ্টম্বর ২০১১.
  10. "মুসা ইব্রাহিম আটকা পড়েছেন পাপুয়ার পাহাড়ে"। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৭ 
  11. "ছয়দিন পর ইন্দোনেশিয়ার দুর্গম পাহাড় থেকে মুসা ইব্রাহিমকে উদ্ধার"। ১৯ জুন ২০১৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৭ 
  12. "মাউন্ট কার্স্টেনজ থেকে উদ্ধার পেয়েছেন মুসা ইব্রাহিম"। সংগ্রহের তারিখ ২৮ জুন ২০১৭ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]