মক্কা ক্রেন দুর্ঘটনা

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
মক্কা ক্রেন দুর্ঘটনা
তারিখ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ (2015-09-11)
স্থানীয় সময় ১৭:৪৫
(ইউটিসি+০৩:০০)
অবস্থানমসজিদুল হারাম, মক্কা, সৌদি আরব
স্থানাঙ্ক২১°২৫′২১″ উত্তর ৩৯°৪৯′৩৪″ পূর্ব / ২১.৪২২৫° উত্তর ৩৯.৮২৬২° পূর্ব / 21.4225; 39.8262স্থানাঙ্ক: ২১°২৫′২১″ উত্তর ৩৯°৪৯′৩৪″ পূর্ব / ২১.৪২২৫° উত্তর ৩৯.৮২৬২° পূর্ব / 21.4225; 39.8262
কারণক্রেন ভেঙে পড়া
মৃত্যু১১১[১][২]
আহত৩৯৪[৩]

২০১৫ সালের ১১ সেপ্টেম্বর মসজিদ আল হারামের নির্মাণ কাজে ব্যবহৃত একটি ভ্রাম্যমাণ ক্রেন ভেঙে পড়ে যার ফলে ১১৮ জন মারা যান এবং ৩৯৪ জন আহত হন।[৩][৪][৫] এদের অধিকাংশই হজ্জের উদ্দেশ্যে মক্কা এসেছিলেন। শহর এসময় হজ্জের জন্য প্রস্তুত হচ্ছিল। এখানে সারা বিশ্ব থেকে মুসলিমরা জড়ো হচ্ছিলেন।[৬][৭][৮]

রিপোর্ট অনুযায়ী চল্লিশজন বাংলাদেশি,[৯] পনেরজন ভারতীয়, দশজন মালয়েশীয়, পনেরজন ইরানি, বেয়াল্লিশজন ইন্দোনেশীয়[১০][১১][১২][১৩] এবং একান্নজন পাকিস্তানি[১৪] এতে আহত হয়েছেন। এগারোজন পাকিস্তানি, এগারোজন ভারতীয় ও দুইজন ব্রিটিশ নিহতদের মধ্যে রয়েছেন।[১৫] আধুনিক ইতিহাসে এটি অন্যতম ভয়াবহ ক্রেন দুর্ঘটনা। ইতিপূর্বে ২০০৮ সালে নিউ ইয়র্কে সংঘটিত ক্রেন দুর্ঘটনাটি সবচেয়ে ভয়াবহ ছিল এবং এতে ৭ জন মারা যায়।[১৬]

পটভূমি[সম্পাদনা]

মক্কায় মসজিদুল হারামের অভ্যন্তরে কাবা অবস্থিত। নামাজ পড়ার সময় মুসলিমদের কাবার দিকে মুখ করতে হয়। এছাড়াও হজ্জউমরা পালনে অংশ হিসেবে কাবা তাওয়াফ করতে হয়।

হজ্জের সময় অধিক সংখ্যক মানুষের কারণে প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে।[১৭] দুর্ঘটনা এড়ানো এবং প্রতি বছর বাড়তে থাকা হাজিদের স্থান সঙ্কুলনের জন্য সৌদি কর্তৃপক্ষ সাম্প্রতিক সময়ে মসজিদুল হারাম সম্প্রসারণের উদ্যোগ নেয়।[১৮] এই ঘটনার সময় সৌদি কর্তৃপক্ষ অল্প কয়েকদিন পর অনুষ্ঠিতব্য হজ্জের জন্য প্রস্তুতি গ্রহণ করছিল।[৫][১৮]

দুর্ঘটনা[সম্পাদনা]

ক্ষতিগ্রস্তদের জাতীয়তা
জাতীয়তা নিহত আহত সূত্র
 বাংলাদেশ ২৫ [১৯]
 মিশর ২৩ [১৯]
 পাকিস্তান ১৫ ৫১ [১৪][১৯]
 ইন্দোনেশিয়া ১১ ৪২ [২০]
 ভারত ১১ ১৫ [১০][১৫]
 তুরস্ক ২১ [২১][২২]
 মালয়েশিয়া ১০ [১১][১৯]
 নাইজেরিয়া [২৩]
 যুক্তরাজ্য [১৫][২৪]
 ইরান ১১ ৩২ [১০][১৯][২৫]
 আলজেরিয়া [১৯]
 আফগানিস্তান [১৯]
সর্বমোট ১১১[note ১] ৩৯৪ [১][২]

শক্তিশালী ঝড়ের ফলে সৃষ্ট বায়ুপ্রবাহের সময় একটি ক্রেন সিলিঙয়ের মধ্য দিয়ে ভেঙে পড়ে বলে সৌদি বেসামরিক প্রতিরক্ষা কর্তৃপক্ষ নিশ্চিত করেছে। এতে কমপক্ষে ১১৮ জন মারা যান,[২৬] ৩৯৪ জন আহত হন এবং ধ্বংসস্তুপের নিচে অনেকে আটকা পড়েন।[৩][৫][২৭][২৮][২৯]

এই দুর্ঘটনা শুক্রবার সন্ধ্যা ৫:২০ মিনিটের কিছু পূর্বে সংঘটিত হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়। এটি ছিল সপ্তাহের সবচেয়ে ব্যস্ততম সময়ের একটি। এসময় ক্রেনটি মসজিদের পূর্ব অংশ ভেঙে পড়ে। [৪] একজন প্রত্যক্ষদর্শীর মতে সাফা ও মারওয়ার উপরে তৃতীয় তলায় এটি স্থানীয় সময় ৫:৪৫ মিনিটে ভেঙে পড়ে।[৩০]

কয়েক সপ্তাহ ধরে এই অঞ্চলে মরু ঝড় চলছিল। দুর্ঘটনার কিছু সময় পূর্বে হালকা বৃষ্টিপাত দেখা দেয়। এছাড়াও এসময় ঘন্টায় ৪০ কিলোমিটারের বেশি বেগে বাতাস বয়ে যাওয়ার ব্যাপারে বলা হয়েছে। তবে ক্রেন ভেঙে পড়ার প্রকৃত কারণ জানা যায়নি।[৩১]

দুর্ঘটনার পর মক্কার গভর্নর প্রিন্স খালিদ আল ফয়সাল তদন্তের নির্দেশ দেন। সৌদি রেড ক্রিসেন্ট কর্তৃপক্ষ উদ্ধার ও চিকিৎসার জন্য কর্মীদের পাঠায়। ১৩ সেপ্টেম্বর ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ ঘোষণা করেন যে ঘটনার তদন্ত করা হবে এবং তার ফলাফল জনসম্মুখে প্রকাশ করা হবে।[৩২][৩৩] সামাজিক মাধ্যমে প্রকাশিত ছবি ও ভিডিওতে অনেক মৃত ও আহতদের দেখা যায়।[৫]

তদন্তের রিপোর্ট গ্রহণের পর ১৫ সেপ্টেম্বর সৌদি বিনলাদেন গ্রুপের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণের উপর বাদশাহ সালমান নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেন। রিপোর্টে ঘটনার দায় আংশিকভাবে কনস্ট্রাকশন কোম্পানীর উপর আরোপ করা হয়। সৌদি প্রেস এজেন্সি কর্তৃক প্রচারিত রাজকীয় ঘোষণায় বলা হয় যে বাদশাহ দুর্ঘটনা তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পর্যালোচনা করছেন যাতে সৌদি বিনলাদেন গ্রুপের অবহেলার কথা বলা হয়েছে তবে এতে "অপরাধের সন্দেহ অনুপস্থিত"। রিপোর্টে বলা হয়েছে "দুর্ঘটনার মূল কারণ ভুল অবস্থানে ক্রেন থাকার সময় শক্তিশালী বায়ুপ্রবাহ"।[৩৪]

ক্রেন[সম্পাদনা]

সৌদি বিনলাদেন গ্রুপ এই নির্মাণকাজের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান। জার্মানিতে প্রস্তুত দুর্ঘটনায় ভেঙে পড়া ক্রেনটি এই প্রতিষ্ঠান কর্তৃক ব্যবহৃত হচ্ছিল। এছাড়াও এই প্রতিষ্ঠান সৌদি আরবে অনেক নির্মাণ কাজের সাথে জড়িত। এই প্রতিষ্ঠানটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম নির্মাণ কোম্পানি। এর প্রতিষ্ঠাতা ছিলেন মুহাম্মাদ বিন আওয়াদ বিন লাদেন যিনি সাবেক আল কায়েদা প্রধান ওসামা বিন লাদেনের বাবা।[৪][৩৫]

প্রতিক্রিয়া[সম্পাদনা]

দুর্ঘটনার পর বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা,[৩৬] কানাডার পররাষ্ট্রমন্ত্রী রব নিকলসন,[৩৭] ভারতের উপরাষ্ট্রপতি হামিদ আনসারি,[৩৮] মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক,[৩৯] পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ,[৪০] যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন[৪১] এবং আরো অনেক রাষ্ট্রীয় ব্যক্তিত্ব শোক জানিয়েছেন।

ক্ষতিপূরণ[সম্পাদনা]

সৌদি আরবের বাদশাহ সালমান বিন আবদুল আজিজ দুর্ঘটনায় মারা যাওয়া ব্যক্তিদের পরিবারকে এক মিলিয়ন সৌদি রিয়াল (২,৬৬,০০০ মার্কিন ডলার) ক্ষতিপূরণ প্রদানের আদেশ দেন এবং ২০১৬ সালের হজ্জে নিহতের পরিবারের দুইজন সদস্যকে বাদশাহর মেহমান হিসেবে হজ্জ করার ব্যবস্থার কথাও আদেশে উল্লেখ করা হয়। পাশাপাশি দুর্ঘটনার ফলে স্থায়ীভাবে অক্ষমদের প্রত্যেককে এক মিলিয়ন রিয়াল এবং দীর্ঘস্থায়ী নয় এমন আঘাতপ্রাপ্তদের প্রত্যেককে অর্ধেক মিলিয়ন রিয়াল প্রদানের আদেশ দেয়া হয়।[৪২][৪৩] বাদশাহ তার আদেশে এও বলেন যে এই ক্ষতিপূরণ প্রদানের কারণে আহত বা নিহতের পরিবার তাদের ব্যক্তিগত আইনি দাবি থেকে বঞ্চিত হবে না।[৪৪]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Batrawy, Aya (১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Pilgrims Traumatized, Asking How Mecca Crane Could Collapse"Associated Press। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  2. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; Saudi Gazette 11-19 নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  3. উদ্ধৃতি ত্রুটি: অবৈধ <ref> ট্যাগ; ABC News নামের সূত্রের জন্য কোন লেখা প্রদান করা হয়নি
  4. Calderwood, Imogen; Crone, Jack (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "The Hajj will go ahead: Religious leaders confirm Islam's mass pilgrimage to Mecca goes ahead this month despite the crane disaster killing 107 there yesterday"Daily Mail। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  5. Rawlinson, Kevin; Chulov, Martin (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Hajj pilgrimage to go ahead despite tragic crane collapse at Mecca's Grand Mosque"The Guardian। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  6. "Crane falls in Mecca's Grand Mosque, casualties reported"Daily MailReuters। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  7. "52 dead in crane accident in Mecca's Grand Mosque: Saudi reports"The Daily Star। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  8. Abdelaty, Ali; Hashem, Mostafa; Bayoumy, Yara (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "At least 107 killed by falling crane at Grand Mosque in Mecca"Reuters। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  9. http://www.prothomalo.com/international/article/629410/মক্কায়-নিহতের-সংখ্যা-বেড়ে-১০৭
  10. "2 Indians Among Over 100 Killed in Accident at Mecca's Grand Mosque"NDTV.comIndo-Asian News Service/All India। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  11. "10 Malaysian pilgrims injured, six unaccounted for in Mecca crane collapse"The Borneo PostBernama। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  12. "Crane Collapse kills at least 107 at Meccas grand mosque in Saudi Arabia"Zee NewsAFP। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  13. "Crane Jatuh di Masjidil Haram, 1 WNI Meninggal, 20 Terluka" [Crane crashes in the Haram, 1 citizen Dies, 20 Injured]। Tempo Nasional (Indonesian ভাষায়)। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  14. Wasif, Sehrish (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "51 Pakistani pilgrims injured in Makkah crane accident: FO"The Express TribuneAFP। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  15. Townsend, Sarah (১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "King Salman to make findings of Makkah crane collapse probe public"Arabian Business। সংগ্রহের তারিখ ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  16. Hampton, Tudor (১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Supercrane Collapse in Mecca Ranks as Deadliest in Decades"ENR। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  17. "Mecca no stranger to tragedy"USA Today (ইংরেজি ভাষায়)। Gannett Company। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  18. "At least 87 dead after crane accident in Masjidul Haram" (ইংরেজি ভাষায়)। Dawn। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  19. "Makkah crane crash report submitted"Al Arabiya। ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  20. "Daftar Nama Jemaah Rawat/Wafat Musibah Jatuhnya Crane Di Masjidil Haram 11 September 2015" [Names of Pilgrims Hospitalized/Dead in Calamity of Haram Crane Collapse September 11, 2015] (Indonesian ভাষায়)। Direktorat Jenderal Penyelenggaraan Haji dan Umrah - Kementerian Agama Republik Indonesia। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সেপ্টেম্বর ১৯, ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  21. "8 Turkish pilgrims die in crane collapse at Grand Mosque"Today's Zaman। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  22. "Number of casualties of Turkish Haji candidates at the Kaaba accident reach 8…"Presidency of Religious Affairs। ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫। ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  23. "Six Nigerians among victims of Saudi crane accident: official"Yahoo! NewsAFP। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  24. Halkon, Ruth; Webb, Sam (১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Two Brits dead and three injured in Mecca Grand Mosque crane tragedy that killed 107 people"Mirror Online। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  25. "3 more Iranians confirmed dead in Mecca crane collapse"Press TV। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  26. Murphy, Brian; Branigin, William (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Saudi officials: Crane collapse at Mecca Grand Mosque kills at least 107"The Washington Post। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  27. Mosendz, Polly (১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Death Toll From Crane Crash at Mecca's Grand Mosque Surpasses 100"Newsweek। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  28. "Mecca crane collapse: 107 dead at Saudi Arabia's Grand Mosque"BBC News। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  29. "Crane collapse in Mecca kills at least 107"Fox News। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  30. "Crane collapse kills at least 107 in Mecca Grand Mosque"Al Jazeera। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  31. "At least 87 killed as crane crashes into Mecca's Grand Mosque" (ইংরেজি ভাষায়)। Telegraph। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  32. "Saudi King vows to find cause of Makkah tragedy"Gulf NewsAFP। ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  33. "King Salman visits crane collapse site in Makkah"Khaleej TimesIANS। ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  34. Wahab, Siraj (১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫)। "Saudi Binladin Group sanctioned over deadly crane crash"Arab News। সংগ্রহের তারিখ ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  35. "BIN LADEN CRANE COLLAPSES, KILLS 107 ON 9/11 ANNIVERSARY" (ইংরেজি ভাষায়)। WND। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  36. http://www.banglanews24.com/fullnews/bn/424700.html
  37. "107 now confirmed dead after crane crashes into Mecca's Grand Mosque" (ইংরেজি ভাষায়)। CBC News। ২০১৫-০৯-১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৯-১১ 
  38. "Hamid Ansari expresses grief over accident in Mecca's Grand Mosque" (ইংরেজি ভাষায়)। Economic Times। ২০১৫-০৯-১১। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৯-১১ 
  39. "PM pledges aid for Malaysian pilgrims injured in Mecca crane collapse"Bernama (ইংরেজি ভাষায়)। The Malay Mail। ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  40. "PM condoles death of pilgrims in Mecca crane crash" (ইংরেজি ভাষায়)। Samaa TV। ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  41. Press Association at http://www.aol.co.uk/news/2015/09/12/camerons-shock-over-mecca-grand-mosque-crane-disaster/ accessed 12 September 2015
  42. "1m Riyals compensation for Makkah crane crash victims"Khaleej TimesAFP। ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  43. "یبرای قربانیان ک میلیون ریال سعودی؛ غرامت حادثه سقوط جرثقیل" [One Million Saudi Riyals, Compensation for Victims of Crane Crash]। Shabestan News Agency (Arabic ভাষায়)। ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 
  44. "Makkah Grand Mosque Crane Crash: SR1 million compensation for each victim"Emirates 24/7। ১৫ সেপ্টেম্বর ২০১৫। সংগ্রহের তারিখ ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৫ 


উদ্ধৃতি ত্রুটি: "note" নামক গ্রুপের জন্য <ref> ট্যাগ রয়েছে, কিন্তু এর জন্য কোন সঙ্গতিপূর্ণ <references group="note"/> ট্যাগ পাওয়া যায়নি, বা বন্ধকরণ </ref> দেয়া হয়নি