ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টি

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
সরাসরি যাও: পরিভ্রমণ, অনুসন্ধান
ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টি
নেতা হুয়ে পি. নিউটন
প্রতিষ্ঠা ১৯৬৬ (১৯৬৬)
ভাঙ্গন ১৯৮২ (১৯৮২)
মতাদর্শ
  • কৃষ্ণাঙ্গ জাতীয়তাবাদ
  • পুঁজিবাদ বিরোধী
  • ফ্যাসিবাদ বিরোধী
  • সামন্ততন্ত্র বিরোধী
  • বর্ণবৈষম্য বিরোধী
  • মাওবাদ
  • মার্কসবাদ-লেনিনবাদ
  • সাম্যবাদ
রাজনৈতিক অবস্থান বামপন্থী

দ্য ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টি বা বিপিপি (প্রকৃত ভাবে দ্য ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টি ফর সেলফ ডিফেন্স) একটি বিপ্লবী কৃষ্ণাঙ্গ জাতীয়তাবাদী ও সমাজতান্ত্রিক গেরিলা সংঘঠন ছিল। [১][২] ১৯৬৬ থেকে ১৯৮২ সাল পর্যন্ত মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এর কার্যক্রম অব্যহত ছিল। এছাড়া আন্তর্জাতিক ভাবে ১৯৬৯ থেকে ১৯৭২ সাল পর্যন্ত আলজেরিয়াতে এ সংগঠনটি কাজ করেছিল। [৩]

ষাটের দশকে আমেরিকাজুড়ে কৃষ্ণাঙ্গদের উপর, শেতাঙ্গদের তীব্র বর্ণবৈষম্য ও পুলিশী বর্বরতার রুখে দাড়াতে ও নিপীড়িত মানুষদের অধিকার আদায়ের জন্য গড়ে উঠে 'ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টি ফর সেলফ ডিফেন্স' সংক্ষেপে 'ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টি' বা 'বিপিপি'। ১৯৬৬ সালের ১৫ অক্টোবর হুয়ে নিউটন ও ববি স্কেলের নেতৃত্বে আত্মপ্রকাশ করে। [৪] সব ধরনের বৈষম্যের শিকার ও বিপিপির অন্য শাখাগুলোর মূল নেতা হিসেবে যোগ দেন আলবার্ট হওয়ার্ড, শেরয়েন ফোর্টে, রেগে ফোর্টে ও লিটল ববি হুটন।

প্রথমদিকে শুধু কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতিরক্ষাকে ভিত্তি করে দলটি গঠিত হলেও অল্প দিনেই পুঁজিবাদ, ফ্যাসিবাদ, বর্ণবৈষম্য, সামন্ততন্ত্রের বিরুদ্ধে ও সাম্যবাদী, নারীবাদী, মাওবাদী, মার্কসবাদী-লেনিনবাদী আদর্শে রূপান্তরিত হয়। খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, ন্যায়বিচার, সম-অধিকার, শান্তিসহ মোট দশ দফা যুগান্তকারী ধারণা নিয়ে ওকল্যান্ডের একটি স্কুলে নিয়মিতভাবে দলটির কার্যক্রম পরিচালিত হতে থাকে। ১৯৬৯ সালে, দলটি বিভিন্ন সামাজিক সেবামূলক কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে।[৫] এর মধ্যে ছিল শিশুদের জন্য বিনামূল্যে সকালের খাবার প্রদান, অসুস্থদের স্বাস্থ্যসেবা প্রদান ইত্যাদি। [৬][৭][৮]

ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টির জনপ্রিয়তা তুঙ্গে পৌছায় ১৯৭০ সালের দিকে। মাত্র দুই বছরেই এ দলটি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টন, শিকাগো, ফিলাডেলফিয়া, নিউ ইয়র্ক, লস অ্যাঞ্জেলেস, সানফ্রান্সিসকোসহ ৬৮টি স্থানে তুমুল জনপ্রিয়তা লাভ করে। এ সময়ে দশ হাজারের বেশি কর্মী ও নেতৃত্ব গড়ে ওঠে। যা তৎকালীন ক্ষমতাসীন মহলের জন্য ভীতিকর ব্যাপার হয়ে ওঠে। ফেডারেল ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (এফবিআই) প্রধান জে. এজার হুভার দলটিকে "দেশের অভ্যন্তরীণ নিরাপত্তার জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি" হিসেবে ঘোষণা দেয়। [৯] এবং এর প্রেক্ষিতে কাউন্টার ইন্টেলিজেন্স প্রোগ্রাম (COINTELPRO) নামে একটি গুপ্ত পরিকল্পনা চালায় দলটিকে মানুষের কাছে খারাপ ও অকার্যকর করে তোলার উদ্দেশ্যে। [১০] এ পরিকল্পনার অংশ হিসেবে ব্যাপক হারে ধরপাকড় ও গণমাধ্যমে অপপ্রচার চলে। [১১] দলটিকে অবৈধ ঘোষণা করে এদের বিরুদ্ধে মাদকসহ বিভিন্ন অনৈতিক কাজে যুক্ত থাকার অভিযোগ আনা হয়। [১২] অন্যদিকে এফবিআইয়ের গুপ্তহত্যার শিকার হয় দলটির নেতা-কর্মীরা। [১৩][১৪][১৫][১৬] শুধু ১৯৭০ সালেই দলটির মূল ১০ নেতাকে হত্যাসহ অগণিত কর্মীকে গুম ও বিকলাঙ্গ করে ফেলা হয়। ১৯৭২ এর দিকে দলটির কার্যক্রম শুধু ওকল্যান্ডে তাদের সদর দপ্তরে ও একটি বিদ্যালয়ে কেন্দ্রীভূত হয়ে পড়ে। সেখানে তারা স্থানীয় রাজনীতিকে প্রভাবিত করার চেষ্টা করে। সত্তরের দশক ধরে ধীরে ধীরে দলটি নিস্ক্রিয় ও স্তিমিত হয়ে পড়ে। ১৯৮০ সালে ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টির নেতাকর্মী অবশিষ্ট ছিল মাত্র ২৭ জন। [১৭]

ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টির ইতিহাস বিতর্কিতই থেকে যায়। পন্ডিতেরা ব্ল্যাক প্যান্থার পার্টিকে ১৯৬০ এর দশকের সবচেয়ে প্রভাবশালী কৃষ্ণাঙ্গ আন্দোলন সংগঠন এবং স্বদেশী কৃষ্ণাঙ্গদের স্বাধীনতা সংগ্রাম ও বিশ্বব্যাপী মার্কিন সাম্রাজ্যবাদের প্রতিদ্বন্দীদের মধ্যে সবচেয়ে শক্তিশালী যোগসূত্র স্থাপনকারী হিসেবে অভিহিত করেন। [১৮] আবার অনেকে দলটিকে বেপরোয়া সন্ত্রাসী সংগঠন হিসেবে উল্লেখ করে। [১৯]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. Joseph, Peniel (2006).
  2. Van Deburg, William L. New Day in Babylon: The Black Power Movement and American Culture, 1965-1975.
  3. Meghelli, Samir (2009), ""From Harlem to Algiers: Transnational Solidarities Between the African American Freedom Movement and Algeria, 1962-1978"", in Marable, Manning, Black Routes to Islam, Palgrave Macmillan, pp. 99–119. 
  4. "October 15, 1966: The Black Panther Party Is Founded".
  5. Austin 2006; Bloom and Martin, 2013; March, 2010; Joseph, 2006.
  6. Pearson 152.
  7. Bloom and Martin, chapter 7.
  8. Nelson, Alondra (2011).
  9. "Hoover and the F.B.I.".
  10. Thomas Barker, Black and White: The Liberal Media and the Ideology of Black Victimhood , CounterPunch, 2015.
  11. Bloom and Martin, conclusion.
  12. Philip Foner, The Black Panthers Speak, Da Capo Press, 2002.
  13. Final report of the Select Committee to Study Governmental Operations with Respect to Intelligence Activities, United States Senate.
  14. O'Reilly, Kenneth.
  15. Churchill and Vander Wall (2002).
  16. Haas, Jeffrey (2010).
  17. Austin, Up Against the Wall, 2006, p. 331.
  18. Bloom and Martin, 3.
  19. Pearson, 340.

গ্রন্থপুঞ্জি[সম্পাদনা]

বহিঃসংযোগ[সম্পাদনা]

আর্কাইভ