ভয়নেচ পাণ্ডুলিপি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
ভয়নেচ পাণ্ডুলিপি
বেইনেক বিরল গ্রন্থ এবং পান্ডুলিপি গ্রন্থাগার, ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়
এমএস ৪০৮
Voynich Manuscript (170).jpg
ভয়নেচ পাণ্ডুলিপির ভাজকৃত পাতার একটি
সাধারণ তথ্য
ধরন পাণ্ডুলিপি কোডেক্স
তারিখ ১৫তম শতাব্দীর প্রথম দিকে[১][২]
মূল স্থান সম্ভবত উত্তর ইতালি[১][২]
বিষয়বস্তু
উপাদান ভেলাম
আকার ২৩.৫ × ১৬.২ × ৫ সেন্টিমিটার (৯.৩ × ৬.৪ × ২.০ ইঞ্চি);
প্রায় ২৩৪টি পাতা

ভয়নেচ পাণ্ডুলিপি (ইংরেজি: Voynich Manuscript) "বিশ্বের সবচেয়ে রহস্যময় পান্ডুলিপি"[৩] হিসেবে বর্ণিত, যাকে ১৫তম শতাব্দীর প্রথম দিকে লেখা হয়েছে বলে ধারণা করা হয়ে থাকে।[১][২] ১৯১২ সালে একজন বই ব্যবসায়ী উইলফ্রিড ভয়নেচ এটি ক্রয় করেন। তার নাম অনুসারে একে ভয়নেচ পাণ্ডুলিপি নামকরণ করা হয়।

এর কিছু পাতা হারিয়ে গিয়েছে কিন্তু এর বর্তমান সংস্করণে প্রায় ২৩৪টি পাতা রয়েছে, যার অধিকাংশই চিত্রালংকরণের সাথে গঠিত। পান্ডুলিপির অনেক বর্ণনাতে সে সময়ের ভেষজ পান্ডুলিপি, গাছপালার চিত্রালংকরণ এবং তাদের সম্ভাব্য ব্যবহার সম্পর্কিত তথ্য রয়েছে।

আরও দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. ১.০ ১.১ ১.২ Steindl, Klaus; Sulzer, Andreas (2011)। "The Voynich Code — The World's Mysterious Manuscript" (video)। সংগৃহীত November 6, 2011 
  2. ২.০ ২.১ ২.২ Stolte, Daniel (February 10, 2011)। "Experts determine age of book 'nobody can read'"PhysOrg। সংগৃহীত February 10, 2011 
  3. Brumbaugh, Robert S. (1977)। The World's Most Mysterious Manuscript। London: Weidenfeld & Nicolson 

আরও পড়ুন[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

ভয়নেচ পাণ্ডুলিপি সম্পর্কে আরও তথ্য পেতে হলে উইকিপিডিয়ার সহপ্রকল্পগুলোতে অনুসন্ধান করে দেখতে পারেন:

Wiktionary-logo-en.svg সংজ্ঞা, উইকিঅভিধান হতে
Wikibooks-logo.svg পাঠ্যবই, উইকিবই হতে
Wikiquote-logo.svg উক্তি, উইকিউক্তি হতে
Wikisource-logo.svg রচনা সংকলন, উইকিউৎস হতে
Commons-logo.svg ছবি ও অন্যান্য মিডিয়া, কমন্স হতে
Wikivoyage-Logo-v3-icon.svg ভ্রমণ নির্দেশিকা, উইকিভয়েজ হতে
Wikinews-logo.png সংবাদ, উইকিসংবাদ হতে