ভূটানের রাজকীয় বিশ্ববিদ্যালয়

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
পরিভ্রমণে ঝাঁপ দিন অনুসন্ধানে ঝাঁপ দিন
ভূটানের রাজকীয় বিশ্ববিদ্যালয়
འབྲུག་རྒྱལ་འཛིན་གཙུག་ལག་སློབ་སྡེ་
150px
ধরনসরকারি
স্থাপিত২০০৩
আচার্যতার মহিমা রাজা জিগমে খেসার নামগিয়েল ওয়াংচুক
উপাচার্যডাশো নিডুপ দর্জি
অবস্থান,
সংক্ষিপ্ত নামRUB
ওয়েবসাইটhttp://www.rub.edu.bt/
গেদু কলেজ অব বিজনেস স্টাডিজ ভূটানের রাজকীয় বিশ্ববিদ্যালয়-এর অধিভূক্ত একটি স্বায়ত্ত্বশাসিত সরকারি কলেজ।

ভূটানের রাজকীয় বিশ্ববিদ্যালয় (জংখা: འབྲུག་རྒྱལ་འཛིན་གཙུག་ལག་སློབ་སྡེ་; উচ্চারণ: 'ব্রাগ র্গ্যাল-'ড্জিন গ্টস্যাগ-ল্যাগ-স্লৈব-স্ডে; বাংলা: ভূটানের রাজকীয় বিশ্ববিদ্যালয়)[১] হলো ২০০৩ সালের ২ জুন তারিখে এক রাজকীয় নির্দেশনার আলোকে প্রতিষ্ঠিত ভূটানের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় পদ্ধতির উচ্চ শিক্ষা তদারককারী প্রতিষ্ঠান, যেটি মূলতঃ সমন্বয়ক হিসাবে দায়িত্ব পালন করে থাকে।

অধিভূূূূক্তি[সম্পাদনা]

ভুটানের তৎকালীন তৃতীয় পর্যায়ের উচ্চ শিক্ষা ক্ষেত্রটিকে একত্রিত করে ব্যবস্থাপনার জন্য বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। এটি রাজ্য জুড়ে ছড়িয়ে থাকা আটটি সাংবিধানিক কলেজ এবং একটি অনুমোদিত কলেজের[২] বিকেন্দ্রিককৃত বিশ্ববিদ্যালয়। একটি বিশ্ববিদ্যালয় ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে সরকারের অগ্রাধিকারের ভিত্তি ছিল প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের ন্যায়সঙ্গত সমভাবে সমমানে বিকাশ সাধন। বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভূূক্ত কলেজগুলি হলোঃ

বিশ্ববিদ্যালয়টি কানাডার দ্যা ইউনিভার্সিটি অব নিউ ব্রান্সউইক, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নর্পা ইউনিভার্সিটি এবং দ্যা স্কুল ফর ইন্টারন্যাশনাল ট্রেনিং, অস্ট্রিয়ার সল্জবার্গ বিশ্ববিদ্যালয়, ভারতের দ্যা ইউনিভার্সিটি অব দিল্লী, বাংলাদেশের বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি (বার্ড)[১২] প্রভৃতি বিশ্ববিদ্যালয় এবং প্রতিষ্ঠানের সাথে শিক্ষার্থী বিনিময় এবং শিক্ষার্থী ও অনুষদ সদস্যদের জন্যে প্রশিক্ষণ ও হাতে-কলমে শিখণ কার্যক্রম ব্যবস্থাপনা জন্য যোগাাযোগ স্থাপণ ও চুক্তি সম্পাদন করেছে।

ভুটানের মহামাণ্য রাজা জিগমে খেসার নামগিয়েল ওয়াংচুক এর আচার্য্য। ডাশো পেমা থিন্লে এর উপাচার্য এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা পরিচালনা করেন।

থিম্পুতে অবস্থিত দ্যা সেন্টার ফর ভূটান স্টাডিজ (সিবিএস) এর স্বায়ত্ত্বশাসিত অবস্থা বজায় রেখে এই বিশ্ববিদ্যালয়ের একটি সদস্য প্রতিষ্ঠান হিসাবেই মূলতঃ প্রতিষ্ঠিত।

পঠিত বিষয়াবলী[সম্পাদনা]

ভূটানের রাজকীয় বিশ্ববিদ্যালয় তার অধিভূক্ত প্রতিষ্ঠানগুলির মাধ্যমে মোট আটটি বিশদ পাঠ্যসূচীভূক্ত বিষয়াবলী নিয়ে পাঠদান করে থাকে। এগুলো হলোঃ

  • শিক্ষক শিখন,
  • ব্যবসায় এবং ব্যবস্থাপনা,
  • প্রকৌশল এবং ভৌত বিজ্ঞান,
  • কম্পিউটিং এবং তথ্যপ্রযুুক্তি বিজ্ঞঞান,
  • জৈব বিজ্ঞান ও কৃষি,
  • স্বাস্থ্য বিজ্ঞান,
  • মানবিক ও সামাজিক বিজ্ঞান এবং
  • জংখা ভাষা ও সাহিত্য।

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃৃৃপক্ষের পরিকল্পনা রয়েছে অধিভূক্ত কলেজগুলিতে কলা ও চিত্রণ, গণমাধ্যম, ভূটানের ইতিহাস ও সংস্কৃতি, কাউন্সেলিং, বৌদ্ধ ধর্মীয় শিক্ষা প্রভৃৃৃৃতি বিষয়েও শিখন কার্যক্রম চালু করার।

বেশিরভাগ শিখন কার্যক্রমই পূর্ণ-কালীন, যদিও শিক্ষা সংক্রান্ত দুইটি কলেজ, শ্রেব্তশে কলেজ এবং কলেজ অব ল্যাঙ্গুয়েজ এন্ড কালচারাল স্টাডিজে খন্ড-কালীন এবং দূর-শিক্ষণ পদ্ধতিতেও শিক্ষা কার্যক্রম পরিচালিত হয়।

এখান থেকে বিভিন্ন পাঠ্য বিষয়ে ডিপ্লোমা সার্টিফিকেট, স্নাতক ডিগ্রি ও স্নাতক-সম্মান ডিগ্রি দেয়া হয়।

প্রশাসনিক ব্যবস্থাপনা[সম্পাদনা]

উপাচার্য্যের কার্যালয়টি মূলতঃ শিক্ষষা প্রতিষ্ঠানগুলির মধ্যে সমন্বয় সাধন এবং তদারকির কাজটি করে থাকে; অপর দিকে প্রতিটি কলেজ তাদের নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা ও গবেষণা কার্যক্রম দেখা-শোনা করে। থিম্পুর মোথিথ্যাং-এ অবস্থিত উপাচার্য্য কার্যালয়টি গড়ে উঠেছে রেজিস্টার বিভাগ, একাডেমিক বিষয়, পরিকল্পনা ও সম্পদ বিভাগ এবং গবেষণা ও বহিঃ সম্পর্ক বিভাগের সমন্বয়ে।

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "Admission into Tertiary Education Programmes for 2011 Academic Year" (PDF)। Royal University of Bhutan। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০২-১১ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. "Member Colleges"। Royal University of Bhutan। ২০১০-০২-০৭ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৫ 
  3. "College of Natural Resources"। ২০১১-০৭-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৫ 
  4. "College of Science and Technology"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৫ 
  5. "Gaeddu College of Business Studies"। ২০১১-০৭-০৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৫ 
  6. "College of Language and Culture Studies"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৫ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  7. "Jigme Namgyel Polytechnic"। জুলাই ৩১, ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  8. "Paro College of Education"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৫ 
  9. "Royal Thimphu College"। ২০১৫-০৫-১৬ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। সংগ্রহের তারিখ ২০১৫-০৫-০৭ 
  10. "Samtse College of Education"। জুলাই ১৬, ২০১০ তারিখে মূল থেকে আর্কাইভ করা। 
  11. "Sherubtse College"। সংগ্রহের তারিখ ২০১১-০৩-২৫ 
  12. "বাংলাদেশ-ভুটান কানেক্টিভিটিতে বাণিজ্য বাড়বে"। দৈনিক কালেরকন্ঠ। সংগ্রহের তারিখ ২১ এপ্রিল ২০১৭ 

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]