বুরহানউদ্দীন

উইকিপিডিয়া, মুক্ত বিশ্বকোষ থেকে
গাজী বুরহানউদ্দীন
গাজী বুরহান উদ্দীনের মাজার.jpg
গাজী বুরহান উদ্দীনের মাজার
ব্যক্তিগত
মৃত্যু
টুলটিকর, সিলেট
ধর্মইসলাম
দাম্পত্য সঙ্গীখাতুন জান্নাত
সন্তানসৈয়দ গুলজার আলম
মুসলিম নেতা
ভিত্তিকবুরহানাবাদ, কুশিঘাট, টুলটিকর, সিলেট
কাজের মেয়াদ১৪শ শতকের শুরুতে
পদশাহ জালাল-এর সঙ্গী

সৈয়দ গাজী বুরহানউদ্দীন (আরবি: سيد غازي برهان الدين‎‎), একজন ওলি ছিলেন যিনি সিলেটে বাস করতেন। তিনি সিলেট অঞ্চলের প্রথম মুসলমান ছিলেন।[১]

জীবনী[সম্পাদনা]

কথিত আছে যে সিলেটে ১৩টি মুসলমান পরিবার ছিল যারা টুলটিকর মহল্লায় বসবাস শুরু করেছিলেন। বুরহানউদ্দীন ছিলেন এই সংখ্যালঘু সমাজের সরদার। বিন কাসিমের অষ্টম শতকের সিন্ধু বিজয়ের পর ১৩ পরিবারের পূর্বপুরুষরা জাহাজের মধ্যে বাংলা আগমন করেছিলেন এবং প্রথমে চট্টগ্রাম শহরে এসেছিলেন। দাওয়াতী ও ব্যবসায়ী কারণে, তারা তারপর সিলেটে যান। তুলতিকর মহল্লার যে গ্রামে এই ১৩ পরিবার বসবাস করেছিল, তা এখনও "তেররতন" নামে পরিচিত।[২]

বুরহানউদ্দীনের পুত্রের জন্ম হবার পর তিনি তার পুত্রের আকিকা উপলক্ষে একটি গরু জবাই করেন।[৩] তার এই কর্মকাণ্ডে সিলেটের তৎকালীন রাজা গৌড় গোবিন্দ রুষ্ট হন। তার নির্দেশে বুরহানউদ্দীনের পুত্র সৈয়দ গুলজার আলমকে হত্যা করা হয় ও তার ডান হাত কেটে ফেলা হয়।[৪][৫]

তারপর, বুরহানউদ্দীন লখনৌতির সুলতান শামসউদ্দিন ফিরোজ শাহের নিকট গমন করেন এবং তাকে সব ঘটনা খুলে বলেন। তখন সুলতান সিলেট জয় করার জন্য একটি সেনাবাহিনী পাঠান। বুরহানউদ্দীন ছিলেন সেই সেনাবাহিনীর পথ প্রদর্শক।[৩] তাদের অভিযানে শাহজালাল ও ৩৬০ আউলিয়াও অংশগ্রহণ করেছিলেন।[৪] তারা ১৩০৩ সালে সিলেট অধিকার করেন।

পরবর্তী জীবনে উদ্দীন একজন ওলি হন। সিলেটের টুলটিকর মহল্লার কুশিঘাটে তার মাযার রয়েছে।[৩]

উত্তরাধিকার[সম্পাদনা]

সিলেটের, কুশিঘাট-টুলটিকর-বুরহানাবাদের একটি রোডে তার নামে সৈয়দ বুরহানউদ্দিন রাস্তা নামকরণ করা হয়। একই রোডে গাজী বোরহান উদ্দিন প্রাথমিক বিদ্যালয় নামে একটি বিদ্যালয় রয়েছে।[৬] একই রোডে তার মাজার (সমাধি) অবস্থিত। এবং তার মাজারের পাশেই ১৯৭৯ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় তার স্মৃতি বিজড়িত জামিয়া ইসলামিয়া দারুল হাদীস শাহ গাযী সৈয়দ বুরহান উদ্দিন রঃ মাদ্রাসা।[৩] লন্ডনের কমার্শিয়াল স্ট্রিটের প্রাক্তন থানাটি ১৯৮৭ সালে একটি হাউজিং ব্লক হিসাবে পুনঃসংষ্কার করা হয়েছিল এবং তার নামানুসারে বুরহান উদ্দিন হাউস নামকরণ করা হয়।[৭] এছাড়াও লন্ডনের পূর্ব প্রান্তে, তার নামানুসারে বুকফাস্ট স্ট্রিটে একটি মসজিদ রয়েছে যার নাম বুরহান উদ্দিন মসজিদ

আরো দেখুন[সম্পাদনা]

তথ্যসূত্র[সম্পাদনা]

  1. "হযরত শাহজালাল ও হযরত শাহপরাণ এর মাজার"www.sylhetsadar.sylhet.gov.bd। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ [স্থায়ীভাবে অকার্যকর সংযোগ]
  2. কুরায়শী, ইশফাক (২০১২)। "বুরহান উদ্দিন ও নূরউদ্দিন প্রসঙ্গ"। শাহজালাল(রঃ) এবং শাহদাউদ কুরায়শী(রঃ) 
  3. মুহাম্মদ ছহুল হোসাইন (২০১২)। "বুরহানউদ্দীন (রঃ)"ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 
  4. "হযরত শাহজালাল (রহ.) ও ইবনে বতুতার মিথস্ক্রিয়া"বাংলাদেশ প্রতিদিন। ১ এপ্রিল ২০১৯। সংগ্রহের তারিখ ১১ ডিসেম্বর ২০১৯ 
  5. EB, Suharwardy Yemani Sylheti, Shaikhul Mashaikh Hazrat Makhdum Ghazi Shaikh Jalaluddin Mujjarad, in Hanif, N. "Biographical Encyclopaedia of Sufis: Central Asia and Middle East. Vol. 2". Sarup & Sons, 2002. p.459
  6. মো. ফররখ আহমদ চৌধুরী (২০১২)। "সিলেট সদর উপজেলা"ইসলাম, সিরাজুল; মিয়া, সাজাহান; খানম, মাহফুজা; আহমেদ, সাব্বীর। বাংলাপিডিয়া: বাংলাদেশের জাতীয় বিশ্বকোষ (২য় সংস্করণ)। ঢাকা, বাংলাদেশ: বাংলাপিডিয়া ট্রাস্ট, বাংলাদেশ এশিয়াটিক সোসাইটিআইএসবিএন 9843205901ওএল 30677644Mওসিএলসি 883871743 
  7. "The Bengali East End - Histories of life and work in Tower Hamlets" (PDF)Tower Hamlets