মার্ক্স-এঙ্গেলস ফোরাম

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
১৯৮৬ সালে মার্ক্স-এঙ্গেলস ফোরাম। পটভূমিতে পলাস্ত দের রিপাবলিক এবং বার্লিনের ডম।
মার্ক্স-এঙ্গেলস ফোরামে কার্ল মার্ক্স (শুরুতে) এবং ফ্রেডরিক এঙ্গেলসের মূর্তি। পটভূমিতে বার্লিনের ডোম এর গম্বুজ।

মার্কস-এঙ্গেলস-ফোরাম জার্মানির রাজধানী বার্লিনে অবস্থিত কেন্দ্রীয় মিত্তে জেলার একটি পাবলিক পার্ক। এটি সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যক্তি হিসেবে বিবেচিত হয়। ১৮৪৮ সালের কমিউনিস্ট ম্যানিফেস্টোর লেখক কার্ল মার্ক্স এবং ফ্রেডরিক এঙ্গেলসের নামে নামকরণ করা হয়। পার্কটি ১৯৮৬ সালে সাবেক জার্মান গণতান্ত্রিক প্রজাতন্ত্র (জিডিআর) কর্তৃপক্ষ তৈরি করেছিল।[১][২]

পটভূমি[সম্পাদনা]

মার্কস-এঙ্গেলস ফোরাম স্প্রি নদীর পূর্ব তীরে অবস্থিত। এটি দক্ষিণ-পশ্চিমে নদী দ্বারা, উত্তর-পশ্চিমে কার্ল-লেবেকনেট-স্ট্র্যাসে , উত্তর-পূর্বে স্প্যানডার স্ট্র্যাসে এবং দক্ষিণ-পূর্ব রাথাউসস্টাসে রটস রথস এর বিপরীত বিপরীত দিকে দক্ষিণ-পূর্ব দিকে অবস্থিত। নদী বরাবর এটি পূর্বে পলাস্ত দার রিপাবলিক (এখন ধ্বংসপ্রাপ্ত) এবং বার্লিনের স্ট্যাডসচ্লস মুখিয়ে অবস্থান করে।

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে মার্ক্স এঙ্গেলস ফোরামটির বর্তমান স্থানটি নদী এবং আলেকজান্দারপ্লাটজের মধ্যকার ঘনজনবসতিপূর্ণ এক ওল্ড টাউন ছিল। এর নামকরণ করা হয়েছে হিলিজিজিস্টস্ট্র্যাসে (হোলি গোস্ট স্ট্রিট) নামে একটি রাস্তার নামানুযায়ী, যা কায়সার-উইলহেম-স্ট্র্যাসে (বর্তমানে কার্ল-লিবনিচট-স্ট্র্যাসে) এবং রাথাউসস্ট্র্যাসে। প্রধান পোস্ট অফিস সহ এই এলাকাটি ১৯৪৪/৪৫ সালে যৌথ আকাশ হামলার সময় ব্যাপকভাবে বোমা হামলায় ধ্বংসপ্রাপ্ত হয়। যুদ্ধের শেষে ধ্বংসাবশেষ অপসারণ করা হয়, কিন্তু প্রতিস্থাপিত হয়না।

পাশের নিকোলাভিয়ারটেলটি পুনর্নির্মিত করার সময় ১৯৭৭ সালে জিডিআর কর্তৃপক্ষ পালাস্ট ডের রিপাবলিক এবং ফারেনহাটুরমের মধ্যে একটি সবুজ স্থান স্থাপনের পরিকল্পনা স্থাপন করেছিল।কমিউনিস্ট আন্দোলনের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক্স এবং এঙ্গেলসকে উৎসর্গ করে এই স্থানটির পুনর্নির্মাণের জন্য ভাস্কর লুডভিগ এঞ্জেলহার্টকে এই প্রকল্পের পরিচালক হিসাবে নিযুক্ত করা হয়েছিল। জিডিআর মার্ক্স ও এঙ্গেলসের মতাদর্শের প্রতি উৎসর্গীকৃত ছিল। এটি একটি আয়তক্ষেত্রাকার কাঠের পার্ক নিয়ে গঠিত যার কেন্দ্রস্থলে একটি বৃহৎ, বৃত্তাকার প্যাডেড এলাকা রয়েছে। এখানেই এঙ্গেলহার্টের নির্মিত একটি ভাস্কর্য রয়েছে, যার মধ্যে মার্ক্স (বসা) এবং এঙ্গেলস (দাঁড়িয়ে) - এর ব্রোঞ্জ কাঠামো দাঁড়িয়ে রয়েছে। মূর্তিগুলির পিছনে জার্মান সমাজতান্ত্রিক আন্দোলনের ইতিহাস থেকে দৃশ্যমান কিছু ছবি। পার্কটির উদ্বোধন ১৯৮৬ সালে অনুষ্ঠিত হয়।

১৯৯০ সালে জার্মান একীকরণের পর, মার্ক্স-এঙ্গেলস ফোরামের ভবিষ্যৎ জনবিতর্কের বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছিল। কিছু বার্লিনীয়রা ফোরামকে একটি অপ্রত্যাশিত শাসনের অনাকাঙ্ক্ষিত অবলম্বন হিসাবে দেখেছিল এবং মূর্তিগুলি অপসারণ এবং পার্কটির পুনঃনামকরণ চাইছিল। অন্যরা যুক্তি দিয়েছিল যে এই সাইটটিতে শৈল্পিক ও ঐতিহাসিক তাত্পর্য উভয় আছে এবং এর সংরক্ষণ করা উচিত। পরের যুক্তিই টিকে যায়। মূর্তিগুলি এখন একটি পর্যটক আকর্ষণ, এবং তাদের দৃশ্যাবলী গ্রহণের জন্য মার্ক্সের হাঁটুতে মানুষের একটি স্থির প্রবাহ রয়েছে। বার্লিন ইউ-বাহনের ইউ ৫ লাইন মাথায় রেখে পরিকল্পিত এক্সটেনশানটির সাথে সাথে পার্কটি কয়েক বছর ধরে একটি নির্মাণস্থলে পরিণত করে। বার্লিন মেয়র ক্লাউস ওয়োয়ারিয়েট সম্প্রতি [কখন?] এই স্থানে পরবর্তিতে মধ্যযুগীয় চতুর্থাংশ পুনর্নির্মাণ কিনা একটি আলোচনা চলছে অনেকের মধ্যেই।[২]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Marx-Engels-Forum" 
  2. ব্রায়ান ল্যাড (১৫ এপ্রিল ২০০৮)। দ্য গুস্টস অফ বার্লিন: শহুরে ল্যান্ডস্কেপে জার্মান ইতিহাসের মুখোমুখি। শিকাগো বিশ্ববিদ্যালয় প্রেস। পৃষ্ঠা ২০৩-২০৪। 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

উইকিমিডিয়া কমন্সে Marx-Engels-Forum সম্পর্কিত মিডিয়া দেখুন